আজ হ্যালোইন ডে

0

ফিচার ডেস্ক:

আজ ৩১ অক্টোবর বিশ্বব্যাপী পালিত হবে হ্যালোইন ডে। অল হ্যালোস ইভ বা হ্যালোইন উৎসব খ্রিষ্টান সমাজে অন্যতম প্রধান উৎসব। প্রতিবছর এদিন বিশ্বব্যাপী খ্রিষ্ট ধর্মাবলম্বীরা উৎসবটি পালন করলেও উন্নত বিশ্বে এটি একটি সর্বজনীন উৎসব হিসেবে পরিণতি পেয়েছে।

যদিও এটি ধর্মীয় কোনো উৎসব হিসেবে পালিত হয় না সেই অর্থে, মজার ছলেই পালিত হয় সর্বত্র।

হ্যালোইন শব্দটি এসেছে স্কটিশ ভাষার শব্দ অল হ্যালোজ ইভ থেকে। হ্যালোইন শব্দের অর্থ পবিত্র সন্ধ্যা। সময়ের সঙ্গে পরিবর্তিত হয়ে হ্যালোজ ইভ শব্দটি এক সময় হ্যালোইন-এ রূপান্তরিত হয়।

অল হ্যালোস ইভ বা হ্যালোইন উৎসব মূলত মৃত ব্যক্তিদের স্মরণে পালন করা হয়। এসব মৃত ব্যক্তির মধ্যে আছেন সাধু-সন্ত, কোনো ভালো কাজের জন্য জীবন উৎসর্গকারী ব্যক্তি এবং বিশ্বাসীগণ। দিনটিকে আরও কিছু নামেও ডাকা হয়, যেমন ডে অব দ্য ডেড, অল সেইন্টস ডে, রিফরমেশন ডে।

ইউরোপ, আমেরিকাসহ অন্যান্য উন্নত বিশ্বে অক্টোবর মাস শুরু হলেই বিভিন্ন দোকানে হ্যালোইন উৎসবের জন্য একটা সাজসাজ ভাব শুরু হয়ে যায়। মিষ্টিকুমড়া থেকে শুরু করে কালো রঙের পোশাক, মাকড়সার জাল, ভূত সাজার মুখোশ ইত্যাদি আনুষঙ্গিক আরও হরেক রকমের জিনিসপত্র বিক্রির ধুম পড়ে যায়।

হ্যালোইনের দিন বিকেল থেকেই বাড়ির দরজার সামনে একটা ঝুড়ি বা ডালায় রেখে দেওয়া হয় চকলেট ও মিষ্টি জাতীয় খাবার। বিকেল থেকে ছোট ছোট ছেলেমেয়েরা কালো ভূতের পোশাক বা হ্যালোইন ড্রেস পরে, ভুতুড়ে সাজে মুখ রাঙিয়ে বা ভুতুড়ে মুখোশ পরে প্রস্তুতি নেয়।

এরপর বন্ধুদের সঙ্গে অথবা একজন অভিভাবকের সঙ্গে পাড়া-মহল্লায় ঘুরে ঘুরে এসব চকলেট সংগ্রহ করে এবং চমৎকার উৎসবের আমেজ পায় পুরো বিষয়টি। এ ছাড়া এ দিন বয়োজ্যেষ্ঠরাও প্রার্থনা, বিশেষ খাবারের আয়োজনসহ আনুষঙ্গিক আরও কিছু আচার–অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করে থাকেন।

হ্যালোইন পালন করা নিয়ে ইউরোপ, আমেরিকায় মাতামাতির শেষ নেই। রাতটি উদযাপন করতে প্রস্তুতি চলে মাসজুড়েই। বর্তমান সময়ে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশেই হ্যালোইন পালিত হয়।

ইউরোপ, আমেরিকায় তো বটেই, পালিত হয় জাপানে, অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ডে, এমনকি বাংলাদেশেও। দিনটি ঘটা করে পালন করে ইউনিসেফও। তাদের সঙ্গে যুক্ত শিশুদের অনেকেই এদিন ভূত সেজে ট্রিক অর ট্রিট খেলার ছলে সংগ্রহ করে তহবিল। আর সে তহবিল খরচ হয় অসহায় শিশুদের জন্য।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।