সিনেমা হল বন্ধ হচ্ছে না

0

বিনোদন ডেস্ক:

দেশের চলচ্চিত্রপ্রেমীদের জন্য অবশেষে সুখবর। আগামী ১২ এপ্রিল থেকে দেশের সব সিনেমা হল বন্ধ করে দেয়ার যে ঘোষণা দিয়েছিলেন হল মালিকরা তা প্রত্যাহার করে নিয়েছে চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতি।

সচিবালয়ে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদের সঙ্গে বৈঠকের পর সমিতির সভাপতি ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ এবং প্রধান উপদেষ্টা সুদীপ্ত কুমার দাস এ সিদ্ধান্তের কথা জানান।

সভায় সুদীপ্ত কুমার দাস গণমাধ্যম কর্মীদেরকে বলেন, ‘তথ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক ফলপ্রসূ হয়েছে। তাই সিনেমা হল বন্ধ না রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘সিনেমা হলই যদি বন্ধ হয়ে যায়, তাহলে সিনেমা দেখানো হবে কোথায়! দেশের চলচ্চিত্র বাঁচাতে হলে সিনেমা হল বাঁচাতে হবে। আগে তো সপ্তাহে দুটি সিনেমা মুক্তি পেত, এখন তো একটাও দেখা যায় না।’

হল মালিকদের দাবি প্রসঙ্গে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘তারা বিদ্যুৎ বিলের বাণিজ্যিক হার এবং ‘পিক আওয়ার’ হার রেয়াতের দাবি জানিয়েছেন। মন্ত্রণালয় থেকে আগেই এ বিষয়ে বিদ্যুৎ বিভাগে যোগাযোগ করা হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে আবারও আলোচনা হবে। দেশি ছবি রপ্তানির বিপরীতে ভারতীয় ছবি আমদানির ছাড়পত্র পেতে যে বিলম্ব হতো, তাও দূর করা হবে।’

তথ্যমন্ত্রী উক্ত সভায় এও আশ্বাস দেন, ‘নির্দিষ্ট সংখ্যক উপমহাদেশীয় ভিন্ন ভাষার বিশেষ করে বলিউডের হিন্দি ছবি আমদানির যে দাবি হল মালিকরা করেছেন, চলচ্চিত্র প্রযোজক, পরিচালক, শিল্পী-কলাকুশলী সকলের সঙ্গে আলোচনা করে এ বিষয়ে যৌক্তিক সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।’

গত ১৩ মার্চ ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে এক সংবাদ সম্মেলনে সিনেমা হল মালিকদের সংগঠন বাংলাদেশ প্রদর্শক সমিতির নেতারা সিনেমা হল বন্ধ রাখার ঘোষণা দেন।

তারা জানান, বিদেশি ছবি আমদানি করার ক্ষেত্রে সহজ নীতিমালা ও ছবি নির্মাণ বাড়ানোর বিষয়ে সরকার উদ্যোগ না নিলে আগামী ১২ এপ্রিল থেকে দেশের সব প্রেক্ষাগৃহ বন্ধ থাকবে। মঙ্গলবার তথ্যমন্ত্রীর আশ্বাসের পর সেই সিদ্ধান্তই প্রত্যাহার করলেন সিনেমা হল মালিকরা।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।