ছাত্রীকে অফিস কক্ষে ধর্ষণ, ফেনীতে মাদ্রাসার অধ্যক্ষ আটক

0

ফেনী সংবাদদাতা:

এক ছাত্রীকে যৌন হেনস্তার অভিযোগে ফেনীর সোনাগাজী ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ এসএমএস সিরাজ উদ্দৌলাকে আটক করেছে পুলিশ। আজ বুধবার দুপুরে মাদরাসা থেকে তাকে আটক করা হয়।

ওই ছাত্রীর বড় ভাই মাহমুদুল হাসান নোমান জানান, সকালে সোনাগাজী ফাজিল মাদ্রাসার আলিম দ্বিতীয় বর্ষের ওই ছাত্রীকে নিজ অফিস কক্ষে ডেকে নেন অধ্যক্ষ এসএমএস সিরাজ উদ্দৌলা। এরপর কৌশলে দরজা বন্ধ করে তার ওপর ঝাঁপিয়ে পড়েন পশুর মত। জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন তাকে। ধ্বস্তাধ্বস্তিতে ছাত্রীটির মাথা ঠুকে যায় টেবিলের পায়ার সাথে লেগে। সেই অবস্থাতেও নিস্তার দেয়নি অধ্যক্ষ সিরাজ উদ্দৌলা।

ধর্ষণের ফলে অধ্যক্ষের কক্ষেই অজ্ঞান হয়ে পড়ে থাকেন ওই ছাত্রী। তারপর চোখেমুখে পানির ছিটা দিয়ে তার জ্ঞান ফেরানো হয়। তখন তাকে হুমকি দেয়া হয় যেন এসব নিয়ে উচ্চবাচ্য না করা হয়। এভাবে আহত অবস্থায় বাড়ি ফিরে যান ওই ছাত্রী।

বাড়িতে নিয়ে তার অবস্থা দেখে তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয় প্রথমে। তারপর তিনি অধ্যক্ষ সিরাজ উদ্দৌলার বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ করেন। জানা গেছে, এর আগেও অধ্যক্ষ সিরাজ উদ্দৌলা একাধিকবার তাকে যৌন হেনস্তার চেষ্টা চালিয়েছেন।

সোনাগাজী মডেল থানা পুলিশের পরিদর্শক (ওসি) মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন, ওই ছাত্রীর পরিবারের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে অধ্যক্ষ এসএমএস সিরাজ উদ্দৌলাকে আটক করা হয়েছে।

ভিডিও ফাঁসের হুমকি দিয়ে ৩ বছর ছাত্রী ধর্ষণ, ইমাম গ্রেপ্তার

ঢাকার দোহারে এক কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে ফরহাদ মোল্লা (৪০) নামের এক ইমামকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

জানা যায়, প্রায় ৩ বছর পূর্বে মধুরচর জামে মসজিদের ইমাম হিসেবে যোগদান করা ফরহাদ মোল্লার সাথে কিশোরীর বাবা আব্দুল জব্বারের সুসম্পর্ক গড়ে উঠলে কিশোরী মেয়েকে তার কাছে আরবি পড়তে দেন। কিছুদিন যেতে না যেতেই ইমাম ফরহাদ কিশোরীকে ভয়ভীতি দেখিয়ে যৌন হয়রানি করতে থাকে এবং কৌশলে তা ভিডিও করেন এবং কিছু ছবি তুলেন।

গত ৩ বছর বছর যাবত সেই সব ভিডিও এবং ছবি ফাঁসের ভয় দেখিয়ে নিয়মিত কিশোরীকে ধর্ষণ করে আসছিলেন ফরহাদ মোল্লা। তবে ১ বছর আগে ঘটনাটি ফাঁস হয়ে গেলে মসজিদ কমিটি সালিশের ব্যবস্থা করেন। ফরহাদ সালিশে উপস্থিত না হওয়ায় তাকে চাকুরী থেকে অব্যাহতি দেয় মসজিদ কমিটি। তবে ফরহাদ ভুক্তভোগী পরিবারটিকে নানা মাধ্যমে হুমকি দিতে থাকেন এবং কিশোরীকে ভয় দেখিয়ে অব্যাহতভাবে ধর্ষণ করতে থাকেন। পরে মেয়েটির বাবা ইমাম ফরহাদের বিরুদ্ধে দোহার থানায় ধর্ষণ মামলা করলে পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।