আমৃত্যু ভিক্ষা করেছেন দেশের প্রথম চলচ্চিত্রের গুণী নায়িকার (ভিডিও)

0

সময় এখন ডেস্ক:

বাংলাদেশের প্রথম স্থানীয়ভাবে নির্মিত পূর্ণদৈর্ঘ্য সবাক চলচ্চিত্রটির নাম ‘মুখ ও মুখোশ’। সেই চলচ্চিত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন অভিনেত্রী ‘বিলকিস বারী’।

কেমন অভিনেত্রী ছিলেন তিনি? দু’টি গল্প শুনুন তাকে নিয়ে তাহলে হয়তো উপলব্ধি করতে পারবেন। গল্পগুলো বলেছেন অভিনেতা এটিএম শামসুজ্জামান। তিনি বলেন, ‘বিলকিস বারী খুব বড় মাপের অভিনেত্রী ছিলেন। তার দু’টি ঘটনা আমার সামনে ঘটেছে।

এক. আমাদের এলাকায় মাওলা সরদারের উঠোনে একটি নাটক হচ্ছিল। এতে অভিনয় করছিলেন বিলকিস। এসময় তার স্বামী বারী সাহেব এসে বললেন, ‘তোমাকে নাটক করতে দেয়া হবে না। এক্ষুনি আমার সঙ্গে যাবে।’ তখন বিলকিস বলেছিলেন, ‘এখন তো আমার স্টেজ। এই সময় আমি যেতে পারব না। একটু পরই শো শুরু হবে।’ এরপর বারী বললেন, ‘যদি সঙ্গে যাও তবে ভালো, আর যদি না যেতে চাও তবে এই মুহূর্তে আমি তোমাকে লিখিতভাবে তালাক দিব।’ এ কথা শুনে আমরা সবাই ঘাবড়ে গেলাম। কিন্তু বিলকিস বললেন, ‘ঠিক আছে তালাক দাও।’ বারী সাহেব তাৎক্ষণিকভাবে ঐখানে তালাকনামা লিখে দিলেন। আর বিলকিস ওই তালাকনামা আঁচলে বেঁধে স্টেজে অভিনয় করলেন।’

দ্বিতীয় ঘটনা প্রসঙ্গে এটিএম শামসুজ্জামান বলেন, ‘নির্দেশক আলী ইমাম। তিনি খুব সিনসিয়ার পরিচালক ছিলেন। ৭টা ১মিনিটে তার পর্দা উঠতেই হবে। তাই সব শিল্পী যথাসময় উপস্থিত হয়েছিলেন। কিন্তু ওই দিন প্রথম দৃশ্য ছিল বিলকিস বারীর। কিন্তু তিনি আসলেন প্রায় সাড়ে ৭টায়। তিনি আসার পর আলী ইমাম যতটুকু পারলেন তিরস্কার করলেন। তারপর নাটকের পর্দা উঠলো। নাটকের শেষ পর্যায়ে বিলকিস বারী ইমামকে বললেন, ‘এ দিকে আয়। তুই যে আমাকে গালাগালটা করলি, কেন আমি দেরি করেছি তা শোন, আজ আমার ছেলেটা মারা গিয়েছে। ছেলেটার দাফন শেষ করে তোর স্টেজে এলাম। এ কথা শুনে ইমাম বিলকিসের পা ধরে হাউ-মাউ করে কান্না জুড়ে দেন।’

এবার ভিডিওটি দেখুন:

সূত্র: একাত্তর টিভি

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।