লেডি গাগা ও শ্রেয়া ছাড়া কারো সাথে গাইব না, মোনালির সাথেও না- সাক্ষাৎকারে নোবেল

0

বিনোদন ডেস্ক:

কলকাতার জি বাংলা টিভির জনপ্রিয় রিয়েলিটি শো ‘সা রে গা মা পা ২০১৯’-এ অংশ নিয়ে পুরো শো জুড়েই আলোচনায় ছিলেন বাংলাদেশের ছেলে নোবেল। তবে এবার নিজের দেশের জাতীয় সঙ্গীতকে নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্যের কারণে সমালোচনার ঝড় বইছে সোস্যাল মিডিয়ায়। নিন্দা জানিয়েয়েছেন দুই বাংলার বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ।

এক লাইভ সাক্ষাৎকারে নোবেল বলেন, রবীন্দ্রনাথের লেখা জাতীয় সঙ্গীত ‘আমার সোনার বাংলা’ যতটা না দেশকে প্রকাশ করে তার চেয়ে কয়েক হাজার গুণ বেশি প্রকাশ করেছে প্রিন্স মাহমুদের লেখা ‘বাংলাদেশ’ গানটি। সাক্ষাৎকারটি কয়েক মিনিটের মধ্যেই ভাইরাল হয়ে যায়।

পড়ুন: নোবেলকে সামনে পেলে চাবকাতাম- বললেন কলকাতার শিল্পী ইমন

সোস্যাল মিডিয়ায় অনেকেই লিখেছেন মুর্খতার কারণেই এমন মন্তব্য করেছেন নোবেল। জি বাংলার ওই শো চলাকালীন সময়ে সঙ্গীত জগতের অনেক সিনিয়র শিক্ষক এবং দুই বাংলার শ্রদ্ধেয় শিল্পীদের সম্মান করেননি বলেও অভিযোগ উঠেছে এই তরুণ শিল্পীর বিরুদ্ধে। হঠাৎ পরিচিতি পেয়ে অহঙ্কারী হয়ে গেছে বলেও মন্তব্য করেছেন অনেকে।

কলকাতার জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী ইমন চক্রবর্তী ফেসবুকে ভিডিওটি পোস্ট করে ক্যাপশনে লেখেন, সরি টু সে, একে সামনে পেলে চাবকাতাম। ভারতের বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম নিন্দা জানিয়ে গুরুত্বের সাথে খবর প্রকাশ করেছে।

পড়ুন: প্রখ্যাত ছড়াকার রিটনের ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া নোবেলকে নিয়ে

জাতীয় সঙ্গীতকে নিয়ে নোবেলের আপত্তিকর মন্তব্যের নিন্দা জানিয়ে বাংলাদেশের বিশিষ্ট ছড়াকার লুৎফর রহমান রিটন ফেসবুকে একটি স্টাটাস দিয়েছেন।

এবার দেশের শীর্ষ দৈনিক কালের কণ্ঠকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে বলছেন আরও উদ্ভট কথা।

ডুয়েটে গান গাইতে চান না নোবেল। শুধু তাই নয়, নিজের ব্যান্ড দল ছাড়া অন্য শিল্পীদের সঙ্গে কাজ করা নিয়েও আপত্তি রয়েছে তার। সারেগামাপায় ৩য় হওয়া নিয়েও তার বিরক্তি গোপন করেননি নোবেল। কালের কণ্ঠকে দেওয়া সাক্ষাত্কারে তিনি মন্তব্য করেছেন, ভক্ত-দর্শকরা মানতে পারছেন না, আমি ৩য় হয়েছি!

একইসঙ্গে প্লে ব্যাকে নিজের ব্যান্ড ছাড়া অন্যদের সঙ্গে কাজ করতেও আপত্তি রয়েছে তার। নোবেলের খোলামেলা উত্তর, সিনেমায় ব্যান্ডদল নিয়েই কাজ করছি। তবে টলিউড ও অনুপম রয় সলো যদি নোবেলকে নিয়ে কাজ করতে চায় তাহলে সেটা আলাদা ব্যাপার। কিন্তু বাংলাদেশি সিনেমায় আমার ব্যান্ডদল নিয়েই গাইব। কারণ আমার গায়কির ধরণ ও মিউজিকের জন্য ‘নোবেল ম্যান’-এর চেয়ে বেটার আউটপুট অন্য কেউ দিতে পারবে বলে মনে হয় না।’

সিনেমায় সলো গাইবেন? ডুয়েট গাইবেন না? এ ব্যাপারেও একটা শর্ত রয়েছে নোবেলের। তার কথায়, ‘যদি লেডি গাগা হয় তাহলে তার সঙ্গে ডুয়েট গাইতে পারি। উপমহাদেশে আমার প্রিয় শ্রেয়া ঘোষাল, তার সঙ্গেও গাইতে পারি। বাংলাদেশ বা ভারতের কারও সঙ্গে ডুয়েট করব না।’ সারেগামাপার বিচারক মোনালি ঠাকুরের সঙ্গেও না? নোবেলের জবাব, ‘না’।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।