বাংলাদেশ নিয়ে আপ’ত্তিকর মন্তব্য করলেন বিজেপির মন্ত্রী রেড্ডি

0

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

বাংলাদেশ নিয়ে আপ’ত্তিকর মন্তব্য করেছেন ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী জি কিষাণ রেড্ডি।

তিনি বলেছেন, নাগরিকত্বের প্রতিশ্রুতি দেয়া হলে অর্ধেক বাংলাদেশ খালি হয়ে যাবে। বাংলাদেশের অর্ধেক মানুষই ভারত চলে আসবে।

সম্প্রতি হায়দ্রাবাদের সন্ত রবিদাস জয়ন্তী পালন অনুষ্ঠানে দেশটির বিত’র্কিত নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন (সিএএ) নিয়ে বক্তব্য দেয়ার সময় বাংলাদেশ নিয়ে এমন আপ’ত্তিকর মন্তব্য করেন রেড্ডি। খবর এবিপি আনন্দের।

ক’ট্টর হিন্দুত্ববাদী এই বিজেপি নেতা বলেন, ভারতের নাগরিকত্ব পেতে অর্ধেক বাংলাদেশিই ভারতে চলে আসবে। তখন ওদের দায়িত্ব কে নেবেন, রাহুল গান্ধী নাকি কেসিআর?

সিএএ- বিরোধী তেলঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাওকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়ে এদিন রেড্ডি বলেন, তেলঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী প্রমাণ করুন কী করে এই আইন ১৩০ কোটি ভারতবাসীর স্বার্থবিরো’ধী হয়? সিএএ-তে ১৩০ কোটি ভারতবাসীর একজনের বিরু’দ্ধেও যদি একটি শব্দ থাকে, তবে ভারত সরকার তা পর্যালোচনা করতে প্রস্তুত। তবে পাকিস্থানি বা বাংলাদেশি মুসলিমদের জন্য তা প্রযোজ্য নয়।

কংগ্রেস ও কেসিআর দলকে আক্র’মণ করে রেড্ডি বলেন, তারা অনু-প্রবেশকারীদের জন্য নাগরিকত্ব চান। তারা বাংলাদেশ, পাকিস্থান ও আফগানিস্তানের মুসলমানদের এ দেশের নাগরিকত্ব দেয়ার জন্য উঠে পড়ে লেগেছেন। কিন্তু আমরা বলছি, উদ্বাস্তু ও অনু-প্রবেশকারীদের কখনই এক সারিতে বসানো যায় না।

রেড্ডি দাবি করেন, ভোটার আইডি কার্ড, আধার বা রেশন কার্ডের মতো নথিপত্র ও কোনো সুযোগসুবিধা ছাড়াই কিছু শরণার্থী গত ৪০ বছর ধরে ভারতে বসবাস করছেন।

সৌদিতে সব মসজিদে জুমাসহ ৫ ওয়াক্ত নামাজ বন্ধ হলো

ইসলামের পবিত্রস্থানগুলো বাদে সৌদি আরবের সব মসজিদে নামাজ পড়া বন্ধ ঘোষণ করা হয়েছে। প্রাণঘা’তী করোনা ভাইরাস ঠেকাতে জোর চেষ্টার অংশ হিসেবে মঙ্গলবার এমন উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

এএফপি ও আল-আরাবিয়াহর খবরে বলা হয়, মসজিদে শুক্রবারের জুমাসহ দিনের ৫ ওয়াক্ত নামাজ আপাতত বন্ধ থাকবে। তবে আজান নিয়মিতই দেয়া হবে বলে জানিয়েছে।

মুসল্লিদের বাড়িতে থেকেই নামাজ পড়তে অনুরোধ করা হয়েছে। মসজিদুল হারাম ও মসজিদে নববীর ক্ষেত্রে এ সিদ্ধান্ত কার্যকর করা হবে না।

মক্কাভিত্তিক মুসলিম ওয়ার্ল্ড লিগের মহাসচিব মোহাম্মদ আল-ইসা বলেন, ইসলামি শরিয়া প্রণিত বিধান অনুসারে এটাই এখন ধর্মীয় দায়িত্ব। এটাই সাধারণ নিয়ম হওয়া উচিত।

আল-ইসা বলেন, যার মুখ থেকে গন্ধ আসছে, ইসলামি শরিয়ায় তাকে জামাতে যেতে না বলা হয়েছে। সেখানে কেউ যদি প্রাণঘা’তী ভাইরাসে আক্রা’ন্ত হন, যাতে অন্যদেরও আক্রা’ন্ত হওয়ার শ’ঙ্কা রয়েছে, সেক্ষেত্রে এর কোনো ব্যতিক্রম কিছু না।

সৌদি আরবের সর্বোচ্চ ধর্মীয় কর্তৃপক্ষ ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বৈঠকের পর নতুন এই সিদ্ধান্ত এসেছে। সৌদিতে এখন পর্যন্ত ১৭১ জন করোনা ভাইরাসে আক্রা’ন্ত হয়েছেন। কিন্তু কারও মৃ’ত্যু ঘটেনি।

Spread the love
  • 73
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    73
    Shares

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।