ভারতে রাষ্ট্রীয় উদ্যোগ মেধাবী শিশু জন্মদানে গোমূত্রে তৈরী ওষুধ!

0

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

মেধাবী ও স্বাস্থ্যবান শিশু জন্ম দিতে গরুর গোবর-মূত্র দিয়ে ওষুধ তৈরি করছে ভারত। ভারতের সরকারি প্রতিষ্ঠান ‘রাষ্ট্রীয় কামধেনু আয়োগ’ সন্তানসম্ভবা মায়েদের জন্য গোমূত্রের বিশেষ ওষুধ উৎপাদনে কাজ শুরু করেছে।

আয়ুশ মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে মিলে রাষ্ট্রীয় কামধেনু আয়োগ এই ওষুধ উৎপাদন প্রক্রিয়া শুরু করেছে। প্রতিষ্ঠানটির কর্মকর্তাদের দাবি, পঞ্চগব্য নামে এই ওষুধ সেবন করলে সন্তানসম্ভবা মায়েরা ভীষণ মেধাবী, স্মার্ট ও স্বাস্থ্যবান শিশুর জন্ম দেবেন।

রাষ্ট্রীয় কামধেনু আয়োগের চেয়ারম্যান বল্লবভাই কাঠিরিয়া ভারতীয় গণমাধ্যমকে বলেন, গরুর গোবর, মূত্র, দুধ, ঘি ও দই মিশিয়ে প্রসূতিদের জন্য এই বিশেষ ওষুধ তৈরি হবে। শাস্ত্র ও আয়ুর্বেদেও এই পঞ্চগব্যের কথা বলা আছে।

কামধেনু আয়োগের চেয়ারম্যান আরও বলেন, শাস্ত্র ও আয়ুর্বেদে বলা আছে, যদি কোনো প্রসূতিকে এই ওষুধ খাওয়ানো হয়, তবে তিনি স্মার্ট, ভীষণ মেধাবী ও স্বাস্থ্যবান সন্তানের জন্ম দেবেন।

আয়ুশ মন্ত্রণালয় ও নবগঠিত পশুপালন মন্ত্রণালয় এই ওষুধ তৈরির ক্ষেত্রে ক্ষুদ্র, ছোট ও মাঝারি শিল্প মন্ত্রণালয়ের সহায়তা চাইবে বলে জানান বল্লবভাই কাঠিরিয়া।

তিনি আরও জানান, বিস্তৃত আকারে পঞ্চগব্য উৎপাদনের পর কামধেনু আয়োগ গ্রামে গ্রামে বৈদ্য নিয়োগ দেবে, যাতে তারা প্রসূতি নারীদের এই ওষুধ সেবনের পরামর্শ দেন।

গরু সুরক্ষা, বিকাশ এবং সংরক্ষণের জন্য গত ফেব্রুয়ারিতে পশুপালন মন্ত্রণালয়ের আওতায় কামধেনু আয়োগ গড়ে তোলে নরেন্দ্র মোদীর সরকার। এর চেয়ারম্যান বল্লবভাই বিজেপির গুজরাটের একটি আসনের এমপি ছিলেন।

গোমূত্রে নয়, প্রজ্ঞার স্তন ক্যান্সার সেরেছে সার্জারিতে: চিকিৎসক

বিজেপি নেত্রী সাধ্বী প্রজ্ঞা সিং ঠাকুর সম্প্রতি দাবি করেন, গরুর মূত্র খেয়ে তার স্তন ক্যান্সার ভালো হয়েছে। কিন্তু চিকিৎসক ডা. এসএস রাজপুত তার এ দাবি নাকচ করে দিয়ে জানিয়েছেন, প্রজ্ঞার শরীরে একাধিক অস্ত্রোপচার করা হয়েছে।

ডা. রাজপুত লখনৌয়ের রাম মানোহার লোহিয়া ইনস্টিটিউট অফ মেডিকেল সাইন্সেসের একজন কার্ডিওভাস্কুলার সার্জন।

ভারতের দ্য হিন্দু পত্রিকাকে ডা. রাজপুত বলেন, ২০০৮ সালে মুম্বাইয়ের জেজে হাসপাতালে প্রথম আমি প্রজ্ঞার অস্ত্রোপচার করি। ওই সময় তার ডান বুকে একটা টিউমার ছিল। এরপর টিউমারটি আবার দেখা দিলে ২০১২ সালেও আমিই আবার প্রজ্ঞার অস্ত্রোপচার করি।

তিনি বলেন, প্রজ্ঞার স্টেজ-১ পর্যায়ের মারাত্মক ক্যান্সার হয়েছিল এবং সার্জারির সময় টিউমারের সঙ্গে সঙ্গে তার ডান স্তনের এক-তৃতীয়াংশ ফেলে দিতে হয়েছিল। ২০১৭ সালে প্রজ্ঞার জামিন হলে রাম মানোহার লোহিয়া ইনস্টিটিউট অফ মেডিকেল সাইন্সেসে সার্জারির মাধ্যমে তার দুটি স্তনই কেটে ফেলা হয়। গোমূত্র খাওয়ায় ক্যান্সার সেরে গিয়েছিল সাধ্বী প্রজ্ঞা যে দাবি করেছিলেন, চিকিৎসকের বক্তব্য তার সম্পূর্ণ বিপরীত।

ইন্ডিয়া টাইমস বলছে, প্রজ্ঞার এই হাস্যকর দাবির পর ব্যাপক সমালোচনার ঝড় বইছে। বিশেষ করে চিকিৎসক গোষ্ঠী অভিযোগ করছেন, প্রজ্ঞা হাতুড়ে চিকিৎসাকে উৎসাহিত করছেন।

Spread the love
  • 75
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    75
    Shares

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।