কলহের জেরে ব্লেড দিয়ে স্বামীর লিঙ্গ কেটে দিলো স্ত্রী

0

নাটোর প্রতিনিধি:

সংসারে দাম্পত্য কলহকে কেন্দ্র করে রাগ প্রশমন করতে না পেরে স্বামীর লিঙ্গ কেটে দিয়েছেন স্ত্রী। আর এমন নৃশং’স কাণ্ডে অভিযুক্ত স্ত্রীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে অভিযুক্ত স্ত্রীকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

গতকাল বুধবার ২৮ আগস্ট গভীর রাতে নাটোর জেলার সিংড়া উপজেলার রামানন্দ খাজুরিয়া ইউনিয়নের তেঘর গ্রামে এই চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটে। লিঙ্গ হারানো আহত স্বামী তেঘর গ্রামের বাসিন্দা। আশ’ঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হওয়ায় তাকে রক্ত দিতে হয়েছে বলে জানা যায়।

এলাকাবাসী বলছে, সিংড়া উপজেলার বেগুনবাড়ি গ্রামের এক নারীর সঙ্গে ঢাকায় পোশাক কারখানায় কাজ করতেন তেঘর গ্রামের এক যুবক। একই কারখানায় কাজ করার সুবাদে তাদের মধ্যে এক পর্যায়ে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

গত ৮ মাস আগে গোপনে বিয়ে করেন তারা। কোরবানির ঈদের ছুটিতে বাড়ি গিয়ে বিয়ের কথা অস্বীকার করেন ওই যুবক। একই সঙ্গে স্ত্রীকে ঘরে তুলতে গড়িমসি করেন তিনি। এ অবস্থায় গ্রাম্য সালিশদারদের বিষয়টি জানান ওই নারী। পরে গ্রাম্য সালিশে ওই নারীকে ঘরে তুলে নিতে রায় দেন স্থানীয় মাতব্বররা।

সালিশের রায় অনুযায়ী ওই নারীকে ঘরে তোলেন ওই যুবক। পরে একসঙ্গে বসবাস শুরু করেন তারা। এরই মধ্যে আবারও স্ত্রীকে অস্বীকার করেন ওই স্বামী। বিষয়টি নিয়ে তাদের মধ্যে ঝগড়া শুরু হয়।

এরই মধ্যে রাগ করে বুধবার রাতে স্বামী ঘুমিয়ে পড়লে ধারালো ব্লেড দিয়ে লিঙ্গ কেটে দেন স্ত্রী। এ সময় চিৎকার শুরু করেন স্বামী। বাড়ির লোকজন আশঙ্কাজনক অবস্থায় স্বামীকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন।

সিংড়া থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) পলাশ বলেন, স্বামীর লিঙ্গ কর্তনের ঘটনায় জড়িত স্ত্রীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার ১৬৪ ধারায় জবানব’ন্দির জন্য তাকে আদালতে পাঠানো হয়। দুপুরে আদালতের মাধ্যমে স্ত্রীকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

Spread the love
  • 38
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    38
    Shares

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।