গেন্দা ফুল: মূল স্রষ্টা রতন কাহারকে ৫ লাখ রুপি দিলেন বাদশা

0

বিনোদন ডেস্ক:

লোকশিল্পী রতন কাহারের নাম কিছু দিন আগেও ক’জনই বা জানতো! ‘গেন্দা ফুল’ শিরোনামের একটি গানের মিউজিক ভিডিওর সুবাদে এখন ব্যাপক আলোচিত তিনি। জীবনে কখনও এমন লাইমলাইট উপভোগ করা হয়নি ওপার বাংলার এই শিল্পীর।

সত্তর দশকে বেশ কিছু লোকজ আঙ্গিকের গান সৃষ্টি করেছিলেন রতন কাহার। এরমধ্যে অন্যতম ‘বড় লোকের বিটি লো’। এটাই ব্যবহৃত হয়েছে ‘গেন্দা ফুল’ গানে। তবে তার নাম কোথাও উল্লেখ নেই।

এ নিয়ে বিত’র্কের মুখে পড়েন র‌্যাপার বাদশা। তিনিই ‘গেন্দা ফুল’-এর সংগীতায়োজন করেছেন। তবে ‘বড় লোকের বিটি লো’ কার লেখা তা নাকি জানতেন না! তাই এটাকে বাংলা লোকগান হিসেবে ব্যবহার করেছেন ৩৪ বছর বয়সী এই র‌্যাপার।

তবে রতন কাহারকে সাহায্য করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মুখ খোলেন বাদশা। তিনি বলেছিলেন, লকডাউন না থাকলে রতন কাহারের সঙ্গে গিয়ে দেখা করতাম। তাকে যে কোনও উপায়ে সাহায্য করতে পারলে আমার ভালো লাগবে। শুনেছি তিনি আর্থিক ক’ষ্টে আছেন।

কথা দিয়ে কথা রেখেছেন বাদশা। প্রবীণ লোকশিল্পীর কাছে ৫ লাখ রুপি পাঠিয়েছেন তিনি।

বাদশার প্রতিনিধিরা সোমবার (৬ এপ্রিল) রতন কাহারের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে অনলাইনের মাধ্যমে এই অঙ্ক জমা দেন। সম্মানি পেয়ে খুবই খুশি পশ্চিমবঙ্গের বীরভূমের থাকা এই লোকশিল্পী। র‌্যাপারকে ফোনে ধন্যবাদ জানিয়েছেন তিনি। লকডাউন শেষ হলে তিনি বাদশাকে বাড়িতে আসারও আমন্ত্রণ জানান।

‘গেন্দা ফুল’ গানের মিউজিক ভিডিওতে মডেল হয়েছেন বলিউড অভিনেত্রী জ্যাকুলিন ফার্নান্দেজ। এতে ‘বড় লোকের বিটি লো লম্বা লম্বা চুল/ এমন মাথায় গেঁথে দেবো লাল গেন্দা ফুল’ লাইনগুলো গেয়েছেন পায়েল দেব। হিন্দি ও পাঞ্জাবি অংশ গেয়েছেন বাদশা নিজেই।

সনি মিউজিক ইন্ডিয়া ইউটিউব চ্যানেলে গত ২৬ মার্চ মুক্তি পায় ‘গেন্দা ফুল’ গানের মিউজিক ভিডিও। এখন পর্যন্ত প্রায় ১৪ কোটি বার দেখা হয়েছে এটি।

রতন কাহার সংবাদমাধ্যমে জানান, ১৯৭৬ সালে তার লেখা ‘বড় লোকের বিটি লো’ গানটি স্বপ্না চক্রবর্তীর কণ্ঠে ব্যাপক জনপ্রিয়তা পায়। কিন্তু গীতিকবি হিসেবে তার নাম উল্লেখ না করে ‘প্রচলিত গান’ বলা হয়েছিল এটিকে।

Spread the love
  • 224
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    224
    Shares

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।