জানা গেল সানি লিওনের বাংলাদেশ সফরের অনুমতি বাতিলের আসল কারণ

0

বিনোদন ডেস্ক:

বলিউডের সুপারস্টার সানি লিওনের বাংলাদেশ সফরের অনুমতির বাতিলের কারণ জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

তিনি বলেন, পরিচয় গোপন করে একটি চলচ্চিত্রের কাজে বাংলাদেশে আসতে চেয়েছিলেন এই বলিউড নায়িকা। তবে তা দৃষ্টিগোচর হওয়ায় তার ওয়ার্ক পারমিট বাতিল করেছে তথ্য মন্ত্রণালয়।

শুক্রবার (১১ই মার্চ) সন্ধ্যায় আগারগাঁওয়ের মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরে ‘১০ম লিবারেশন ডকফেস্ট বাংলাদেশে’র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা জানান।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ভারতের ১০ জন শিল্পীকে বাংলাদেশে আসার জন্য অনুমতি দেওয়া হয়েছিল। সেখানে সানি লিওনকে অনুমতি দেওয়া হয়। কিন্তু সানি লিওন নামেও যে তিনি পরিচিত তা গোপন করা হয়।

ভিন্ন নামে, মার্কিন নাগরিক দেখিয়ে তার অনুমতি নেওয়া হয়েছিল। তিনি যে পরিচয় গোপন করেছেন যা বাংলাদেশের ইমিগ্রেশন আইন অনুসারে অপরাধ।

বিষয়টি জানার পর তার বাংলাদেশে আসার অনুমতি বাতিল করা হয়েছে উল্লেখ করে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, যারা গোপন করেছে তারা অন্যায় করেছে। যারা তাকে আনতে চেয়েছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা আমরা ভাবছি।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকারের নেওয়া বিভিন্ন পদক্ষেপের কারণে চলচ্চিত্র শিল্পের খারাপ দিন কেটে গেছে।

চলচ্চিত্র অনুদাননির্ভর শিল্প নয় মন্তব্য করেন তথ্যমন্ত্রী বলেন, সিনেমায় অনুদানের প্রয়োজন থাকলেও শুধু অনুদান দিয়ে সিনেমা শিল্পকে বাঁচিয়ে রাখা যাবে না। অনুদান দেওয়া হয় ভালো সিনেমা নির্মাণে জন্য। সিনেমা শিল্পের বিকাশে যে পদক্ষেপ নেওয়া দরকার তা এই সরকার নিচ্ছে।

এবারের আয়োজনে বিশ্বের ১৯৬টি দেশ থেকে জমা হয়েছিল একুশ শতাধিক ছবি, জমা করা ছবির মধ্য থেকে ৪০টি দেশের ১৪০টি ছবি প্রদর্শিত হবে। অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে সংসদ সদস্য আসাদুজ্জামান নূর উপস্থিত ছিলেন।

যেসব প্রেক্ষাগৃহে চলছে ‘গুণিন’ ও ‘শিমু’

অনেকদিন পর শুক্রবার (১১ই মার্চ) একসঙ্গে মুক্তি পেলো দুটি উল্লেখযোগ্য সিনেমা। একটি গিয়াস উদ্দিন সেলিমের ‘গুণিন’ অন্যটি রুবাইয়াত হোসেনের ‘শিমু’।

এরমধ্যে পরীমণি-রাজ অভিনীত ‘গুণিন’ মুক্তি পেয়েছে ২০টি প্রেক্ষাগৃহে। এতে আরও অভিনয় করেছেন আজাদ আবুল কালাম, ইরেশ যাকের, মোস্তফা মনওয়ারসহ অনেকেই।

এই সিনেমার গল্প গ্রামীণ ওঝা রজব আলী গুণিনকে নিয়ে। তার আধ্যাত্মিক ক্ষমতা ছিল। এই ক্ষমতার জোরে গ্রামে তার বিশাল প্রভাব। তার তিন নাতি রহম, আলী ও রমিজ। গুণিনের রহস্যজনক মৃত্যুর পরবর্তী পরিস্থিতিতে তার দুই নাতি তথা আপন দুই ভাইয়ের মধ্যে দ্বন্দ্ব ও ত্রিভুজ প্রেমের গল্পই এই চলচ্চিত্রের মূল উপজীব্য।

অন্যদিকে, মাত্র ৭টি প্রেক্ষাগৃহে উঠেছে রিকিতা নন্দিনী শিমু অভিনীত ‘শিমু’। বাংলাদেশে নারীর ক্ষমতায়নে ও আত্মনির্ভরশীলতা অর্জনে পোশাকশিল্পের যে ভূমিকা, তার আলোকে দৃঢ়চেতা নারী পোশাকশ্রমিকদের সংগ্রাম ও সাফল্যের গল্প বলা হয়েছে এই সিনেমায়।

‘শিমু’ সিনেমার বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন- নভেরা হোসেন, দীপান্বিতা মার্টিন, পারভীন পারু, মায়াবি মায়া, মোস্তফা মনওয়ার, শতাব্দী ওয়াদুদ, জয়রাজ, মোমেনা চৌধুরী, ওয়াহিদা মল্লিক জলি, সামিনা লুৎফা প্রমুখ। দুটি অতিথি চরিত্রে অভিনয় করেছেন মিতা চৌধুরী ও ভারতের শাহানা গোস্বামী।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।