চলছে ভালোবাসার সপ্তাহ, জেনে নিন কোনদিন কী পালন করা হয়

0

লাইফ স্টাইল ডেস্ক:

ভালোবাসতে বিশেষ কোনো দিন যদিও প্রয়োজন হয় না, তবু একটি বিশেষ দিন থাকলে মন্দ কী! সেই দিনটি ফেব্রুয়ারির ১৪ তারিখ পালিত হয় বিশ্বজুড়ে। আর ভালোবাসার এই উদযাপন চলে ৭ দিন ধরে। নানা মোড়কে জড়ানো প্রেমের রঙিন প্রকাশের পর সবশেষে আসে ভালোবাসার দিন।

গতকালই ছিল রোজ ডে। অর্থাৎ ভালোবাসার সপ্তাহের প্রথম দিনটি শুরু হয় গোলাপ দেয়ার মাধ্যমে। লাল গোলাপ দিয়ে পরস্পরের ভালোবাসাটা আরেকটু গভীর করে নেয়ার দিন এটি। চলুন জেনে নেই বাকি দিনগুলোর খবরও-

প্রপোজ ডে (৮ ফেব্রুয়ারি)

রোজ ডে-র পরই প্রপোজ ডে। এদিন গোলাপের তোড়া তো থাকেই, আঙটি দিয়েও প্রেম নিবেদন করেন অনেকে। এই দিনটি বিশেষ করে তুলতে একসঙ্গে ক্যান্ডেল লাইট ডিনারও সারেন অনেকে। এদিন নিজের প্রিয় মানুষটিকে মন খুলে মনের কথা জানান। যদি সে আপনার সত্যি ভালোবাসা হয়, তবে হ্যাঁ বলবেই!

চকোলেট ডে (৯ ফেব্রুয়ারি)

ভাবছেন, চকোলেট দিতে আবার আলাদা দিন লাগে নাকি! কিন্তু ওই যে, ভালোবাসায় রঙিন করার সপ্তাহ, তার একটি অংশ হলো চকোলেট ডে। প্রিয় মানুষটির মন গলাতে এর জুড়ি মেলা ভার। তার পছন্দের চকোলোট কিনে দিন আর ভালোবাসা জানান। তার মন তো ভালো হবেই, আপনিও আরও প্রিয় হয়ে উঠবেন।

টেডি ডে (১০ ফেব্রুয়ারি)

গোলাপ, চকোলেটের পাশাপাশি নরম তুলতুলে টেডি না থাকলে যেন মানায় না! ছোট বড় যাই হোক না কেন, টেডি বিয়ার অধিকাংশ মেয়েরই পছন্দের জিনিস। তাই এই দিনটিতে প্রিয়তমাকে টেডি উপহার দিন।

প্রমিজ ডে (১১ ফেব্রুয়ারি)

পরস্পরের প্রতি প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হলে সেই ভালোবাসা টিকে থাকার সম্ভাবনা বেশি। আর এই দিনটি হলো সেই প্রতিশ্রুতি করার দিন। প্রতিশ্রুতি উপহারের থেকেও দামি জিনিস। হৃদয়ের আঙিনায় এই প্রমিজ রয়েছে অনেকটা জায়গা জুড়ে।

হাগ ডে (১২ ফেব্রুয়ারি)

একে অপরকে জড়িয়ে ধরে কিছুক্ষণ থাকলেই দেখবেন, অদ্ভুত ভালোলাগায় মনটা ভরে যাচ্ছে। আমাদের মনের কথাগুলো সব সময় প্রকাশ করতে পারি না। তাই একে অপরকে হাগ করে অনেক কিছুই বলা হয়ে যায়।

কিস ডে (১৩ ফেব্রুয়ারি)

এই দিনটি নিজের যত্নবান ও দায়িত্ববান দিকটি প্রকাশের দিন। চুমুর প্রকাশেই বোঝা যায় মানুষের মন। ব্যক্তিত্বের পরিচয় ঘটে এই দিনটিতে।

ভ্যালেন্টাইন ডে (১৪ ফেব্রুয়ারি)

অবশেষে সেই স্পেশাল দিনের অপেক্ষা শেষ। ভালোবাসায় রঙিন হয়ে উঠুক এমন দিন।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।