পৃথিবীর দামি ঘড়ির অন্যতম রোলেক্স, আসল নকল কীভাবে চিনবেন (ভিডিও)

0

ফিচার ডেস্ক:

হাতঘড়ি যারা ব্যবহার করেন, তাদের পছন্দ তালিকার শীর্ষে রয়েছে রোলেক্স কোম্পানির ঘড়ি। এ ঘড়ি দুনিয়ার সবচেয়ে দামি ঘড়ির একটি। ভিন্টেজ রোলেক্স ঘড়ির একটির দাম প্রায় ১৫ কোটি টাকা। রোলেক্স সাবমেরিনার মডেলের সবচেয়ে কম দামে যে ঘড়িটি পাওয়া যায়, তার দামও ৫ হাজার ডলার বা ৪ লাখ ২৫ হাজার টাকা।

রোলেক্স কোম্পানির ঘড়ির এত বেশি দাম হওয়ার কারণ হলো- এই ঘড়ি বানাতে সময় লাগে ১ বছর।

প্রতিটি ঘড়ির ওপর নানা ধরনের পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালানোর পরেই একটি ঘড়ি বাজারে ছাড়া হয়। আর বিক্রি হয়ে যাওয়ার পর রোলেক্স বেশ লম্বা সময় ধরে ব্যবহারকারীদের ভালো সার্ভিস দিয়ে থাকে।

রোলেক্স ঘড়ি হাতে পরলে খুলে পড়ে যাবে কিনা তা বিক্রির আগে পরীক্ষা করা হয় অসংখ্যবার। নির্মাতারা জানান, একটি রোলেক্স ঘড়ি ৫ থেকে ৩০ বছর পর্যন্ত ব্যবহার করা যায় অনায়াসে। আর যদি খুব যত্ন সহকারে ব্যবহার করা হয়, তবে ১০০ বছরেও এ ঘড়ির কিছুই হবে না।

আসল সুইস রোলেক্স ঘড়ি কিভাবে চিনবেন?

আসল সুইস রোলেক্স ঘড়ি অত্যন্ত মূল্যবান। আর এ কারণে বাজারে প্রচুর নকল সুইস রোলেক্স ঘড়ির দেখা মেলে। আসল ঘড়িটি চেনাও সহজ কাজ নয়। কিন্তু কয়েকটি বিষয় রয়েছে, যা মিলিয়ে নিলে আপনি সহজেই চিনতে পারবেন আসল রোলেক্স ঘড়ি।

বিশ্বে রোলেক্স প্রথম বাজারে এনেছিল পানিরোধক ঘড়ি। সর্বপ্রথম দিন ও তারিখ স্বয়ংক্রিয়ভাবে পরিবর্তন করার প্রযুক্তিও ঘড়িতে সংযোজন করে রোলেক্স। অতীতকাল থেকেই নানা সুযোগ-সুবিধা ও নিখুঁত সময়ের কারণে রোলেক্সের ঘড়িগুলো আভিজাত্য আর বিলাসিতার পরিচায়ক। আজকের দিনেও রোলেক্সের ঘড়ি অন্যান্য ঘড়ির তুলনায় অনেক দামি।

মজার ব্যাপার হলো, সঠিকভাবে ঘড়ি চিনতে না পারার কারণে এর আগে ভারতে একদল চোর ১৭ লাখ টাকা দামের রোলেক্স ঘড়ি চুরি করে মাত্র ১০০ রুপিতে বিক্রি করেছিল।

রোলেক্স ঘড়ির যে বিষয়গুলো দেখে এটি আসল না কি নকল চিনবেন-

১. ফিনিশিং দেখুন। কোনো বানান ভুল কিংবা অস্পষ্ট লেখা রয়েছে কি না, দেখে নিন। এরকম থাকলে ঘড়িটি নকল বলে সন্দেহ করার কারণ রয়েছে।

২. রোলেক্স ঘড়ি অটোমেটিক চলে। অর্থাৎ হাতের নড়াচড়া থেকেই এটি শক্তি সঞ্চয় করে। এ কারণে ঘড়িটি যদি ব্যাটারিচালিত হয় তাহলে তা রোলেক্স নয়। ব্যাটারিচালিত ঘড়িগুলোর সেকেন্ডের কাঁটা টিক টিক করে (লাফিয়ে) চলবে। অন্যদিকে রোলেক্স ঘড়ির সেকেন্ডের কাঁটা মসৃণভাবে ঘুরতে থাকবে।

৩. রোলেক্স ঘড়ির ডায়ালের নিচের দিকে একটি ইউনিক সিরিয়াল নাম্বার থাকে। এ নম্বরটি অন্য কোনো ঘড়ির সঙ্গে মিলবে না। আপনি যদি অন্যান্য সব লক্ষণ একই পান তার পরেও দোকান থেকে কেনার সময় আরেকটি একই মডেলের ঘড়ির সঙ্গে মিলিয়ে দেখুন। উভয় নাম্বার আলাদা হলে ঘড়িটি আসল সুইস রোলেক্স ঘড়ি।

ভিডিওতে দেখুন আরো কিছু তথ্য-

Spread the love
  • 29
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    29
    Shares

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।