টিপস: পুরুষেরা ত্বকের যত্ন নেবেন যেভাবে

0

লাইফ স্টাইল ডেস্ক:

ঘরে বাইরে প্রতিনিয়ত রুক্ষ পরিবেশে থাকার পাশাপাশি সময়ের অভাবে নজর দেয়া হয় না নিজের প্রতি। আর ত্বকের যত্ন? সেকথা তো হেসেই উড়িয়ে দেবেন অনেক পুরুষ। কিন্তু সত্যিটা হলো অন্যসব বিষয়ের পাশাপাশি খেয়াল রাখতে হবে নিজের প্রতিও। নিতে হবে ত্বকের যত্ন। সবকিছু সামলেও কীভাবে যত্ন নেবেন আপনার মুখের? জেনে নিন-

ছেলেদের মুখের ত্বক মেয়েদের ত্বকের তুলনায় শক্ত আর খসখসে হয়। তাই এমন ক্লিনজার ব্যবহার করতে হবে যা আপনার ত্বকের গভীরে গিয়ে মৃত কোষগুলোকে বের করে দেবে। একইসঙ্গে ত্বকের উপর লেগে থাকা ধুলোময়লাসহ জীবাণুও পরিস্কার করবে। ত্বকের আর্দ্রতা কোনওভাবেই নষ্ট হয় না, এমন ক্লিনজারই সবসময় ব্যবহার করুন। অফিসে বা বাইরে থেকে ফিরে ক্লিনজার দিয়ে মুখ পরিষ্কার করুন।

দাড়ির গোড়া যথেষ্ট শক্ত হয়। তাই যখন তখন দাড়ি শেভ করলে আপনার ত্বকের ক্ষতি হতে পারে। চেষ্টা করুন গোসলের পরপর বা গোসলের সময়েই যাতে দাড়ি শেভ করা যায়। কারণ এই সময় দাড়ির গোড়া যথেষ্ট নরম থাকে। দাড়ি শেভ করার সময় অবশ্যই ব্যবহার করুন শেভিং ক্রিম। রেজর ব্যবহারের ক্ষেত্রেও সতর্ক হওয়া জরুরি। সব রেজর আপনার ত্বকের গঠনের সঙ্গে ফিট নাও করতে পারে। ফলে প্রতিবার দাড়ি শেভ করার পর গাল জ্বালাসহ ব্যথা হবে। এমন রেজর ব্যবহার করুন যা গালের জন্য ভালো আর সেটাই সবসময় ব্যবহার করুন।

চোখের নিচে সমস্ত মুখের তুলনায় একটু কালচে রঙের হয়। কারণ এই অংশের আর্দ্রতা সারা মুখের তুলনায় কম হয়। এই কালো অংশতেই বয়স বাড়লে দেখা দেয় বলিরেখা। তাই এখন থেকেই যত্ন নেওয়া শুরু করুন। চোখের তলায় হাইড্রেটিং ক্রিম লাগান নিয়মিত। কখন ব্যবহার করবেন? দিনের বেলা ঘুম থেকে ওঠার পর ও রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে এই দুবার প্রতিদিন নিয়মিত লাগান। দেখবেন চোখের তলার কালোভাব অনেকটা কমে এসেছে।

মুখের ত্বককে সূর্যের তাপ থেকে বাঁচাতে নিয়মিত সানস্ক্রিন মাখুন। সানস্ক্রিন মুখের ত্বককে সূর্যের ক্ষতিকর আল্ট্রাভায়োলেট রশ্মির থেকে বাঁচিয়ে রাখে। কোন ধরনের সানস্ক্রিন বাছবেন? সান প্রোটেক্টিং ফ্যাক্টর নামে একটি মাপকাঠি রয়েছে যা দিয়ে সানস্ক্রিনের ক্ষমতা মাপা যায়। ৩০ বা তার বেশি এসপিএফ-এর সানস্ক্রিন মুখের ত্বককে ঠিকঠাক প্রোটেকশন দেয়। তাই বেছে নিন বেশি এসপিএফ-এর সানস্ক্রিন।

Spread the love
  • 24
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    24
    Shares

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।