মুফতি আব্দুল্লাহ নিজে করোনায় ম’রে ডাক্তারসহ শত শত মানুষকে বি’পদে ফেললেন!

0

মুক্তমঞ্চ ডেস্ক:

আমার আপনার মত চিকিৎসকরাও মানুষ, তাদেরও পরিবার স্বজন আছে। আছে বাবা-মা, স্ত্রী, পুত্র কন্যা। সুরক্ষা সরঞ্জাম না থাকায়, কিছু রাজনৈতিক খোঁড়া যুক্তি সব মিলিয়েই অনেকেই করোনা ভাইরাস চিকিৎসায় অ’নাগ্রহ দেখানর পরেও এখন সেই সং’কট কেটে গেছে। দেশের এই সং’কটের সময় তাদের আর তাদের সহকারীদের বি’পদের মুখে ফেললে কীভাবে তারা করোনা ভাইরাসের বিরু’দ্ধে ল’ড়াই করবেন?

খবর পাওয়া গেছে যে, সিরাজদিখানের মুফতি আব্দুল্লাহ সাহেব করোনা আক্রা’ন্ত হয়ে মা’রা গেছেন। কিন্তু এই তথ্য গোপন করার কারণে তার নামাজের জানাজায় ১৫০ থেকে ২০০ জন শরিক হয়। নিজে মা’রা গিয়েও ২০০ পরিবারকে বি’পদে রেখে গেলেন তিনি।

প্রথমে তিনি করোনার উপসর্গ নিয়ে আসগর আলী হাসপাতালে ৩ দিন ভর্তি ছিলেন। করোনা পরীক্ষার জন্য স্যাম্পল নিয়েছে তা সম্পূর্ণ গোপন রেখে পায়খানা সমস্যা ও পেট ব্যথা বলে ঢাকা মেডিকেলে সার্জারি ৫নং ওয়ার্ডে ভর্তি ছিলেন গত ৮ এপ্রিল তারিখ পর্যন্ত। সেখান থেকে পেট ও বুকের এক্সরে দেখে সন্দেহ হলে কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে পাঠালে সেখানে মুফতি আব্দুল্লাহ মা’রা যান।

এরপর দাফন কাফনে লোক পাওয়া যাবে না, এই সন্দেহ থেকে তার পরিবার শুধু মিথ্যাই বলেনি, কুর্মিটোলা হাসপাতালে থেকে ডেডবডি নিয়ে রীতিমতো পালিয়ে গিয়েছেন। পরে আইইডিসিআর থেকে জানা যায় রোগী করোনা পজেটিভ।

গতকাল সেই ওয়ার্ডের ডাক্তাদের কয়েকজনের করোনা সন্দেহ করা হচ্ছে। ডাঃ অরুণ পাল, ডাঃ মঞ্জুর হাসান সজলসহ অন্যান্য ডাক্তারসহ প্রায় ৪০ জন স্বাস্থ্যকর্মী এখন রয়েছেন কোয়ারান্টাইনে।

ঢাকা মেডিকেল কলেজের ৫নং সার্জারি ওয়ার্ড এ মুহূর্তে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। এই সং’কটময় মুহূর্তে এতজন চিকিৎসক ও মানুষকে বি’পদের মধ্যে ফেলে মুফতি সাহেব ও তার পরিবারের কী লাভ হলো? তাদের কারনে এখন কত মানুষ এখন চিকিৎসা ব’ঞ্চিত হবে?

মুফতি আব্দুল্লাহ কিন্তু কোন মসজিদের খাদেম বা অ’শিক্ষিত কেউ নন। তার এই অ’পকর্ম পুরা আলেম সমাজের মাথা নিচু করে দিয়েছে।

লেখক: ক্বারী ইকরামুল্লাহ মেহেদী
পরিচিতি: শিক্ষক ও গণমাধ্যম কর্মী
পেকুয়া, কক্সবাজার

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।