রমজানে ‘হাতাবিহীন’ পোশাক পরায় ৩৯ নারীকে রাস্তায় চপেটাঘাত!

0

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

রোজার সময় হাতাকাটা বা কথিত যৌন আবেদনময় পোশাক পরে বাইরে বেরোনোর ‘অপরাধে’ মালেশিয়ায় ৩৯ জন নারীকে প্রকাশ্যে চপেটাঘাতের মাধ্যমে শাস্তি প্রদান করা হয়েছে। দেশটির ইসলামবিষয়ক ও ধর্ম বিভাগ (জাহেক) এ শাস্তি প্রদান করেছে বলে স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম নিউ স্ট্রেইট টাইমস জানিয়েছে।

গত রবিবার মালয়েশিয়ার উত্তর-পূর্বের কেলানতান রাজ্যে এ শাস্তি কার্যকর করা হয়।

জাহেকের সহকারী প্রধান পরিচালক (শরিয়াহ ও আইন বিভাগ) মোহাম্মদ ফাদজুলি জেইন বলেন, ‘নোটিশ দেয়ার ৯ ঘণ্টা পর অভিযান চালানো হয়। এ সময় ওই নারীদেরকে অশালীন পোশাকে দেখা যায়। তাই তাদেরকে শাস্তি হিসেবে চপেটাঘাত করা হয়েছে।’

তিনি বলেন, জাহেক, কোটা বারু সিটি কর্পোরেশন, সমাজকল্যাণ বিভাগ ও পুলিশের ৭০ সদস্য সকাল ১০টায় বিভিন্ন এলাকায় এ অভিযান পরিচালনা করে। অভিযানটি রাত ৭টা পর্যন্ত চলে।

দেশটির বিভিন্ন এলাকায় এ অভিযান চালানো হয় বলে জানান তিনি।

ফাদজুলি আরো বলেন, অভিযানকালে চপেটাঘাতের পর ওই ৩৯ নারীকে কাউন্সেলিং করা হয়। এ সময় আরও ৮ নারীকে জনসম্মুখে আবেদনময়ী পোশাক না পরার আইন সম্পর্কে সতর্ক করে দেয়া হয়েছে।

এছাড়া অভিযানের সময় রোজা না রাখা ২ ব্যক্তিকে একটি রেস্টুরেন্ট থেকে আটক করা হয় বলে জানান তিনি। ফাদজুলি আরো জানান, আগামীতে এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

এদিকে এই ঘটনার পর শুরু হয়েছে ব্যাপক সমালোচনা। এমন ঘৃণ্য পদক্ষেপ নেয়ায় প্রশাসনের বিরুদ্ধে নাগরিকরাও হতাশা ব্যক্ত করেছেন। মানবাধিকার কর্মীরা এমন ঘটনাকে ন্যাক্কারজনক এবং বিশ্বের নিকট মালয়েশিয়ার ভাবমূর্তি ক্ষুন্নকারী ঘটনা বলে অভিহিত করেছেন।

হাসান এবাদি নামের একজন মানবাধিকার কর্মী গণমাধ্যমকে বলেন, মালয়েশিয়া পেছনের দিকে দৌড়াচ্ছে। দিন দিন একটি ধর্মান্ধ রাষ্ট্রে পরিণত হচ্ছে। সরকার কাদেরকে খুশি রাখতে কী করবে ভেবে পাচ্ছে না। নাগরিকদের মৌলিক অধিকারের ওপর এমন ঘৃণ্য হস্তক্ষেপ মালয়েশিয়ার ভাবমূর্তি নষ্ট করছে। এর বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিবাদ জানাই।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।