ভোলায় সুপারি চুরির অপবাদে কিশোরের গলায় শিকল!

0

ভোলা প্রতিনিধি:

সুপারি চুরির অপবাদে গলায় শিকল বেঁধে তালা দিয়ে আলাউদ্দিন (১৪) নামে এক কিশোরকে নি’র্যাতনের ঘটনা ঘটেছে। বুধবার বিকেলে ভোলা সদর উপজেলার পশ্চিম ইলিশা ইউনিয়নে ১ নম্বর ওয়ার্ড চর আনন্দ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে রাত ১১টার দিকে ঘটনাস্থল থেকে ওই কিশোরকে উদ্ধার করে পুলিশ।

স্থানীয়রা জানায়, চর আনন্দ গ্রামের মোসলেহ উদ্দিনের বাগান থেকে ২ ছড়া সুপারি চুরির অপবাদে আলাউদ্দিনকে আটক করা হয়। এরপর মোসলেহ উদ্দিনের ছেলে ও স্থানীয় কয়েকজন মিলে একটি নির্মাণাধীন ভবনের পিলারের সঙ্গে গলায় শিকল পরিয়ে করে নি’র্যাতন চালায় তার ওপর। আলাউদ্দিনের চিৎকার শুনতে পেয়ে বিষয়টি পুলিশকে জানায় এলাকাবাসী।

খবর পেয়ে রাত ১১টার দিকে অভিযান চালিয়ে ওই কিশোরকে উদ্ধার করে পুলিশ। এ সময় পুলিশ আসতে দেখে নি’র্যাতনকারীরা পালিয়ে যায়।

ইলিশা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এসআই রতন কুমার শীল বলেন, চর আনন্দ গ্রামের আব্দুল আলী কেরানি ২ ছড়া সুপারি চুরির অপবাদ দিয়ে কিশোরকে বেঁধে নি’র্যাতনের খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থল থেকে আলাউদ্দিনকে উদ্ধার করি। এ সময় নি’র্যাতনকারীদের না পেয়ে ওই বাড়ির গৃহকর্ত্রীকে জিজ্ঞা’সাবাদের জন্য পুলিশ ফাঁড়িতে নিয়ে আসা হয়।

ভোলার পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়সার বলেন, এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। মামলা হলে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ঢাকায় ভারতীয় জাল রুপির কারবারি পাকিস্থানি নাগরিকের কারাদ’ণ্ড

ভারতীয় ৮০ লাখ জাল রুপিসহ পাকিস্থানের করাচির নাগরিক মোহাম্মদ ইমরানের ৬ বছরের কারাদ’ণ্ডের আদেশ দিয়েছেন ঢাকা বিশেষ ট্রাইব্যুনাল। বৃহস্পতিবার (৫ সেপ্টেম্বর) ঢাকার ৪ নম্বর বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. রবিউল আলম এ রায় দেন।

রায় ঘোষণা সময় আসামি পাকিস্থানি নাগরিক মোহাম্মদ ইমরানকে কারাগার থেকে আদালতে হাজির করা হয়। রায়ের সাজা পরোয়ানা দেয়ার পর তাকে আবারও কারাগারে পাঠানো হয়।

মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, ২০১৫ সালের ১৫ জানুয়ারি কাতার এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে (কিউআর ৬৩২) আসামি ইমরান দোহা থেকে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আসেন। গ্রিন চ্যানেল অতিক্রম করার সময় কাস্টমস কর্মকর্তারা তার গতিরোধ করেন।

পরে আসামির লাগেজ স্ক্যানিং করে ৮০ লাখ ভারতীয় রুপি (প্রায় ১ কোটি ২ লাখ ৪০ হাজার টাকা) জব্দ করা হয়।

ঘটনার পরদিন সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা মো. মোজাম্মেল হক বাদী হয়ে ঢাকার বিমানবন্দর থানায় একটি মামলা করেন। ২০১৬ সালের ৪ ডিসেম্বর বিমানবন্দর থানার উপপরিদর্শক নজরুল ইসলাম তার বিরু’দ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন।

চার্জশিটের আট সাক্ষীর মধ্যে বিভিন্ন সময়ে ৪ জন সাক্ষ্য দিয়েছেন।

Spread the love
  • 129
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    129
    Shares

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।