জুতার ওপর জুতা রাখায় তারাবির নামাজরত মুসল্লিকে কুপিয়ে হত্যা

0

মাদারীপুর প্রতিনিধি:

মাদারীপুরের রাজৈরে মসজিদে জুতার ওপর জুতা রাখার মত তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে তর্কের জেরে মসজিদে ঢুকে এক ব্যক্তিকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় একজনকে আটক করেছে পুলিশ। উপজেলার আমগ্রাম ইউনিয়নের মঠবাড়ি এলাকায় মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে এ ঘটনা ঘটে বলে রাজৈর থানার ওসি শাজাহান মিয়া জানান।

নিহত মজিবর বেপারি (৫০) ওই এলাকার নওয়াব আলী বেপারির ছেলে।

রাজৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহজাহান মিয়া গণমাধ্যমকে বলেন, নিহত মজিবর বেপারির সঙ্গে তার ফুফাতো ভাই আশরাফ বেপারি ও লিঙ্কন বেপারির জমি-জমা নিয়ে আগেই বিরোধ ছিল। এর আগেও তাদের মধ্যে একাধিকবার সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। মঙ্গলবার এশার নামাজের আগে মসজিদের বাক্সে জুতার ওপর জুতা রাখা নিয়ে মজিবরের ছেলে রুবেল ব্যাপরীর সঙ্গে আশরাফের ছেলে লিঙ্কনের কথা কাটাকাটি হয়। এ সময় আশরাফও সেখানে উপস্থিত ছিলেন।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে ওসি শাহজাহান মিয়া আরও জানান, ৮টার দিকে তারাবির নামাজ আদায় করতে মসজিদে প্রবেশ করেন মজিবর। এ সময় মসজিদের ভেতরে অর্ধশত মুসল্লি নামাজ আদায় করছিল। হঠাৎ কয়েকজন সন্ত্রাসী দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে মসজিদের ভেতরে প্রবেশ করে। পরে মজিবরকে লক্ষ্য করে এলোপাতাড়ি কোপানো শুরু করে তারা। মজিবর রক্তাক্ত অবস্থায় দৌড়ে বাইরে চলে আসার চেষ্টা করলে মসজিদ প্রাঙ্গণে দাঁড়িয়ে থাকা সন্ত্রাসীরা তার গতিরোধ করে ফের কোপানো শুরু করে।

এ সময় স্থানীয়দের মধ্যে হইচই শুরু হলে পালিয়ে যায় সন্ত্রাসীরা। পরে স্থানীয়রা রক্তাক্ত অবস্থায় মজিবরকে রাজৈর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ দিকে এই ঘটনার পরে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে রাজৈর থানা-পুলিশ। এলাকায় আতঙ্ক থাকায় আমগ্রাম ও মঠবাড়ি এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

ওসি শাহজাহান মিয়া বলেন, মসজিদে ঢুকে এমন সন্ত্রাসী হামলা যারা করেছে তাদের আটক করতে পুলিশ মাঠে নেমেছে। দ্রুত তাদের আটক করা হবে। ইতিমধ্যে এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য একজনকে আটক করা হয়েছে।

ঘটনার পর থেকে আশরাফ, তার ছেলে ও জড়িতরা পলাতক রয়েছে। তাদের আটকের জন্য অভিযান চালানো হচ্ছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মাদারীপুর সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

Spread the love
  • 77.1K
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    77.1K
    Shares

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।