হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লেন রিজভী, বমিও করছেন!

0

সময় এখন ডেস্ক:

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী হঠাৎ করেই অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে একটি বিছানায় শুইয়ে তাকে স্যালাইন দিয়ে রাখা হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিএনপি চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান। তিনি বলেন, রুহুল কবির রিজভী সোমবার সকালে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন। তার রক্তচাপ বেড়ে গেছে। চিকিৎসকের পরামর্শে তাকে স্যালাইন দিয়ে রাখা হয়েছে।

বিএনপির স্বাস্থ্যবিষয়ক সম্পাদক ডা. রফিকুল ইসলাম জানান, রোববার রাত থেকেই অসুস্থ রিজভী। তিনি জানান, হঠাৎ করে কয়েকবার বমি করেন রিজভী। রাতেই চিকিৎসকরা বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এসে তাকে দেখে গেছেন। তাদের প্রেসক্রিপশন অনুযায়ী ওষুধ সেবন করছেন রিজভী। এখন তার স্যালাইন চলছে।

রুহুল কবির রিজভী বিএনপির অন্যতম মুখপাত্র। দলের সংকটময় মুহূর্তে তিনি নয়াপল্টন কার্যালয় থেকে নিয়মিত প্রেস ব্রিফিং করেন। সরকার বিরোধী আন্দোলনের সময় গ্রেপ্তার এড়াতে তিনি দীর্ঘদিন দলীয় কার্যালয়েই অবস্থান করেন।

সংসদকে ‘অবৈধ’ বলার ব্যাখ্যা দিলেন রব

বর্তমান সংসদকে ‘অবৈধ’ বলার ব্যাখ্যা দিয়েছেন জেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রব। এ সময় তিনি জাতীয় ঐক্য গড়ে তোলার মধ্য দিয়ে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে আন্দোলনে যাবেন বলে জানিয়েছেন। সোমবার বিকাল সাড়ে ৪টায় জোটের শরিক জেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রবের উত্তরার বাসায় এ বৈঠক শুরু হয়। প্রায় ঘণ্টাখানেক বৈঠকের পর আ স ম আবদুর রব সাংবাদিকদের সামনে সরকারের বিভিন্ন ‘অনিয়ম’, ‘দুর্নীতির’ চিত্র তুলে ধরেন।

এ সময় তিনি সংসদকে ‘অবৈধ’ বলার পরও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নির্বাচিতদের সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নেয়ার কারণ ব্যাখ্যা করেন।

আ স ম রব বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া আজ কারাগারে, তিনি যেখানে চিকিৎসাধীন আছেন সেখানে বোমা পাওয়া গেছে। তার জীবন হুমকির মুখে। আমাদের হাজার হাজার নেতাকর্মী কারাগারে। লক্ষাধিক মামলা রয়েছে নেতাকর্মীদের নামে। সংসদে এসব বিষয়ে আলোচনা করতেই নির্বাচিতরা শপথ নিয়েছেন। জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট জনগণের ঐক্য, ‘জনগণের স্বার্থেই’ তারা সংসদে যোগ দেওয়ার সিদ্ধান্তে এসেছেন।

আ স ম রব বলেন, পরবর্তীতে ড. কামাল হোসেনের মতিঝিলের চেম্বারের বৈঠকে আন্দোলনের পরবর্তী করণীয় নির্ধারণ হবে।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন- বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, দলটির স্থায়ীর কমিটির সদস্য ড. মঈন খান, জেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রব, দলটির সাধারণ সম্পাদক আবদুল মালেক রতন, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি কাদের সিদ্দিকী, সাধারণ সম্পাদক বীর হাবিবুর রহমান তালুকদার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইকবাল সিদ্দিকী, গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি অধ্যাপক আবু সাঈদ, অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক ড. রেজা কিবরিয়া, নাগরিক ঐক্যের যুগ্ম আহ্ববায়ক ডা. জাহিদুর রহমান, নাগরিক ঐক্যের নেতা মমিনুল ইসলাম প্রমুখ।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।