ফেসবুকের ভার্চুয়াল মুদ্রা ‘লিবরা’ কীভাবে কাজ করে

0

বিজ্ঞান ও তথ্য প্রযুক্তি ডেস্ক:

অবশেষে মাস্টারকার্ড, উবার, ভিসা, পেপ্যাল, ভোডাফোনের মতো বিশ্বখ্যাত ২৭টি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যুক্ত হয়ে বহুল প্রতীক্ষিত ভার্চুয়াল মুদ্রা ‘লিবরা’ চালুর ঘোষণা দিয়েছে সামাজিক যোগাযোগের জনপ্রিয় মাধ্যম ফেসবুক। মঙ্গলবার (১৮ জুন) ফেসবুকের সহ-প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গ তার অফিশিয়াল পেজে এক পোস্টের মাধ্যমে এ ঘোষণা দেন।

সংবাদ সংস্থা সূত্রে খবর, বিশ্বের প্রায় ২০০ কোটি সক্রিয় ফেসবুক ইউজার ম্যাসেঞ্জার, হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করে লিবরা দিয়ে যাবতীয় কেনাকাটাসহ সকল প্রকার অর্থনৈতিক লেনদেন সম্পন্ন করতে পারবেন। ক্যাশ টাকা সাথে নিয়ে ঘুরতে হবে না ব্যবহারকারীদের। বাস/ট্রেনের টিকিট কেনাসহ সকল কেনাবেচা সম্পন্ন হবে এই মুদ্রা দিয়ে। ফেসবুক আইডিতে ক্রেতা-বিক্রেতা উভয়েরই কিউআর কোড (QR Code) থাকবে যা স্ক্যান করলেই স্বয়ংক্রিয়ভাবে টাকা লেনদন সম্পন্ন হয়ে যাবে।

বিশেষজ্ঞদের মতে, ফেসবুকের ক্রিপ্টোকারেন্সি আনার ফলে বিশ্বব্যাপী ব্যাংক পরিষেবায় আমূল পরিবর্তন ঘটবে। ফেসবুকের এই ক্রিপ্টোকারেন্সি প্রকল্প সফল হলে, অচিরেই বিশ্বের সব আর্থিক লেনদেন ব্লকচেইন প্রযুক্তির আওতায় চলে আসবে।

প্রচলিত মুদ্রা অর্থাৎ ডলার, পাউন্ড, টাকা ইত্যাদির মতো, ক্রিপ্টোকারেন্সিও এক ধরনের ভার্চুয়াল মুদ্রা বা বিনিময় মাধ্যম।

ব্লকচেইন প্রযুক্তির মাধ্যমে লেনদেনের জন্য এই ক্রিপ্টোকারেন্সি ব্যবহার করা হয়। প্রচলিত এমন মুদ্রা হলো— বিটকয়েন, বিটক্যাশ, মোনেরো, লাইটকয়েন ইত্যাদি। অন্যদিকে ব্লকচেইন হল ডেটা সংরক্ষণ করার একটি নিরাপদ ও উন্মুক্ত পদ্ধতি। এ পদ্ধতিতে তথ্য বিভিন্ন ব্লকে একটির পর একটি চেইন আকারে সংরক্ষণ করা হয়।

ইতোমধ্যেই বিশ্বের বৃহৎ আর্থিক লেনদেন পরিষেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান-সহ অন্যান্য আন্তর্জাতিক গ্রাহক পরিষেবা প্রদানকারী সংস্থা ফেসবুকের সঙ্গে ‘লিবরা’ ক্রিপ্টোকারেন্সির বিষয়ে চুক্তি করেছে। এই সংস্থাগুলো ফেসবুকের ক্রিপ্টোকারেন্সি তৈরির জন্য ১ কোটি ডলার করে বিনিয়োগ করবে। সংস্থাগুলো ‘লিবরা অ্যাসোসিয়েশন’ নামে একটি স্বায়ত্ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠানের অধীনে থেকে ফেসবুকের ডিজিটাল কয়েন ব্যবস্থাটি পরিচালনা করবে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মূলত ফেসবুকের ২০০ কোটিরও বেশি মাসিক সক্রিয় ব্যবহারকারীর কাছে এই ডিজিটাল কয়েন কতটা জনপ্রিয় হয়, তা যাচাই করতেই অন্য সংস্থাগুলো ফেসবুকের সঙ্গে যোগ দিয়েছে।

দি ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের প্রতিবেদনে বলা হয়, উদ্যোগটি সফল হলে, তা থেকে লাভবান হওয়ার আশাতেই মাস্টারকার্ড ও ভিসার মতো সংস্থা ফেসবুকের ডিজিটাল মুদ্রা ব্যবস্থার সঙ্গে যুক্ত হয়েছে।

মনে করা হচ্ছে, ফেসবুক নিজেদের ক্রিপ্টোকারেন্সি ব্যবহার সহজ করতে প্রচলিত এটিএম বুথের মতো ব্যবস্থা রাখার পরিকল্পনা করছে। এসব বুথ থেকে ‘লিবরা’ মুদ্রা দিয়ে দেশের প্রচলিত সরকারি মুদ্রা নিতে পারবেন গ্রাহকরা। তবে বিশ্লেষকদের একাংশের মত, ডিজিটাল মুদ্রা আনুষ্ঠানিকভাবে চালু করার আগে বেশকিছু আইন-কানুনের মধ্যে দিয়ে যেতে হয়েছে ফেসবুককে। এ ছাড়া এই মুদ্রার নিরাপত্তা ও অবৈধ আর্থিক লেনদেনের ঝুঁকি দূর করার পর্যাপ্ত ব্যবস্থাও রাখতে হবে।

ইতোমধ্যে বিশ্বের খ্যাতনামা যেসব প্রতিষ্ঠান ফেসবুকের সঙ্গে ক্রিপ্টোকারেন্সি ‘লিবরা’ বিষয়ে চুক্তি সম্পন্ন করেছে সেগুলোর মধ্যে মাস্টারকার্ড, ভিসা, পেপ্যাল, স্ট্রাইপ, ইবে, উবার, লিফ্ট, স্পোটিফাই, কয়েনবেস, জ্যাপো, আন্দ্রেসেন হোরোউইটজ, পে ইউ, উইমেন’স ওয়ার্ল্ড ব্যাংকিং, ভোডাফোন অন্যতম।

Spread the love
  • 40
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    40
    Shares

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।