ব্যায়ামের মাধ্যমে উৎপাদিত বিদ্যুৎ দিয়ে চলছে ব্যায়ামাগার!

0

বিশ্ব বিচিত্রা ডেস্ক:

একদিকে শরীরচর্চার মধ্য দিয়ে আপনার ওজন কমছে অন্যদিকে শরীরচর্চায় ব্যবহৃত বিভিন্ন যন্ত্র থেকে উৎপাদিত হচ্ছে বিদ্যুৎ। ভাবতে অবাক লাগলেও যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় এমনি এক বিশেষ ব্যায়ামাগার চালু করেছে স্যাক্রেমেন্টো ইকো ফিটনেস। আর সেই বিদ্যুতেই চলছে পুরো একটি ব্যায়ামাগার।

ওয়াশিংটনের যন্ত্রপাতি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান স্পোর্টস আর্টের সহায়তায় মোটরবিহীন ট্রেডমিল ও বেশ কিছু ব্যায়ামের সরঞ্জামাদি সংযুক্ত করেছে প্রতিষ্ঠানটি। আর এই যন্ত্রগুলো থেকেই ওয়ার্ক আউটের পাশাপাশি উৎপাদিত হয় বিদ্যুৎও। ট্রেডমিলগুলো মূলত তড়িৎচুম্বক ও যান্ত্রিক গতিরোধক পদ্ধতি ব্যবহার করে বিদ্যুৎ উৎপাদন করে।

সাবেক মার্কিন নৌ কর্মকর্তা জোসে আন্তোনিও আভিনা পরিবেশবান্ধব এই ব্যায়ামাগারটি ২০১৬ সালে প্রতিষ্ঠা করেন।

তিনি জানান, ব্যায়ামের মাধ্যমে ১ হাজার থেকে আড়াই হাজার ওয়াট পর্যন্ত বিদ্যুৎ উৎপাদন সম্ভব, যেটি দিয়ে অনায়াসে একটি রেফ্রিজারেটর চালানো যায়। একজন মানুষ গড়ে ২০ মিনিটে ২০ ওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে পারেন।

আন্তোনিও আভিনা বলেন, আমাদের অন্যতম বৈশিষ্ট্য হলো আমরা আমাদের জিমে কার্ডিও মেশিনসহ বিভিন্ন সরঞ্জামাদি যুক্ত করেছি। এগুলো ব্যবহারে একজন মানুষ শরীরচর্চার মাধ্যমে শরীরের ক্যালোরি ক্ষয়ের পাশাপাশি বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে পারবেন।

শরীরচর্চার মাধ্যমে বিদ্যুৎ উৎপাদন প্রক্রিয়াটির পুরোটাই পরিবেশবান্ধব বলে জানান প্রকল্পের কর্মকর্তা নিকোল ম্যাকাবে। তিনি জানান, পরিবেশে কার্বনের ব্যবহার কমাতে পারাটা তার জীবনের অন্যতম অর্জন।

পরিবেশ পরীক্ষণ কোম্পানির প্রকল্প ব্যবস্থাপক নিকোল ম্যাকাবে বলেন, পরিবেশ পরীক্ষণ ইন্ডাস্ট্রিতে কাজের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো একটি প্রতিষ্ঠানের সব কিছুই পরিবেশ বান্ধব কি না তা নিশ্চিত করা। আর এই ব্যায়ামাগারের ক্ষেত্রেও আমরা তা নিশ্চিত করার চেষ্টা করেছি।

শরীরচর্চা থেকে উৎপাদিত বিদ্যুৎ ব্যবহৃত হচ্ছে প্রতিষ্ঠানটির বিভিন্ন ইলেকট্রিক সরঞ্জামাদিতে। বাড়তি বিদ্যুৎ জমা হয় ব্যাটারিতে। অফ পিকে যা বাতি সচল রাখতে সহায়তা করে। পরিবেশ বান্ধব এই ব্যায়ামাগার ক্যালিফোর্নিয়ার অন্যান্য জায়গাতেও ছড়িয়ে দিতে চান স্যাক্রেমেন্টো ইকো ফিটনেসের কর্ণধার আভিনা।

Spread the love
  • 59
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    59
    Shares

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।