ধর্ম প্রমাণ করার চাইতে আমার মরে যাওয়াই ভালো: মমতা

0

কলকাতা প্রতিনিধি:

মন্দিরে ঢুকতে গিয়ে ধর্ম প্রমাণ করার চেয়ে আমার মরে যাওয়া ভালো বলে মন্তব্য করেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

মঙ্গলবার একটি জাদুঘর উদ্বোধন করতে এসে তৃণমূল নেত্রী জানান, তিনি অবশ্যই একজন হিন্দু তবে অন্যান্য ধর্ম ও বিশ্বাসের প্রতিও তার শ্রদ্ধা রয়েছে।

বিজেপির নাম উল্লেখ না করেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, হিন্দু মন্দিরে প্রবেশের আগে যদি আমাকে আমার ধর্ম প্রমাণ করতে হয় তার চেয়ে মরে যাওয়াই আমার পক্ষে ভালো। তুমি এমন কেউই নও যার কাছে আমাকে আমার ধর্ম প্রমাণ করতে হবে!

তিনি বলেন, তৃণমূল কংগ্রেস সরকার ক্ষমতায় এসে যেসব ধর্মীয় কর্মকাণ্ড রাজ্যে করেছে আর পূর্ববর্তী শাসকদল কী কী করেছে সেসবের তুলনা করা দরকার।

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, বিগত সরকারের তুলনায় রাজ্যে তৃণমূল সরকারের আমলেই বেশি সংখ্যক দুর্গাপুজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

এর আগে দুর্গাপুজা কমিটিগুলোকে আয়কর বিভাগের নোটিশ দেওয়ার কেন্দ্রের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে তৃণমূল মঙ্গলবার একদিনব্যাপী বিক্ষোভ প্রদর্শন করে। বিজেপির এ সিদ্ধান্তকেই আক্রমণ করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা।

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, যারা আমার সমালোচনা করে এবং আমার ধর্মীয় পরিচয় নিয়ে প্রশ্ন তোলে তাদের চেয়ে আমি সংস্কৃত ধর্মগ্রন্থ বেশি জানি। আমি একজন হিন্দু এবং আমি সমস্ত ধর্মকে সম্মান করি। আমি ধর্মের ভিত্তিতে মানুষকে বিভক্ত করাতে বিশ্বাস করি না।

বিজেপি বারেবারেই মুখ্যমন্ত্রীর বিরু-দ্ধে রাজ্যে সংখ্যালঘু ভোট সুরক্ষিত করতে মুসলিমদের তোশামোদ করার অভিযোগ এনেছে। এ ছাড়া তৃণমূল কংগ্রেস সরকার রাজ্যে দুর্গাপুজা বন্ধ করার তোড়জোর করছে বলেও অভিযোগ করেছে বিজেপি।

বিজেপির সেই অভিযোগের কথা উল্লেখ করে মমতা বলেন, কেন্দ্রে ক্ষমতায় আসার পর থেকে দলটি নিজেরা কী কী কাজ করেছে সেই দিকে বরং নজর দেওয়া ভালো।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, তৃণমূলের শাসনামলে রাজ্যে আরও বেশি করে দুর্গাপুজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। আমাদের জ্ঞান দেওয়ার আগে ওদের (বিজেপি) উচিৎ ক্ষমতায় আসার পরে ওরা যেসব কাজ করেছে তা খতিয়ে দেখা।

মমতা বলেন, আমি ওদেরকে (বিজেপি) চ্যালেঞ্জ জানাই আমাদের ৮ বছরের সরকার যে যে ধর্মীয় কাজ করেছে এবং আগের সরকার যে যে কাজ করেছে তার তুলনা করতে। আমরা মানবতায় বিশ্বাসী এবং ধর্ম মানেই মানবতা। এটি আমাদের প্রতিটি মানুষকে ভালোবাসতে এবং শ্রদ্ধা করতে শেখায়। ধর্ম আমাদেরকে মানুষে মানুষে বিভাজন করতে শেখায় না।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।