এক দেহে ঢুকে শক্তি বাড়িয়ে করোনা ভাইরাস অন্যকে ধরছে!

0

বিজ্ঞান ও তথ্য প্রযুক্তি ডেস্ক:

চীনের উহান থেকে সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে করোনা ভাইরাস। কীভাবে ছড়িয়েছে এই প্রশ্নের সঠিক উত্তর এখনো অজানা। এই ভাইরাসটিকে নিয়ে প্রতিনিয়ত চলছে গবেষণা। পাওয়া যাচ্ছে নতুন নতুন তথ্য। এবার চীনে করোনায় আক্রা’ন্ত রোগীদের নিয়ে করা এক গবেষণায় বলা হচ্ছে, করোনার ৩০ বার মিউটেশনের সন্ধান পাওয়া গেছে। তার মধ্যেই ১৯টি মিউটেশনই নতুন।

চীনের ঝেজিয়াং বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীরা এই রোগে আক্রা’ন্ত স্বল্প সংখ্যক রোগী নিয়ে গবেষণা করেছেন। করোনার বেশ কয়েটি মিউটেশন আবিষ্কার করেন। এর মধ্যে ১৯টির চিহ্ন আগে কখনো দেখা যায়নি।

তাদের দেওয়া তথ্য মতে, কিছু মিউটেশন মানবদেহের কোষে আক্র’মণ করার ক্ষমতা বাড়িয়ে তোলে, অন্যান্যগুলো এই রোগটিকে আরো দ্রুত গতিতে ছড়িয়ে দিতে সহায়তা করে। সেই সঙ্গে একজনের দেহে ঢুকে শক্তি বাড়াচ্ছে করোনা ভাইরাস। এরপর দ্রুত আরেকজনের শরীরে ছড়িয়ে পড়ছে।

সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট জানিয়েছে, করোনার সবচেয়ে মা’রাত্মক স্ট্রেইনগুলো জিনগতভাবে ইউরোপ ও নিউইয়র্কে ছড়িয়ে পড়া ভাইরাসের সঙ্গে মিল রয়েছে। আর দুর্বল স্ট্রেইনগুলো মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটন স্টেটের মতো শহরগুলোতে ছড়িয়ে পড়া কারোনার সঙ্গে মিল রয়েছে।

গবেষকরা জনান, ইউরোপ ও নিউইয়র্কে তাণ্ড’ব চালানোর পেছনে অ’প্রকাশিত মিউটেশনগুলো রয়েছে। তবে ইউরোপ ও নিউইয়র্কে ছড়িয়ে পড়া ভাইরাস ও যুক্তরাষ্ট্রের অন্যান্য জায়গায় ছড়িয়ে পড়া ভাইরাসের মধ্যে কেন পার্থক্য রয়েছে সেই বিষয়টি এখনো অজনা।

বিজ্ঞানীরা বলেছেন, ভাইরাসগুলো মানুষের শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে ভে’ঙে দেওয়ার জন্য প্রতিনিয়ত চরিত্র বদল করছে। আর তাতেই মৃৃ’ত্যুর হার বাড়ছে। আক্রা’ন্তও হচ্ছেন হাজার হাজার মানুুষ। সূত্র: ডেইলি মেইল।

করোনা চিকিৎসায়য় প্রথম প্লাজমা থেরাপিতেই সাফল্য দিল্লির!

দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল সম্প্রতি ঘোষণা দেন, করোনায় আক্রা’ন্ত সং’কটজনক রোগীদের ক্ষেত্রে প্লাজমা থেরাপি শুরু হবে। তার ৪ দিনের মাথায় এসেছে প্রথম সাফল্যের খবর। দিল্লির সাকেতের ম্যাক্স হাসাপাতালে করোনা সংক্র’মণ নিয়ে ভর্তি হওয়া এক রোগীকে প্লাজমা থেরাপি করা হয়েছিল। তিনি এখন অনেকটাই সুস্থ।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানায়, প্লাজমা থেরাপিতে পজেটিভ রেজাল্ট মিলেছে। ভেন্টিলেটর সাপোর্ট থেকে সরিয়ে রোগীকে সাধারণ বেডে দেওয়া হয়েছে। গত ৪ এপ্রিল ওই ব্যক্তির পজেটিভ ধরা পড়ে। প্রবল শ্বাসক’ষ্টের কারণে ৮ এপ্রিল রোগীকে ভেন্টিলেটর সাপোর্টে রাখতে হয়।

জ্বর ও শ্বাসক’ষ্ট নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি ওই রোগীর টাইপ-১ রেসপিরেটরি ফেইলিয়রের সঙ্গে নিউমোনিয়া ধরা পড়ে। তার মধ্যেই দেখা যায় রোগী করোনায় আক্রা’ন্ত।

ম্যাক্স হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বিবৃতিতে বলে, তারা প্রথম কোনও করোনা রোগীর উপর পরীক্ষামূলক প্লাজমা থেরাপি দেন। মানবিকতার খাতিরেই কর্তৃপক্ষ এই সিদ্ধান্ত নেয়।

সেই সঙ্গে দিল্লির কোনও হাসাপাতালে এটাই প্রথম প্লাজমা থেরাপি। জানা গেছে, দিল্লির করোনা আক্রা’ন্ত ওই রোগীর বয়স ৪৯ বছর।

Spread the love
  • 147
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    147
    Shares

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।