প্রেমের টানে বাংলাদেশে আসা ভারতীয় তরুণীকে ফেরত পাঠালো বিজিবি

0

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি:

প্রেমের টানে বাংলাদেশি তরুণের হাত ধরে বাংলাদেশে চলে আসেন ভারতীয় তরুণী শিউলি খাতুন (১৮)। তবে অ’বৈধপথে বাংলাদেশে প্রবেশ করলেও প্রেমিকের সঙ্গে থাকতে পারেননি তিনি। অবশেষে তাকে ফেরত যেতে হলো।

শিউলি খাতুন ভারতের কোচবিহার জেলার দিনহাটা থানার পূর্ব থরাইখানা গ্রামের সুবেদ শেখের মেয়ে। অভিভাবকদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে বিষয়টি বর্ডার গার্ড বাংলাদেশকে (বিজিবি) জানায় ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ)। এরপরই বিষয়টি সমাধানে তৎপর হয় বিজিবি।

এ নিয়ে সোমবার (২ মার্চ) বিকেল ৪টায় লালমনিরহাট ১৫ বিজিবির কাশিপুর ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার জহিরুল ইসলাম ও ভারতীয় ৩৮ বিএসএফ কুর্শাহাট ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার এসআই যতিন্দ্র শিংয়ের মধ্যে পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় দুই দেশের জনপ্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

২০ মিনিটের পতাকা বৈঠক শেষে ভারতীয় তরুণীকে বিএসএফের কাছে হস্তান্তর করে বিজিবি। বিজিবির ১৫ ব্যাটালিয়নের পরিচালক লে. কর্নেল তৌহিদ-উল-আলম এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

বিজিবি জানায়, প্রেমের সম্পর্কের সূত্র ধরে গত ২৯ ফেব্রুয়ারি ভারতীয় নাগরিক শিউলি খাতুনকে বাংলাদেশে নিয়ে আসেন ফুলবাড়ী উপজেলার আজোয়াটারি মিস্ত্রিটারি গ্রামের আবুল মিয়ার ছেলে রুবেল শেখ (২২)। ভারতীয় ওই তরুণীর পরিবারের সদস্যরা বিষয়টি কুর্শাহাট ক্যাম্পের বিএসএফকে জানালে বিএসএফ তা কাশিপুর ক্যাম্পের বিজিবি সদস্যদেরকে জানিয়ে ওই তরুণীকে ফেরত পাঠাতে অনুরোধ জানায়।

পরে স্থানীয় জনপ্রতিনিধির সহায়তায় সোমবার দুপুরে ফুলবাড়ীর গংগাহাটের অজোয়াটারি গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য জামাল উদ্দিনের বাড়ি থেকে শিউলিকে উদ্ধার করে বিজিবি। উদ্ধারের পর সোমবার বিকেলে বিজিবি ও বিএসএফ কোম্পানি কমান্ডার পর্যায়ে বৈঠকের মাধ্যমে ওই তরুণীকে বিএসএফের কাছে হস্তান্তর করে বিজিবি।

কাশিপুর ইউপি চেয়ারম্যান গোলজার হোসেন মণ্ডল বলেন, মেয়েটির বাড়ি ভারতে হলেও প্রায় সময় বাংলাদেশে নানা ও খালার বাড়িতে আসত। ফলে তাদের মাঝে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

লালমনিরহাট ১৫ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল তৌহিদ-উল-আলম বলেন, ভারতীয় বিএসফের পত্রের প্রেক্ষিতে ওই তরুণীকে উদ্ধারের পর হস্তান্তর করে বিজিবি।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।