আম গাছ থেকে ঝরছে মধু, করোনামুক্তির আশায় জনতার কাণ্ড!

0

সময় এখন ডেস্ক:

করোনা ভাইরাস নিয়ে যখন বিশ্বজুড়ে চলছে আত’ঙ্ক, সে সময় বাংলাদেশ মেতে আছে নানা রকম গুজব নিয়ে। বিশেষ করে বরিশাল ও ভোলা অঞ্চলে যেন নিত্য নতুন গুজব মেলছে ডালপালা। গভীর রাতে থানকুনি পাতার সন্ধানে বিল চষে ফেলছেন যেমন কেউ, আবার আম গাছ থেকে মধু ঝরছে শুনে করোনামুক্তির আশায় গাছের ওপর হুমড়ি খেয়ে পড়ছেন অন্যরা।

আজ সকালে হঠাৎ আম গাছ থেকে মধু ঝরছে- এমন রটনা মুখে মুখে ছড়িয়ে পড়ায় সবার দৃষ্টি যাচ্ছে গাছের দিকে। কিছু কিছু গাছে শিশির ফোঁটা সদৃশ পানি দেখে সে গুজবে আরো হালে হাওয়া লেগেছে।

নগরের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, প্রায় আম গাছেই মুকুলে ভরপুর। দেশী জাতের আম গাছগুলো মুকুলের ভারে শাখাগুলো নুয়ে পড়েছে। রাস্তার পাশে কিংবা পাড়া মহল্লায় দেশী আমের গাছগুলো মুকুলে মুকুলে ভরপুর। তবে মৌচাক ছাড়া পাতায় শিশিরের মত মিষ্টি পানি কোথা থেকে আসছে সে কৌতুহলের উত্তর পাচ্ছেন না কোথাও।

সরেজমিনে ২৯ নং ওয়ার্ড খালপাড় সড়ক এলাকা, পলাশপুর, রূপাতলী, কাউনিয়া বিসিক, বটতলা, চৌমাথাসহ বিভিন্ন এলাকায় এ দৃশ্য চোখে পড়েছে। উৎসাহীরা ছবি ও ভিডিও ফেসবুকে শেয়ার করছেন।

তারা জানান, এমন দৃশ্য আগে কখনো দেখেননি। এক ব্যাক্তি পাতা থেকে সে তরল মুখে নিয়ে এর স্বাদ মধুর মতো মিষ্টি বলে জানান। অনেককে করোনামুক্তি পাওয়ার আশায় গাছের নিচে পলিথিন বিছিয়ে সে তরল সংগ্রহ করতে দেখা গেছে। করোনা ভাইরাসের প্রা’দুর্ভাবে একে সৃষ্টিকর্তার রহমত বলেও প্রচার করছেন অতি উৎসাহীরা। তবে পুরো গাছে এমন পানি দেখা যায়নি, একই গাছের অল্প কয়েকটি পাতায় এমন দৃশ্য চোখে পড়েছে।

কৃষিবিদরা জানান, শুঁটি মোল্ড বা মহালাগা রোগের কারনে আম পাতা ও ফলের ওপর কালো আবরণ পড়ে। আম গাছে মিলিবাগ অথবা হপার পোকা ধরলে এরা হানিডিউ বা মধু নিঃসরণ করে, এতে শুঁটি মোল্ড সৃষ্টিকারী ছত্রাক জন্মায়। পরে পাতা, মুকুল ও ফলে তা বিস্তার ঘটায়। এ রোগ দেখা দিলে গাছে বেনডাজিম ৫০ ডব্লিও প্রতি ১০ লিটার পানিতে ১০ গ্রাম মিশিয়ে স্প্রে করতে হবে। গাছে হপার পোকা দেখা দিলে সাথে সাথে ব্যবস্থা নিতে হবে।

Spread the love
  • 677
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    677
    Shares

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।