১৫ আগস্ট নিয়ে কটূক্তি, যুবলীগের পিটুনি খেয়ে কোটা-নূর অজ্ঞান

0

পটুয়াখালী প্রতিনিধি:

কোটা আন্দোলনের বহু আগে থেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এবং প্রকাশ্যেই জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমামনকে নিয়ে বহুবার বেফাঁস ও ঔদ্ধত্যপূর্ণ মন্তব্য করার বিভিন্ন অভিযোগ রয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) ভাইস প্রেসিডেন্ট নুরুল হক নূরের নামে।

যদিও বরাবরের মত তা অস্বীকার করেছেন তিনি। এমনকি ফেসবুক পোস্ট বা কমেন্টের স্ক্রিণশট দেখালেও তিনি বলেন- এগুলা এডিট করা যায়…।

তবে এবার ১৫ আগস্ট নিয়ে কটূক্তি করে যুবলীগের পিটুনি খেয়ে অজ্ঞান হওয়ায় তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আজ বুধবার পটুয়াখালীর উলানিয়া বন্দরে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, চর কাজলে উপজেলায় নিজের গ্রামের বাড়িতে ঈদুল আজহা পালন করেন নূর। আজ ঈদের ৩য় দিন মোটর সাইকেলের বহর নিয়ে দশমিনা উপজেলায় খালার বাড়িতে যাচ্ছিলেন। পথে দশমিনা ও গলাচিপা উপজেলার সংযোগ সেতু উলানিয়া বন্দরে চা পান করতে থামেন তিনি।

চায়ের দোকানে বসে তিনি ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস নিয়ে কটূক্তি করেন। স্থানীয় যুবলীগের অভিযোগ, চায়ের দোকানে বসে নূর বলেন, ‘১৫ আগস্টে কেন এত গরু জবে দিতে হবে? বাঙালিদের কেন খাওয়াতে হবে?’ এসব ইন্ডিয়া থেকে করানো হচ্ছে বলেও মন্তব্য করেন ডাকসু ভিপি।

এসব নেতিবাচক কথাবার্তায় ক্ষু-ব্ধ হয়ে উলানিয়া বন্দর স্থানীয় যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ও ইউনিয়ন পরিষদের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য জহির হাওলাদার নেতৃত্বে কর্মীরা ভিপি নূরের ওপর হাম-লা করে। এতে নূর ও তার কয়েক সঙ্গীকে মারধ-র করা হয়। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন ২৫ জন।

এ বিষয়ে গলাচিপা উপজেলার চেয়ারম্যান শাহিন শাহ জানান, নূরুকে স্থানীয়রা চিনতে পারে নাই। তিনি ১৫ আগস্ট নিয়ে কটূক্তি করায় যুবলীগের নেতাকর্মীরা ক্ষু-ব্ধ হয়ে তার ওপর হাম-লা করে। এতে তিনি কয়েক মিনিটের জন্য চেতনা হারান।

এদিকে ঘটনার পর গলাচিপা থানা পুলিশ নূরকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে বাড়ি চলে যান।

গলাচিপা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আক্তার মোর্শেদ জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। তারা নূরকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে।

এ ঘটনার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।