বাংলাদেশেই তৈরী হবে স্যাটেলাইট ও রকেট, চুক্তি স্বাক্ষরিত

0

বিজ্ঞান ও তথ্য প্রযুক্তি ডেস্ক:

বাংলাদেশেই রকেট ও স্যাটেলাইট তৈরি এবং উৎক্ষেপণে নতুন এক উদ্যোগের আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হলো।

বাণিজ্যিকভাবে মহাকাশ জীবনের উপযোগী বিভিন্ন মডিউল তৈরি করতে ৩টি সমঝোতা চুক্তি করে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান অ্যারোস্পেস অ্যান্ড অ্যাভিয়েশন বিশ্ববিদ্যালয়।

যার একটি চুক্তি ব্রিজ টু বাংলাদেশ (বিটুবি)-এর সঙ্গে; দ্বিতীয়টি পিকো স্যাটেলাইট এবং তৃতীয়টি অ্যাসপায়ার টু ইনোভেশন (এটুআই)-এর সঙ্গে।

লালমনিরহাটে অবস্থিত দেশের প্রথম এই মহাকাশ বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষে চুক্তিতে সই করেন রেজিস্ট্রার এয়ার কমোডর মোহাম্মাদ আবদুল্লাহ আল মাহবুব। গবেষণা সহায়তায় এটুআই-এর পক্ষে চুক্তি করেন ইনোভেশন ল্যাবের হেড অব টেকনোলজি ফারুক আহমেদ জুয়েল।

বিটুবির হয়ে চুক্তিতে সই করেন প্রতিষ্ঠানটির সহ-সভাপতি সাজেদুল ইসলাম। আর পিকো স্যাটেলাইট ল্যাব স্থাপনের জন্য চুক্তিবদ্ধ হন প্রফেসর ড. নাজমুল উলা।

এই চুক্তির মাধ্যমে দেশে একটি মহাকাশ ইকোসিস্টেম গড়ে তুলবে প্রতিষ্ঠান ৪টি সম্মিলিতভাবে। চুক্তিকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রতিনিধিদের প্রত্যাশা, একদিন মহাকাশ বিষয়ক গবেষণায় বাংলাদেশের নাম উজ্জ্বল অক্ষরে লেখা থাকবে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান অ্যারোস্পেস অ্যান্ড অ্যাভিয়েশন বিশ্ববিদ্যালয়ের অস্থায়ী ক্যাম্পাস রাজধানীর তেজগাঁও পুরাতন বিমানবন্দরে এই চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

এতে প্রধান অতিথি হিসাবে ভার্চুয়ালি যোগ দেন তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রী উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে বলেন, দেশের মেধাবী তরুণরাই তৈরি করবে পূর্ণাঙ্গ স্যাটেলাইট।

তিনি আরও বলেন, কৃষি উৎপাদন বৃদ্ধি, আরবান প্ল্যানিং, আর্লি ফ্লাড ডিটেকশনের জন্য দেশে অনেক অনেক স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ করা প্রয়োজন। সেক্ষেত্রে আজকে যে এমওইউ হলো, তা অবজারভেটরি স্যাটেলাইটসহ পিকো, ন্যানো স্যাটেলাইট এগুলো উৎপাদনের সক্ষমতা তৈরি করবে।

পিকো স্যাটেলাইট প্রকল্পের মাধ্যমে মঙ্গলগ্রহসহ অন্যান্য উপগ্রহে জনবসতি গড়ে তুলতে এ সমঝোতা স্মারক কাজে লাগবে উল্লেখ করে পলক জানান, বাংলাদেশে উদ্ভাবনী ইকোসিস্টেম ও উদ্যোক্তা সংস্কৃতি গড়ে তুলতে তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগ সমন্বয়কের ভূমিকা পালন করছে।

তিনি এ বিষয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান অ্যারোস্পেস অ্যান্ড অ্যাভিয়েশন বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে সব ধরণের সহায়তার আশ্বাস দেন।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, পিকো স্যাটেলাইটের মাধ্যমে বাংলাদেশ তার নিজস্ব স্যাটেলাইট তৈরি করার সক্ষমতা অর্জন করবে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান অ্যাভিয়েশন অ্যান্ড অ্যারোস্পেস বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন উপাচার্য এয়ার ভাইস মার্শাল মো. নজরুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ স্যাটেলাইট কোম্পানি লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. শাহজাহান মাহমুদ, বিটুবির উপদেষ্টা সাবেক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর এবং এটুআইয়ের নীতি উপদেষ্টা আনীর চৌধুরী।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।