সারাদেশে ত্রাণ কমিটি গঠনের নির্দেশ দিলেন প্রধানমন্ত্রী

0

সময় এখন ডেস্ক:

প্রশাসনের সঙ্গে মিলে ত্রাণ বিতরণে সমন্বয় ও সহযোগিতার জন্য সারাদেশে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের ত্রাণ কমিটি গঠনের নির্দেশ দিয়েছেন দলের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বিভাগ ও জেলা পর্যায় থেকে ওয়ার্ড পর্যন্ত এই কমিটি বিস্তৃত থাকবে। তারা প্রকৃত দু’র্দশাগ্রস্তদের চিহ্নিত করে তালিকা তৈরি করবে, যাতে যথাযথ মানুষেরা ত্রাণ পান।

প্রধানমন্ত্রী বুধবার (১৫ এপ্রিল) সন্ধ্যায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ধানমন্ডিতে তার রাজনৈতিক কার্যালয়ে অবস্থানরত নেতাকর্মীদের এ নির্দেশনা দেন। এ সময় সেখানে দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মতিয়া চৌধুরী, দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা. রোকেয়া সুলতানা, উপ-দপ্তর সম্পাদক সায়েম খান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ত্রাণ কমিটি ত্রাণ বিতরণের জন্য স্বেচ্ছাসেবক সরবরাহ করবে। আর কমিটি যে তালিকা দেবে, প্রশাসন তা যাচাই করবে। দল-মত নির্বিশেষে যেন ত্রাণ প্রাপ্যদের কেউ বাদ না যায়, সেটা নিশ্চিত করার নির্দেশ দেন তিনি। কমিটির নির্দেশে স্বেচ্ছাসেবকরা বাড়ি বাড়ি গিয়ে ত্রাণ পৌঁছে দেবে।

সরকার প্রধান বলেন, সং’কট দীর্ঘমেয়াদে হলে নিম্নবিত্তদের খাদ্য, শিশু খাদ্যসহ প্রয়োজনীয় সামগ্রী সরবরাহ করবে সরকার। এ লক্ষ্যে সরকারের সব ধরনের প্রস্তুতি রয়েছে।

করোনা ভাইরাসের প্রা’দুর্ভাবে যারা কাজ হারিয়েছেন বা যাদের আয় বন্ধ হয়ে গেছে, অর্থাৎ যাদের সত্যিই ত্রাণ দরকার, এমন মানুষদের সরকার ডাটাবেজ তৈরি করছে বলে এ সময় জানান শেখ হাসিনা।

তিনি আরও বলেন, বর্তমানে ৫০ লাখ লোককে রেশন দেওয়া হচ্ছে, যা আরও ৫০ লাখ বাড়ানো হবে। এদের জন্য রেশন কার্ড করা হবে বলেও জানান তিনি।

প্রধানমন্ত্রী আবারও বিত্তবানদের গরিব, অসহায়, দুস্থ মানুষদের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানান।

ডা. মঈনের পরিবারের দায়িত্ব নিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

করোনায় মা’রা যাওয়া সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের সহকারী অধ্যাপক ডা. মো. মঈন উদ্দিনের পরিবারের দায়িত্ব সরকার নেবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। করোনা পরিস্থিতি নিয়ে নিয়মিত ব্রিফিংয়ে এ কথা জানান তিনি।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আমরা তার পরিবারের পাশে আছি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন এবং চিকিৎসকের পরিবারের পাশে থাকার কথা বলেছেন। ডা. মঈনের সব ধরনের সাহায্য সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। ইতোমধ্যে চিকিৎসক, নার্স এবং স্বাস্থ্যকর্মী যারা করোনার বিরু’দ্ধে যু’দ্ধ চালিয়ে যাচ্ছেন, তাদের সবার জন্য ১০০ কোটি টাকার প্রণোদনা ঘোষণা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

ব্রিফিংয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদ বলেন, সকালে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর নির্দেশে আমি কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে ছুটে যাই। সেখানে কিছুক্ষণ অবস্থান করি এবং ডা. মঈনের স্ত্রীর সঙ্গে কথা বলি। আমি আমাদের সবার পক্ষ থেকে তাকে সমবেদনা জানাই। ডা. মঈন ২ সন্তান রেখে গেছেন। প্রধানমন্ত্রীকে আমরা বিষয়টি জানানোর পর তিনি গভীর সমবেদনা প্রকাশ করেন এবং একই সঙ্গে আশ্বস্ত করেন যে, মরহুমের পরিবারের সব দায় দায়িত্ব সরকার নেবে।

প্রধানমন্ত্রী সরকারের পক্ষ থেকে যে বিমা এবং অন্যান্য সুবিধা ঘোষণা করেছেন, মরহুমের পরিবার যেন দ্রুত সেটা পায়, সেই বিষয়ে নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি এও বলেছেন, বাংলাদেশ সরকার সব চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীর পাশে আছে। তাদের নিরাপত্তার বিষয়টি সরকার সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে দেখবে। এই বিষয়ে আরও সুরক্ষা ব্যবস্থা যা দরকার সরকার তা গ্রহণ করবে।

Spread the love
  • 143
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    143
    Shares

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।