মিয়ানমারে নাগরিকত্ব না দিলে রোহিঙ্গাদের পাঠাবোনা: মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী

0

কক্সবাজার প্রতিনিধি:

মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের পূর্ণ নাগরিকত্ব না পাওয়া পর্যন্ত জোর করে কোনও রোহিঙ্গাকে বাংলাদেশের নিরাপদ আশ্রয় থেকে মিয়ানমারে ফেরৎ পাঠানো হবেনা বলে জানিয়েছেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। রোববার কক্সাবাজারে উখিয়ার কুতুপালং ক্যাম্পে সরকারি কর্মকর্তা ও রোহিঙ্গা নেতাদের সাথে মতবিনিময়কালে তিনি একথা জানান।

এ সময় মন্ত্রী আরও বলেন, মিয়ানমারে রোহিঙ্গারা পূর্ণ নাগরিকত্ব না পাওয়া পর্যন্ত জোর করে কোনও রোহিঙ্গাকে মিয়ানমারে ফেরৎ পাঠানো হবেনা।

মতবিনিময়কালে তিনি রোহিঙ্গা নেতাদের কাছে জানতে চান, ক্যাম্পে কী কী সমস্যা রয়েছে। এর জবাবে রোহিঙ্গা নেতারা তাকে জানান, চিকিৎসা, শিক্ষা ব্যবস্থা, রাত্রিকালীন নিরাপত্তা ও এনজিওরা রোহিঙ্গাদের সাথে সমন্বয় না করে দায়সারাভাবে কাজ করছে।

রোহিঙ্গাদের এসব অভিযোগের কথা মন্ত্রী গভীর মনোযোগ সহকারে শোনেন এবং সমস্যাগুলো সমাধানের আশ্বাস দেন। রোহিঙ্গাদের অভিযোগ ও দূর্ভোগের কথা মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে জানাবেন বলেও জানান।

আরাকান সোসাইটি ফর ইফস হিউম্যান রাইটসের সভাপতি মাষ্টার মহিবুল্লাহ মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হককে বলেন, মিয়ানমার সরকার তাদেরকে রোহিঙ্গা বলেনা, বলে বাঙালি! আসিয়ান ২ বছরে ৫ লক্ষ রোহিঙ্গা মিয়ানমারে ফেরৎ নেওয়ার যে কথা বলছে তা উদ্দেশ্য প্রণোদিত। রোহিঙ্গাদের অবাধ চলাফেরার স্বাধীনতা না দিলে এবং জমি জমা, শিক্ষা ব্যবস্থা না করলে কখনো রোহিঙ্গারা ফেরৎ যাবেনা।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন, শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার আবুল কালাম, উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নিকারুজ্জামান চৌধুরী, সহকারী পুলিশ সুপার (উখিয়া সার্কেল) নাহিয়ান আদনান তাহিয়ান, ক্যাম্প ইনচার্জ রেজাউল করিম, পাবেল।

এছাড়াও রোহিঙ্গা নেতাদের পক্ষে মাষ্টার রহিম, মাষ্টার মহিবুল্লাহ, মাষ্টার কামাল, মাষ্টার ইলিয়াছ, মাষ্টার শফিক, হাজী ওলি উল্লাহ, মাষ্টার নকিব, মাষ্টার সলিম, মাষ্টার ছৈয়দ, মাষ্টার সাদেক, মহিলা নেত্রীদের মধ্যে সিরাজুন নেসা, রশিদা বেগম উপস্থিত ছিলেন।

মন্ত্রী ক্যাম্প পরিদর্শন শেষে দুপুর আড়াইটার দিকে কক্সবাজারের উদ্দেশ্যে ক্যাম্প ত্যাগ করেন।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।