সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় যা ঘটলো কাশ্মীরে

0

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

ভারত শাসিত জম্মু-কাশ্মির রাজ্যের সাংবিধানিক রক্ষাকবচ হিসেবে বিবেচনা করা হয় ৩৭০ ধারাকে। এটি তুলে নেয়ার ফলে বিশেষ সুবিধা হারায় অঞ্চলটির বাসিন্দারা। কিন্তু কী ঘটতে চলেছে তা এখনও পরিষ্কার নয়। গোটা কাশ্মীর উপত্যকাজুড়ে শুধুই আত-ঙ্ক আর স্তব্ধতা। মাঝে মধ্যেই বেজে উঠছে সাইরেন আর ভারী বুটের শব্দে কেঁপে উঠছে উপত্যকা।

গত কয়েকদিন আগে অমরনাথ যাত্রা বন্ধ করে দিয়ে হঠাৎ করেই কাশ্মীরে বাড়ানো হয়েছে আধা সামরিক বাহিনীর বহর। সম্ভাব্য জ-ঙ্গি হাম-লার খবর পেয়েই কি এই ব্যবস্থা, নাকি অন্য কোনও উদ্দেশ্য রয়েছে সরকারের তা নিয়ে ইতোমধ্যে জল্পনা তৈরি হয়েছে ভারতের জাতীয় রাজনীতিতে। যুদ্ধকালীন তৎপরতায় কাশ্মীর থেকে ফেরানো হচ্ছে পর্যটকদের। এই অবস্থায় আত-ঙ্ক আরও বাড়ছে।

এক নজরে গত ২৪ ঘণ্টায় যা ঘটলো কাশ্মীরে-

কাশ্মীরের সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে কথা বলতে জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভালের মুখোমুখি হন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। শুধু অজিত দোভালই নয়, সেই বৈঠকে ছিলেন আইবি প্রধান অরবিন্দ কুমার, র’-এর অফিসার সামন্ত গোয়েল, স্বরাষ্ট্র সচিব রাজীব গৌবা ও অন্যান্য কর্মকর্তারা। রবিবার সারাদিন ধরে দফায় দফায় এই বৈঠক চলে।

মেহবুবা-ওমর গৃহবন্দি

এরই মধ্যে রোববার (৪ আগস্ট) মধ্যরাতে হঠাৎ করেই গৃহবন্দি করা হল ২ বারের মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি এবং ওমর আবদুল্লাকে। শুধু তাই নয়, গৃহবন্দি করা হলো সাবেক বি‌ধায়ক সাজ্জাদ লোনকেও।

এছাড়া আটক করা হয়েছে সিপিএম নেতা ইউসুফ তারিগামি এবং কংগ্রেস নেতা উসমান মজিদকে। হঠাৎ করে কেন এমন সিদ্ধান্ত নিল ভারত সরকার তা নিয়ে আরও জল্পনা-আত-ঙ্ক তৈরি হয়েছে। যদিও এই বিষয়ে এখনও পর্যন্ত প্রশাসনের পক্ষ থেকে কিছুই জানানো হয়নি।

এদিকে, এভাবে গৃহবন্দি করায় প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি বলেছেন, এভাবে বাক স্বাধীনতা হরণ করা যাবে না। মোদী সরকারকে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন ওমর আবদুল্লাহও। তার হুঁশিয়ারি, আইন নিজের হাতে তুলে নেবেন না।

কাশ্মীরজুড়ে ১৪৪ ধারা জারি

রবিবার মধ্যরাত থেকে কাশ্মীর উপত্যকাজুড়ে জারি করা হয়েছে ১৪৪ ধারা। অনির্দিষ্টকালের জন্য জারি করা হয়েছে কার্ফু। পরবর্তী নির্দেশ দেওয়া না পর্যন্ত এই কার্ফু জারি থাকবে বলে প্রশাসনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। কোনও জায়গায় মানুষের জমায়েত দেখলেই প্রশাসনকে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ স্কুল-কলেজ

কাশ্মীরে ১৪৪ ধারা জারির পর সেখানে অনির্দিষ্টকালের বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে সব ধরনের স্কুল-কলেজ। বিশ্ববিদ্যালয়ে থেকে পড়াশুনা করা শিক্ষার্থীদের নিরাপদ জায়গায় থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

ডিশ-ইন্টারনেট বন্ধ

কাশ্মীরে ১৪৪ ধারা জারির পর রাজ্যজুড়ে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে ইন্টারনেট ও ক্যাবল সেবা। এছাড়া কাশ্মীরে অবস্থানরত যুব ক্রিকেটারদেরও সেখান থেকে ফিরিয়ে আনা হয়েছে।

ঝুঁকিপূর্ণ থানায় বিএসএফ’র টহল

শোপিয়ানের মতো স্পর্শকাতর এলাকাগুলোতে থানা পাহারা দিচ্ছে বিএসএফ। শ্রীনগর-কাশ্মীরজুড়ে রবিবার রাতে জারি করা হয়েছে হাই-অ্যালার্ট। সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে সেনা-সীমান্তরক্ষী বাহিনীকেও। বাড়ানো হয়েছে নিরাপত্তা। বিভিন্ন জায়গায় পিকেটিং করা হয়েছে। চলছে সেনার টহলদারি।

ভারত-পাকিস্থান সীমান্তেও সেনাবাহিনীকে চূড়ান্ত সতর্ক থাকতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এদিকে, এই পরিস্থিতির মধ্যে সোমবার জরুরি বৈঠকে বসেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। মন্ত্রিসভার সদস্যদের সাথে বৈঠক করেছেন তিনি। সকাল ৯টায় এই বৈঠক শুরু হয় প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে।

পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষ রাজ্যসভায় এ সংক্রান্ত বিল উত্থাপন করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। এতে তিনি ৩৭০ ও ৩৫-এ ধারা বাতিলের প্রস্তাব করেন। ভারতীয় সংবিধানের এ দুই ধরাকে কাশ্মিরের সাংবিধানিক রক্ষাকবচ হিসেবে বিবেচনা করা হয়। এখন এ দুই ধারা বাতিল করে কাশ্মিরকে ভেঙে দুই টুকরো করার ঘোষণা দিয়েছেন অমিত শাহ। কাশ্মির ভেঙে নতুন দুই রাজ্য হবে জম্মু-কাশ্মির ও লাদাখ।

টুইটারে দেওয়া এক পোস্টে কাশ্মিরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি বলেছেন, এই সিদ্ধান্ত কার্যকরভাবে ভারতকে কাশ্মিরের দখলদার বাহিনী হিসেবে প্রমাণ করেছে।

এদিকে, ৩৭০ ধারা তুলে নিতে দেরি করা উচিত হবে না বলেও মন্তব্য করেন অমিত শাহ। তিনি জানান, কাশ্মির রাজ্যের মর্যাদা হারানোর পর জম্মু-কাশ্মির ও লাদাখ হবে ভারতের কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল। বিষয়টি নিয়ে আগামী ৭ আগস্ট জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দেবেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

Spread the love
  • 26
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    26
    Shares

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।