বাজেটে বেনসন ২০, গোল্ডলিফ ১৬ টাকা করার প্রস্তাব

0

অর্থনীতি ডেস্ক:

সিগারেটের সর্বনিম্ন মূল্য ৯ টাকা করার প্রস্তাব করেছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। আসন্ন বাজেট সামনে রেখে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালকে ১০ এপ্রিল লেখা এক চিঠিতে এ প্রস্তাব করেছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

২০১৯-২০ বাজেটে সিগারেটসহ সব ধরনের তামাকজাত পণ্যের ওপর বিদ্যমান কর কাঠামোতে আমূল পরিবর্তন আনার প্রস্তাব দিয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। এতে বাজারে চলমান প্রতিটি কম দামের সিগারেটে কমপক্ষে ৪ টাকা বাড়ানোর কথা বলা হয়েছে।

এই প্রস্তাবের মাধ্যমে বেনসন ও গোল্ডলিফসহ সমমানের ব্র্যান্ডের প্রতিটি সিগারেটের দাম বাড়বে অতিরিক্ত ৮ টাকা। বর্তমানে প্রতিটি বেনসন বিক্রি হচ্ছে ১২ টাকা ও গোল্ডলিফ ৮ টাকা। এছাড়া বাজারে সর্বনিম্ন প্রতি সিগারেটের দাম ৫ টাকা ও উচ্চস্তরে প্রতি সিগারেট ১২ টাকা খুচরা মূল্যে বিক্রি হচ্ছে।

নকল বেনসন, গোল্ডলীফ সিগারেট তৈরীর ৩ টন তামাকসহ ট্রাক জব্দ

টাঙ্গাইলে অবৈধ সিগারেট উৎপাদনের জন্য নেয়ার পথে ৩ টন তামাকসহ একটি ট্রাক জব্দ করেছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)র ঢাকা পশ্চিম ভ্যাট বিভাগের একটি দল।

ট্রাকটির চালান পরীক্ষা করে দেখা যায় এতে তামাকের ডাস্ট বা উচ্ছিষ্ট আছে। কিন্তু এতে পাওয়া গেছে প্রক্রিয়াজাত তামাক। ট্রাকসহ জব্দকৃত তামাকের মূল্য প্রায় ১ কোটি টাকা। প্রক্রিয়াজাতকৃত এই তামাক সিগারেট বানানোর কাজে প্রধান কাঁচামাল হিসেবে ব্যবহারযোগ্য বলে এনবিআরের অনুসন্ধানে তথ্য মিলেছে।

গত ২৩ এপ্রিল ট্রাকটি কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা থেকে ময়মনসিংহের দিকে যাচ্ছিল। গোপন সংবাদের উপর ভিত্তিতে ঢাকা পশ্চিম ভ্যাটের একটি দল ট্রাকের ওপর নজরদারি করে। ট্রাকটি বঙ্গবন্ধু সেতু অতিক্রম করে সেতুর পূর্ব প্রান্তে আসার পর স্থানীয় পুলিশের সহায়তায় ট্রাকটির গতিরোধ করে কাগজপত্র যাচাই করা হয়। ট্রাক চালান অনুযায়ী পণ্যচালানটি নেত্রকোনার রহমান ট্রেড্রার্সের নামে আনা হয়েছে। ঐ ট্রাক চালান যাচাই করে দেখা যায় প্রাপকের ঠিকানা ভুয়া।

ট্রাকটিতে অনুসন্ধান চালিয়ে কুষ্টিয়ার ত্রিমোহনীর বড়খাদা এলাকার গ্লোবাল লীফ টোব্যাকোর চালানপত্র পেয়েছে অভিযানকারী কর্মকর্তারা। এখানে যথাযথ ভ্যাট চালান বহন করা হয়নি।

ভ্যাট ফাঁকি দিয়ে অবৈধভাবে সিগারেট উৎপাদনের জন্য মিথ্যা চালানের মাধ্যমে কুষ্টিয়া থেকে পণ্য বের করা হয়। একইসাথে অবৈধভাবে গড়ে ওঠা কোনো সিগারেট ফ্যাক্টরিতে ব্যবহারের জন্য এই তামাক আনা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এখানে উল্লেখ্য গত ১১ এপ্রিল ঢাকা পশ্চিম ভ্যাটের একটি দল র‌্যাব এর সহযোগিতায় টাঙ্গাইলের কালিহাতি উপজেলার কামার্থী গ্রামে অটোরাইস মিলের আড়ালে গড়ে ওঠা অবৈধ সিগারেট ফ্যাক্টরির সন্ধান পায়। সে ফ্যাক্টরি থেকে নকল সিগারেট, ফিল্টার, প্রক্রিয়াজাত তামাক ও মেশিনারিজ জব্দ করে। এই ফ্যাক্টরিতে স্থাপিত উন্নতমানের মেশিনারিজ দিয়ে দৈনিক ২০ লক্ষ সিগারেট তৈরি করা সম্ভব। ফলে মাসে সরকারের প্রায় ৫১ কোটি টাকার ভ্যাট ফাঁকি হতো। ঐ ফ্যাক্টরি থেকে ব্রিটিশ আমেরিকান টোবাকোর ব্র্যান্ডের নকল বেনসন অ্যান্ড হেজেস, গোল্ডলীফসহ বিভিন্ন সিগারেট উৎপাদন করা হতো। জব্দ করা প্রক্রিয়াজাতকৃত তামাকের সাথে পূর্বের জব্দকৃত তামাকের মিল রয়েছে বলে জানান এনবিআর কর্মকর্তারা।

তারা ধারণা করছেন বৃহত্তর ময়মনসিংহ এলাকায় আরো অবৈধ ফ্যাক্টরি আছে।

ঢাকা পশ্চিম ভ্যাট অফিস সূত্রে জানা যায়, আটককৃত ট্রাকের নম্বর হলো কুষ্টিয়া-ট-১১-০৯৪১। আটকের পর ট্রাকটি টাঙ্গাইল ভ্যাট বিভাগীয় দপ্তরে জমা করা হয়েছে। ভ্যাট ফাঁকি ও অবৈধ পণ্য ব্যবহারের প্রচেষ্টাজনিত কারণে মামলা হয়েছে। প্রয়োজনীয় অনুসন্ধান ও তদন্তশেষে আরো আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে জানান অভিযান পরিচালনাকারী ভ্যাট কর্মকর্তারা।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।