নদী থেকে পথ ভুলে ডোবায়, ধরা পড়লো ৮২ কেজির বাঘাইড়!

0

জামালপুর প্রতিনিধি:

যমুনা নদী থেকে দিক হারিয়ে পার্শ্ববর্তী ডোবায় উঠে এলো ৮২ কেজি ওজনের বিশাল আকৃতির একটি বাঘাইড় মাছ। ঘটনা জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার সানন্দবাড়ির জিগাবাড়ি বাজার সংলগ্ন যমুনা নদী এলাকার।

মঙ্গলবার (১০ সেপ্টেম্বর) সকালে ডোবার হাঁটুপানি থেকে জাল দিয়ে ধরা মাছটির ওজন ৮২ কেজি। মাছটি ধরার পর কাঁধে করে ডাঙায় তোলে দু’জন।

স্থানীয়রা জানান, যমুনা নদী থেকে মাছ‌টি দিক হা‌রি‌য়ে হাঁটুপানি বি‌শিষ্ট এক ডোবায় ঢুকে পড়ে। বাহাদুর না‌মে একজন স্থানীয় ব্য‌ক্তির নজরে এলে তিনি বয়া জাল দিয়ে ৮২ কেজি ওজনের মাছটি ধরনে।

আশপাশের এলাকার অনেক মানুষ এই বিশাল মাছটি দেখতে ভিড় জমান। পরে মাছ‌টি সানন্দবাড়িরর মৌলভীরচর মোড়ে নেন বিক্রির জন্য। ৬০ হাজার টাকা দাম চাইলে এলাকাবাসী দরদাম করে মাছ‌টি ৪৫ হাজার টাকায় কিনে সবাই ভাগ ক‌রে নেন।

পঞ্চগড়েও বিশালাকৃতির বাঘাইড় মাছ ধরা পড়লো

পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া উপজেলার কাশিমগঞ্জ এলাকায় মহানন্দা নদী থেকে ৪৫ কেজি ওজনের একটি বাঘাইড় মাছ ধরা পড়েছে। গত মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার দক্ষিণ কাশিমগঞ্জ গ্রামের তিন পাথর শ্রমিক ঘড়ি জাল ব্যবহার করে মাছটি ধরেন।

জানা গেছে, ওই গ্রামের আজিবুদ্দিনের ছেলে মো. সাবুল, আবুল হোসেনের ছেলে খেতাব আলী ও কসিরুল ইসলামের ছেলে আব্দুল মতিন পেশায় পাথর শ্রমিক। নদীতে পানি বেড়ে গেলে অথবা পানি কমে গেলে তারা নদী থেকে পাথর উত্তোলন বন্ধ করে মাছ শিকার করেন।

সীমান্তবর্তী মহানন্দা নদীতে পানি কমে যাওয়ায় তারা বৃহস্পতিবার সকালে মাছ ধরতে যান। দুপুরে তাদের জালে বড় মাছ লেগেছে বুঝতে পেরে সাবুল সহকর্মীদের জাল ধরতে দিয়ে পানির নিচে নামে। পরে ওই দুই সহকর্মীদের নিয়ে ৪৫ কেজি ওজনের বাঘাইড় মাছটি উদ্ধার করে বাড়ি নিয়ে আসে।

মো. সাবুল জানান, আমি এর আগেও বড় বড় মাছ ধরেছি। বড় মাছ জালে লাগলে আমি টের পাই। আজকেও বড় মাছ লাগার বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে পানির নিচে মাছটি ধরি। বড় মাছ ধরার আনন্দটাই আলাদা। গোটা এলাকায় খবর ছড়িয়ে পড়লে সবাই দেখতে আসে। বিষয়টি আমার খুব ভালো লাগে।

সাবুল আরও জানায়, মাছ ধরার পর পরই গ্রামের সবাই কেজি হিসেবে মাছটা কিনে নেন। প্রতি কেজি মাছ ১২শ’ টাকা দরে বিক্রি হয়।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।