প্রধানমন্ত্রীর সাথে দেখা করে পরামর্শ নিলেন মাশরাফি

0

সময় এখন ডেস্ক:

হঠাৎ করেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করেছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের অধিনায়ক ও নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য মাশরাফি বিন মর্তুজা।

গতকাল বুধবার প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ে যান মাশরাফি। এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রীর সহকারী প্রেস সচিব ইমরুল কায়েস বলেন, নড়াইল-২ আসনের উন্নয়ন পরিকল্পনা নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করেছেন সংসদ সদস্য মাশরাফি।

তিনি আরও জানান, সংসদ সদস্য মাশরাফি বিন মর্তুজা নড়াইলের বিভিন্ন উন্নয়ন পরিকল্পনা নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে এসেছিলেন। পরিকল্পনাগুলো বাস্তবায়নের জন্য তিনি প্রধানমন্ত্রীর সাহায্য কামনা করেছেন।

জানা গেছে, নিজ নির্বাচনী এলাকার উন্নয়ন ও বিভিন্ন বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছ থেকে বিভিন্ন সময়ে পরামর্শ নিতে আসেন মাশরাফি বিন মর্তুজা।

পরিবারসহ গৃহকর্মীর বাড়িতে মাশরাফি

শেরপুরে নালিতাবাড়ীতে ঘুরে গেলেন মাশরাফি বিন মর্তুজা। যেখানে মাশরাফির গৃহকর্মী টুনির বাবা আক্কাছ আলীর বাড়িতে বেড়াতে আসেন ‘নড়াইল এক্সপ্রেস’।

যোগানিয়ার সেই অজপাড়াগাঁয়ে মাশরাফিকে দেখতে ছুটে যাওয়াদের মধ্যে ছিলেন নালিতাবাড়ী উপজেলা চেয়ারম্যান মো. মুকছেদুর রহমান লেবুও। তিনি জাতীয় ক্রিকেট দলের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফির আচরণ ও ব্যবহারে মুগ্ধতা প্রকাশ করে বলেন, ‘ভাবা যায়-গৃহকর্মীর এবং সাবেক নিরাপত্তা কর্মীকে ভালোবেসে, তাদের মুখে হাসি ফোঁটাতে তার মতো এমন একজন সেলিব্রেটি এমন অজপাড়াগাঁয়ে সস্ত্রীক এসেছেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘বাসার নিরাপত্তা কর্মীর কাজ থেকে টুনির বাবা আক্কাছ আলী বিদায় নিলেও তার পরিবারের প্রতি মাশরাফির রয়েছে দারুণ মমতা। তিনি আক্কাছ আলীকে চিকিৎসা সহায়তা দিয়েছেন, তাদের মাথা গোঁজার জন্য গ্রামের বাড়িতে একটি সেমিপাকা ঘর বানিয়ে দিয়েছেন। সর্বোপরি তিনি টুনির ভবিষ্যতের দায়িত্বও নিয়েছেন। এখানে না এলে বিষয়টি আমরা জানতেই পারতাম না। সত্যিই ‘ম্যাশ দ্যা রিয়েল ক্যাপ্টেন, স্যালুট হিম।’

স্থানীয়রা জানায়, এবারের কোরবানির ঈদ মাশরাফির বাসাতে কাটলেও পরে গ্রামের বাড়িতে বেড়াতে আসার ইচ্ছে ছিল টুনির। সেই ইচ্ছা পূরণে কেবল টুনিকে পাঠানো নয়, নিজের গোটা পরিবারের লোকজন নিয়েই টুনিদের গ্রামের বাড়িতে হঠাৎ করেই চলে আসেন মাশরাফি।

শুক্রবার সকালে বাসা থেকে বের হলেও জুমার নামাজ পথেই আদায় করতে হয়। নামাজ শেষের আধা ঘণ্টা পর হঠাৎ দু’টি গাড়ি নিয়ে টুনিকে নিয়ে তাদের বাড়ি হাজির হন মাশরাফি।

টুনিদের বাড়িতে পৌঁছানোর পর ক্যাপ্টেন ঘুরে-ফিরে চারপাশ এক পলক দেখে নাস্তা পর্ব শুরু করতেই এলাকায় বিষয়টি জানাজানি হয়। ফলে ভক্ত-সমর্থক থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষ মুহূর্তেই ওই বাড়িতে ভিড় করতে থাকে। তারা প্রিয় এই তারকার সঙ্গে সেলফি তুলতে ও তার অটোগ্রাফ নিতে ব্যস্ত হয়ে পড়েন।

Spread the love
  • 885
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    885
    Shares

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।