রাশিয়ার দাবি খুবই বাস্তবসম্মত স্বীকারোক্তি জেলেনস্কির

0

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

তিন সপ্তাহ ধরে ইউক্রেনে চলছে রাশিয়ার সামরিক অভিযান। একাধিক পশ্চিমাদেশের দাবি, ইউক্রেনীয় সেনাদের ব্যাপক প্রতিরোধের মুখে কাঙ্খিত সাফল্য পাচ্ছে না রুশ সেনারা।

এবার আল-জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি স্বীকার করেছেন যুদ্ধের ৩য় সপ্তাহে এসে রাশিয়ার দাবিগুলো খুবই বাস্তবসম্মত হয়ে গেছে।

তিনি বলেছেন, আলোচনার জন্য আরও সময় দরকার, আর এই আলোচনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে চলতে থাকবে।

তিনি বলেন, আলোচনা চলতে থাকবে, আমাকে জানানো হয়েছে। এরই মধ্যে আলোচনার বিষয়বস্তু খুবই বাস্তবসম্মত মনে হচ্ছে কিন্তু ইউক্রেনের স্বার্থরক্ষার মত সিদ্ধান্তে আসতে আরও সময় দরকার।

পাশাপাশি ইউক্রেনকে আরও অস্ত্র, আকাশসীমায় নো-ফ্লাই জোন ও রাশিয়াকে শাস্তি দিতে দেশটিকে আরও অবরোধ দেয়ার আহ্বান জানান জেলেনস্কি।

তিনি জানিয়েছেন, মঙ্গলবার রুশ সেনারা ইউক্রেনে অগ্রসর হতে পারেনি, তবে শহরগুলোর ওপর তাদের গোলাবর্ষণ অব্যাহত আছে।

গত ২৪শে ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে সামরিক অভিযান শুরুর ঘোষণা দেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। এর পর থেকেই পশ্চিমাদের বাধা উপেক্ষা করে পূর্ব ইউরোপের দেশটিতে চলছে রাশিয়ার সামরিক অভিযান।

ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভ খারকিভ, মারিওপল, সুমিসহ প্রধান শহরগুলোতে লড়াই চলছে।

ইউক্রেনকে অসামরিকায়ন ও নাৎসিমুক্তকরণ এবং দোনেৎস্ক ও লুহানস্কের রুশ ভাষাভাষী বাসিন্দাদের রক্ষা করার জন্যই এমন সামরিক পদক্ষেপ বলে দাবি করে আসছে রাশিয়া।

ইউক্রেনের পক্ষ থেকে বলা হয়, সম্পূর্ণ বিনা উসকানিতে রাশিয়া হামলা চালিয়েছে। দেশটি আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে সাহায্যের আবেদন জানিয়ে আসছে।

রাশিয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা ইউরোপের অর্থনীতির জন্য বড় ক্ষতি: উপলব্ধি ইইউ’র

রাশিয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের কারণে ইউরোপের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে বলে সতর্ক করেছেন ইউরোপীয় ইউনিয়ন বা ইইউ’র বাণিজ্য বিভাগের প্রধান ভ্যালডিস ডোমব্রোস্কিস।

মঙ্গলবার (১৫ই মার্চ) ব্রাসেলসে ইইউ’র অর্থমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠকের পর ডোমব্রোভস্কিস আরো বলেন, তবে ঠিক এই মুহূর্তে সঠিকভাবে সম্ভাব্য ক্ষতি নিরূপণ করা ‘অসম্ভব’।

তিনি বলেন, রাশিয়ার ওপর আরোপিত নিষেধাজ্ঞা কারণে উচ্চ মূল্যস্ফীতি হবে, জ্বালানি ও খাদ্যের দামের ওপর চাপ বাড়বে, বাজারে অস্থিরতা দেখা দেবে এবং সরবরাহ প্রক্রিয়ায় ব্যাঘাত ঘটবে।

তিনি বলেন, ইইউ’র অর্থমন্ত্রীরা ফেরত অযোগ্য অনুদান এবং ঋণসহ সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসাগুলিকে সহায়তা করার প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা করেছেন।

তবে ডোমব্রোভস্কিস জোর দিয়ে বলেছেন, ইইউ’র অর্থনীতির মৌলিক বিষয়গুলি অত্যন্ত মজবুত এবং এই ইউনিয়ন আসন্ন সংকটকে প্রতিহত করতে পারবে।

তিনি দাবি করেন, সম্ভাব্য অর্থনৈতিক ক্ষতি কাটিয়ে ওঠার জন্য ইইউ’র কাছে পর্যাপ্ত উপাদান রয়েছে।

তিনি এক্ষেত্রে ইউরোপীয় ইউনিয়নের করোনা মহামারির সময়কার আর্থিক নমনীয়তার প্রতি ইঙ্গিত করেন।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।