যুক্তরাষ্ট্রে ২ শিশুসহ ৪ ভারতীয় বংশোদ্ভূতকে গুলি করে হত্যা

0

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

যুক্তরাষ্ট্রে একই পরিবারের ৪ ভারতীয় বংশোদ্ভূতকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। এর মধ্যে ২ জন শিশুও ছিলেন। গত শনিবার (১৫ জুন) সকালে ওয়েস্ট দেস মইনসে নিজেদের বাড়ির ভেতরেই গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা গেছেন তারা।

ইতোমধ্যে নিহতদের পরিচয় প্রকাশ করেছে পুলিশ। এরা হলেন- চন্দ্রশেখর সাংকারা (৪৪), লাভানিয়া সাংকারা (৪১) এবং ১৫ ও ১০ বছর বয়সী দুই শিশু। তাদের নাম প্রকাশ করা হয়নি।

স্থানীয় লোকজনের কাছ থেকে খবর পেয়ে পুলিশ ওই মরদেহগুলো উদ্ধার করেছে। নিহতদের শরীরে একাধিক গুলির চিহ্ন পাওয়া গেছে।

স্থানীয় পুলিশের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, কী কারণে এই হত্যাকাণ্ড চালানো হয়েছে তা এখনও পরিষ্কার নয়। এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি। তবে তদন্ত চলছে।

বিয়েতে রাজি নয় বলে কিশোরীকে ছুরি মেরে খালে ফেলে দেয় বাবা!

পরিবারের ভাবনা ছিল কিশোরী মেয়েটিকে একটা ভালো ছেলে দেখে তাড়াতাড়ি বিয়ে দেওয়ার। কিন্তু মেয়ে চায় পড়ালেখা করতে। এ নিয়ে ১৫ বছর বয়সী ওই কিশোরীর সঙ্গে তার বাবা-মার সংঘাত চরমে ওঠে। ত্যাক্ত বিরক্ত পাষণ্ড বাবা এক পর্যায়ে নিজের কিশোরী মেয়েকে ছুরি মেরে খালে ফেলে দেন। নৃশংস ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের উত্তর প্রদেশের শাহজাহানপুরে। মেয়েটি এখন হাসপাতালে মৃত্যু সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে।

দেশটির স্থানীয় গণমাধ্যম জি-নিউজকে মেয়েটি বলেছে, বাবা আমাকে খালের পাড়ে একটি নির্জন জায়গায় নিয়ে যায়। তার সঙ্গে ছিল আমার ভাই। ও আমার গলায় একটা কাপড় দিয়ে পেঁচিয়ে ধরে। আর পেছন থেকে বাবা একটি ছুরি দিয়ে আমাকে অনবরত কোপাতে থাকে। চিত্কার করে আমি ওদের থামতে বলি। কিন্তু বাবা থামেনি।

ছুরিকাঘাত করার পর ওই কিশোরীকে খালে ঠেলে ফেলে দেয় বাবা। কিন্তু পানিতে পড়ে যাওয়ার পর সে সাঁতরে লুকিয়ে থাকে জংলার ভেতর। পরে গোটা ঘটনাটি প্রকাশ্যে চলে আসে।

ওই কিশোরীর বোনের স্বামী জি-নিউজের প্রতিবেদকে বলেন, ও বেশ কয়েকমাস আমাদের বাড়িতে ছিল। ওর বাবা-মা চাইতো না ও আর পড়াশোনা করুক। কয়েকদিন আগে ওকে ওর বাবা-মা বাড়ি ফিরিয়ে নিয়ে যায়। খবর পেয়েছি ওকে আহত অবস্থায় খালের কাছে পাওয়া গেছে।

এ ঘটনার পর মেয়েটির বাবা ও ভাইকে ভারতীয় পুলিশ এখনো গ্রেপ্তার করতে পারেনি। তবে চেষ্টা অব্যাহত আছে।

Spread the love
  • 82
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    82
    Shares

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।