করোনা পরিস্থিতি: পাকিস্থান সরকার অমুসলিমদের ত্রাণ দিচ্ছে না

0

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

করোনা ভাইরাসের মহামা’রিতে যেখানে বিশ্বব্যাপী মানুষ একে অন্যের সাহায্যে এগিয়ে আসছে সেখানে সংখ্যা-লঘু হিন্দু ও খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের মানুষদের খাদ্য ও দৈনন্দিন জিনিসপত্র সরবরাহ করছে না পাকিস্থানের স্থানীয় কর্তৃপক্ষ।

হিন্দু ও খ্রিস্টানদের জন্য নয়, সরকার থেকে শুধু মুসলিমদের জন্য ভাতা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে বলে সংবাদ প্রকাশ করেছে টাইমস অব ইন্ডিয়া।

করাচির রেহরি গোথে চলমান লকডাউনের কারণে খাদ্য ও অন্যান্য দৈনন্দিন জিনিসপত্র রিলিফ দেওয়া হয়। সেখানে উপস্থিত হওয়া সংখ্যা-লঘু হিন্দু ও খ্রিস্টানদের বলা হয় তারা এই রিলিফ পাবে না, কারণ এই রিলিফ শুধু মুসলিমদের জন্য বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

সেখানে রেশন নিতে যাওয়া এক হিন্দু ব্যক্তি টাইমস অব ইন্ডিয়াকে বলেন, এই লকডাউনে সরকার আমাদের কোনো সাহায্য করছে না। আমাদেরকে কোনো ধরনের রেশন দেওয়া হচ্ছে না। কারণ আমরা সংখ্যা-লঘু হিন্দু।

আরেক হিন্দু ব্যক্তি বলেন, আমাদের প্রতিবেশীরা রেশন পাচ্ছে। রেশন কেন্দ্রে গেলে আমাদের জানানো হয় আপনাদের জন্য আলাদা ট্রাকে করে রেশন দেওয়া হবে কিন্তু সেই ট্রাক আর আমাদের কাছে আসেনি।

করাচি থেকে এক খ্রিস্টান বলেন, এখানে লকডাউনের দ্বিতীয় সপ্তাহ চলছে। আমাদের ঘরে কোনো খাবার নেই এমনকি আমাদের কাছে কোনো টাকাও নেই। এখন পর্যন্ত সরকারের পক্ষ থেকে আমাদেরকে কোনো ধরনের সাহায্য করা হচ্ছে না।

লিয়ারি, সাচাল গোথসহ করাচির বিভিন্ন অংশ ও সিন্ধু প্রদেশে সরকার প্রদত্ত খাদ্য ও অন্যান্য সাহায্য সংখ্যা-লঘুদের দেওয়া হচ্ছে না। এই অবস্থায় সিন্ধু প্রদেশের রাজনীতিবিদ আমজাদ আইয়ুব মির্জা ভারত সরকারের কাছে সাহায্যের আবেদন জানিয়েছেন। একই সঙ্গে মানবতার এই দুর্দিনে পাকিস্থানের সংখ্যা-লঘু সম্প্রদায়কে সাহায্যের জন্য জাতিসংঘের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

পাকিস্থানের মোট জনসংখ্যা ৪ শতাংশ হিন্দু। বিগত বছরগুলোতে পাকিস্থানে নানা নির্যা’তন আর বঞ্চ’নার শি’কার হয়েছে এই হিন্দু সম্প্রদায়। পাকিস্থানে ইমরান খানের সরকার ক্ষমতায় আসার পর ৪ শতাধিক মন্দির পুনরায় নির্মাণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় যা বিগত বছরগুলোতে ধ্বং’স করা হয়েছিল।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।