ভাতিজির সুখের কথা ভেবে পাত্রের লিঙ্গ দেখার আবদার চাচার!

0

চাঁদপুর প্রতিনিধি:

এবার চাঁদপুরে বিয়ের জন্য মেয়ে দেখতে গিয়ে ঘটে গেলো এক অদ্ভুত ঘটনা। মেয়ে দেখতে আসা পাত্র পক্ষের কাছে পাত্রের লিঙ্গ দেখার প্রস্তাব জানালো কনে পক্ষের লোক! গতকাল শুক্রবার (৬ জুন) সকালে চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলায় এ ঘটনাটি ঘটেছে।

জানা যায়, পাত্র পক্ষ মেয়ে দেখতে কনে পক্ষের বাসায় যায়। সেখানে মেয়ের সাক্ষাৎকার নেয় পাত্র পক্ষের লোকজন। খুঁটিয়ে খুঁটিয়ে তার চেহারা, হাত পা, চুল ইত্যাদি দেখা শেষে তাকে নানাভাবে প্রশ্ন করা হয়। কী কী পারে, জানে- সেসবও জানতে চাওয়া হয়।

মেয়ে দেখা শেষে মেয়ের চাচা রুমে প্রবেশ করেন এবং ছেলের বাবার কাছে অনুরোধ করে বলেন, ভাই আপনার কাছে আমার একটা আবদার আছে। ছেলের বাবা কৌতুহলি হয়ে জিজ্ঞেস করেন, কী আবদার? বলেন শুনি…। মেয়ের চাচা তখন বলেন, ছেলেকে একটু আমার সাথে বারান্দায় যেতে দেন। গোপনে কিছু কথা বলবো।

পাত্রের বাবা সরলমনে রাজি হয়ে যান। তারপর ছেলেকে নিয়ে মেয়ের চাচা বারান্দায় যান এবং তাকে লুঙ্গি পরতে বলেন। ছেলে লুঙ্গি পরার পর মেয়ের চাচা তাকে লুঙ্গি ওঠাতে বলেন। ছেলে তখন অবাক হয়ে যায় এবং লুঙ্গি ওঠাতে অসম্মতি জানান। এর পরপরই আড়াল থেকে কনে পক্ষের আরো কয়েকজন লোক বেরিয়ে আসেন। তারা ধস্তাধস্তি করে ছেলের লুঙ্গি খুলে ফেলেন। মেয়ের চাচা দ্রুত ছেলের লিঙ্গের কয়েকটি ছবি তুলে নেন। এক পর্যায়ে ছেলের বাবা মা বারান্দায় এসে দেখতে পান তাদের ছেলেকে উলঙ্গ করে ছবি তোলা হচ্ছে। তাদেরকে দেখে মেয়ের চাচা মোবাইল সরিয়ে ফেলেন।

পরে এটা নিয়ে মামলা হলে মেয়ের চাচা জানান, তিনি তার ভাতিজির ভবিষ্যত জীবনের সুখের কথা ভেবে ছেলের লিঙ্গ দেখতে চেয়েছেন। যদি আকার আয়তন সঠিক না হয়, তাহলে তো চিরজীবন আদরের ভাতিজিটাকে কষ্টের বোঝা বয়ে বেড়াতে হবে।

সর্বশেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত পাত্র পক্ষ বেঁকে বসেছে, এমন পরিবারে আত্মীয়তা না করার বিষয়ে। এলাকায় ঘটনা জানাজানি হওয়ার পর দুই গ্রামেই থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।

সোনালীনিউজ

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।