আপনি কি জানেন, আপেলের বীজ কতটা ক্ষতিকর?

0

লাইফ স্টাইল ডেস্ক:

খুব সুস্বাদু আর পুষ্টিকর ফলগুলোর মধ্যে আপেলের নাম আসবে প্রথম দিকেই। এমনও বলা হয় যে প্রতিদিন একটি করে আপেল খেলে নাকি ডাক্তারের কাছেই যাওয়ার প্রয়োজন হয় না। নিয়মিত আপেল খেলে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। হৃদরোগী, দাঁতের সমস্যা, হাইপার টেনশন, উচ্চ রক্তচাপসহ অনেক রোগ থেকে আপনাকে সুরক্ষিত রাখতে পারে আপেল।

কিন্তু এই আপেলের কারণেই আপনি আপনার অজান্তেই স্বাস্থ্যঝুঁকির সম্মুখীন হতে পারেন। কারণ আপেলের বীজ খুবই বিষাক্ত।

আপেল বীজে মূলত কী থাকে

আপেল বীজে থাকে অ্যামিগডালিন। এই পদার্থটি পাচক রসের সংস্পর্শে এলে বিষাক্ত সায়ানাইড উৎপন্ন করে। অ্যামিগডালিন থেকে নিঃসৃত সায়ানাইড এবং সুগার শরীরে মিশে হাইড্রোজেন সায়ানাইডে পরিণত হয়। হাইড্রোজেন সায়ানাইডের কারণে শরীর অসুস্থ হয়ে পরে, এমনকি মৃত্যুও হতে পারে। তবে আস্ত বীজ গিলে ফেললে সাধারণত এ ধরনের বিষক্রিয়া হয় না।

সায়ানাইড কীভাবে মানবদেহের ক্ষতি করে

পৃথিবীর সবচেয়ে বিষাক্ত উপাদানগুলোর মধ্যে একটি হলো সায়ানাইড। সায়ানাইড শরীরের অক্সিজেন সরবরাহতে বাধা দেয়। সায়ানাইড মস্তিষ্ক এবং হৃদপিণ্ডকে বিকল করে দেয় নিমিষেই। রাসায়নিক আকারে সাধারণত সায়ানাইড পাওয়া যায়। কিন্তু কিছু ফলের বীজেও যেমন আপেল, চেরি, অ্যাপ্রিকট, পাম এবং পিচফলের বীজেও সায়ানাইড পাওয়া যায়। তবে এসব ফলের বিষাক্ত বীজগুলোর প্রতিটিতেও শক্ত আবরণ থাকে। ফলে বিষাক্ত উপাদান ফলের সংস্পর্শে আসেনা।

যতটুকু খেলে বিপদ হতে পারে

এক কাপ পরিমাণ আপেলের বীজের গুঁড়ো একজন মানুষের মৃত্যু ঘটানোর জন্য যথেষ্ট। কেউ যদি ১০টি বীজও চিবিয়ে খেয়ে ফেলে তাহলে মাথাব্যথা, বমি বমি ভাব, হজমে সমস্যা, পেট ব্যথা কিংবা দুর্বলতা অনুভব করতে পারে। অসাবধানতার কারণে একটি দুটি বীজ খেলে শরীরে তেমন কোনো সমস্যা বোঝা যায় না। তবে আপেল খাওয়ার আগে অবশ্যই বীজ ছাড়িয়ে খাওয়ার চেষ্টা করবেন। তাহলে বিপদের কোনো ভয় থাকবে না।

Spread the love
  • 91
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    91
    Shares

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।