শান্তির আশায় সুদানি নেতাদের পায়ে চুমু খেলেন পোপ!

0

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

ক্যাথলিক খ্রিস্টানদের ধর্মগুরু পোপ ফ্রান্সিস তাদের সামনে অবনত মস্তকে উবু হয়ে পড়ে, তাদের পায়ে চুমু খাচ্ছেন। আর তা দেখে দক্ষিণ সুদানের প্রেসিডেন্ট সালভাকির সহ দেশটির কয়েকজন নেতা হতভম্ব হয়ে গেলেন।

এ সময় পোপ তাদের আকুতি জানিয়ে বলেন, যুদ্ধ কোরো না, শান্তির পথে দৃঢ় থাক। কারণ যুদ্ধ সবকিছু তছনছ করে দেয়। মনে রেখ, যুদ্ধে সবকিছু কেড়ে নেয়।

বৃহস্পতিবার এমনিভাবে পোপ তার হাঁটুতে হাত রেখে দক্ষিণ সুদানের নেতাদের সামনে শান্তির আহবান জানান। দক্ষিণ সুদানের সরকার ও বিরোধী দলের মধ্যে সহবস্থান বজায় রাখতে পোপ এমনিভাবে আবেদন জানান।

তিনি বলেন, তাদের মধ্যে যেন বিদ্যমান শান্তি অটুট থাকে। ভ্যাটিকানে পোপ দুদিনের আধ্যাত্মিক কর্মসূচি পালন শেষে দক্ষিণ সুদানের নেতাদের পোপ বলেন, আমি হৃদয়ের অভ্যন্তর থেকে আপনাদের শান্তির আহবান জানাচ্ছি। পবিত্র বাইবেল স্পর্শ করে তিনি তাদের শপথ নেন। দক্ষিণ সুদানের প্রেসিডেন্ট সালভা কির ও বিরোধীদলীয় নেতা রিক মাচারের হাত ধরে পোপ তার বুকে স্থাপন করেন। এবং বলেন, শান্তিতে অবস্থান বজায় রাখুন।

পোপ ফ্রান্সিস তাদের উদাত্ত আহবান জানিয়ে বলেন, আপনাদের মধ্যে যে বিরোধ রয়েছে, যুদ্ধময় পরিস্থিতি বিরাজ করছে তা অফিসের মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখুন।

পোপ তাদের বলেন, যুদ্ধবিরতির প্রতি একে অপরেকে শ্রদ্ধা জানান। ঐক্যবদ্ধ সরকার গঠন করুন। কিন্তু জনগণের সামনে একে অপরের হাত ধরে একাত্মতা বজায় রাখুন এবং আপনাদের এ ঐক্যবদ্ধ ভূমিকায় দক্ষিণ সুদানের মানুষ শান্তির পথ খুঁজে পাবে এবং আপনারা জাতির পিতা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হবেন।

একটি ছোট কক্ষে দক্ষিণ সুদানের নেতা, শীর্ষ সরকারি কর্মকর্তা ও বিরোধী নেতাদের মুখোমুখি বসেছিলেন পোপ। তাদের পোপ আরো বলেন, ঈশ্বর আপনাদের অবলোকন করছেন। আপনাদের বিবেক ও দৃষ্টিভঙ্গীও সবকিছু অবলোকন করছে। আপনাদের জনগণও অবলোকন করছে এবং সকলের ইচ্ছা হচ্ছে দক্ষিণ সুদানে ন্যায়বিচার, সমঝোতা ও শান্তি প্রতিষ্ঠা করা। এজন্যে এক অভিন্ন পথ খুঁজে নেয়ার আহবান জানিয়ে পোপ বলেন, আর বিভক্ত হবেন না। অতীতের দ্বন্দ্বে জনগণ ক্লান্ত হয়ে পড়েছে। অনুসন্ধানের মধ্যে দিয়ে নিজেদের মতপার্থক্য দূর করার পথ অনুসরণ করুন। মনে রাখবেন যুদ্ধ সবকিছু ধংস করে।

Spread the love
  • 763
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    763
    Shares

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।