৩য় বিশ্বযুদ্ধের পর তীব্র আন্দোলন- ফেসবুকে বিএনপিকে নিয়ে ট্রল

0

স্পেশাল করেসপন্ডেন্স:

একসময় দেশের রাজনৈতিক অঙ্গনে বড় প্রশ্ন ছিল বিএনপি কবে রাজপথে নেমে তাদের নেত্রীকে মুক্ত করবে, কবে সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলন জমিয়ে তুলতে একযোগে নেতা-কর্মীরা বেরিয়ে আসবে, কবে দেশে কিছু একটা ঘটিয়ে ক্ষমতায় যাবে। এসব প্রশ্নের একটাই উত্তর ছিল- “ঈদের পর”।

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ, ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদুসহ স্থায়ী কমিটির সদস্যরা বিভিন্ন সভা সমাবেশে নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্যে একটাই কথা বলতেন- ঈদের পর আন্দোলন, কঠোর আন্দোলন, তীব্র আন্দোলন… ইত্যাদি।

তবে কোন ঈদের পর, সেটা কেউই জানতেন না। রোজার সময় সবাই ধরে নিতেন ঈদ-উল-ফিতর এর পর। তবে কোনো কিছু ঘটতে না দেখলে আন্দাজ করতেন ঈদ-উল-আযহার পর। কিন্তু বছর যায়, ঈদ যায়, মহররম, ঈদ-ই-মিলাদুন্নবীও পার হয়ে যায়, বিএনপির সেই কঠোর, তীব্র কোনো আন্দোলনের সময় আর আসে না। বছরের পর বছর কেটে যায়, কেউ কথা রাখে না!

এসব নিয়ে এর আগে ক্ষোভ প্রকাশ করে দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য মাহবুবুর রহমান বলেছিলেন, ঈদের পর আন্দোলন গড়ে তোলার নামে বিএনপিকে হাসির পাত্রে পরিণত করেছেন গুটিকয়েক নেতা। ২০১৪ সালের পর বিএনপির ঈদ আর শেষ হয় না।

তাই ‘ঈদের পর আন্দোলন’ বিষয়টা এখন রাজনৈতিক ট্রলের পর্যায়ে চলে গেছে। গত বছরের নভেম্বরে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মেজর (অব.) হাফিজ উদ্দিন আহমেদ বলেছিলেন, খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার জন্য শীতের পর আমরা আন্দোলনের ছক করে নিয়েছি। ছাত্রদল এবং যুবদলকে সংগঠিত করে শীত শেষেই আমরা রাজপথে নামবো।

তবে যথারীতি শীত চলে গেল। এরপর আবার শক্তপোক্ত ঘোষণা দিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন। ডয়চে ভেলে’র একটি টকশোতে তিনি জানান, করোনার পর জনগণকে নিয়ে রাস্তায় নামবে বিএনপি।

করোনা পরিস্থিতি এখন সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে। তবে বিএনপির কোনো আন্দোলনের দেখা পায়নি জাতি। তাই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে জনতাই নতুন ঘোষণা দিয়েছে ট্রল করার মাধ্যমে- রাশিয়া ইউক্রেন দখল করে নেওয়ার পর অথবা তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ শেষ হলে রাজপথ কাঁপিয়ে নামবে বিএনপি।

বিভিন্ন ট্রল পেজে ঘুরছে কিছু মজার মজার পোস্ট। সেখানে দাবি করা হয়েছে, বৈশ্বিক পরিস্থিতি গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছে বিএনপি। তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ হবে কি হবে না, এ নিয়ে বিএনপির রাজনীতিতে সম্পৃক্ত সাবেক সেনা কর্মকর্তারা বৈঠক করছেন, নতুন পরিকল্পনা নিচ্ছেন। যুদ্ধ শেষে পরিবেশ শান্ত হয়ে এলে বিএনপি চারদিক কাঁপিয়ে বাংলাদেশের রাজনীতিতে ঝড় তুলবে বলে হাসি-ঠাট্টা করছেন সাধারণ মানুষ।

তবে এসব ট্রল পোস্টে বিএনপি নেতা তারেক রহমান, জাইমা রহমান, রুহুল কবির রিজভী, ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ গুরুত্বপূর্ণ নেতাদের পেজ এবং আইডি মেনশন করে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলেও তাদের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।