২০৫০ সালে মুসলমান প্রধান দেশ হবে রাশিয়া!

0

ফিচার ডেস্ক:

জনসংখ্যার হিসেবে দিনে দিনে পৃথিবীতে মুসলমানদের সংখ্যা বাড়ছে বলে দাবি করা হচ্ছে। বিশেষ করে একাধিক বিয়ে এবং পরিবার পরিকল্পনার অভাবকেই এর পেছনে মূখ্য কারন বলে বিশ্লেষকদের ধারণা। পাশাপাশি অন্যান্য ধর্মের অনুসারীদের ধর্মের প্রতি অনাগ্রহ, ধর্মত্যাগও একটা কারন। পরিসংখ্যানে দেখা যাচ্ছে বিশ্বে বর্তমানে ধর্মত্যাগী এবং ধর্মে অবিশ্বাসীরাই এগিয়ে রয়েছে সবচেয়ে বেশি।

এদিকে রাশিয়ায় গত কয়েক বছরে মুসলিমদের জনসংখ্যা বাড়ছে অনেক বেশি হারে। দ্রুত বর্ধমান জনসংখ্যার কারনে ইসলাম ধর্মে বিশ্বাসীদের সংখ্যা বাড়ছে ইউরেশিয়ার এই দেশটির মানুষেরা। এ বিষয়ে রাশিয়ার গ্র্যান্ড মুফতি রাভিল জাইনুদ্দিন বলেছেন, ২০৩৪ সালে রাশিয়ায় মোট জনসংখ্যার ৩০ ভাগই হবে মুসলিম। তবে যে হারে মুসলিম সংখ্যা বৃদ্ধি হচ্ছে সেভাবে মসজিদ নির্মাণ হচ্ছেনা রাশিয়ায়। সেকারণে নামাজ আদায়ে মসজিদের সংকট দেখা দিয়েছে বলে জানান তিনি।

দিন দিন মুসলিম সংখ্যা বাড়াতে এমন পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে বলে জানিয়েছেন দেশটির মুসলিম অধিবাসীরা।

গণমাধ্যম দ্য মস্কো টাইমস জানিয়েছে, গত সোমবার রাশিয়ার ফেডারেল অ্যাসেম্বলির নিম্নকক্ষে ‘স্টেট ডুমা’ আয়োজিত এক ফোরামে দেশটির অর্থোডক্স চার্চের প্রধান যাজক দিমিত্রি স্মির্নভ এসব তথ্য তুলে ধরেন। তিনি রাভিল জাইনুদ্দিনের বক্তব্যের সঙ্গে একমত পোষণ করে ওই ফোরামে জানিয়েছেন, রাশিয়ায় মুসলিম জনগোষ্ঠী বৃদ্ধির হার এভাবে অব্যাহত থাকলে ২০৫০ সালে মুসলিমরাই হবে রাশিয়ার সংখ্যাগরিষ্ঠ জনগোষ্ঠী।

নামাজ আদায়ে আরো অনেক মসজিদ নির্মাণ করতে হবে জানিয়ে গ্র্যান্ড মুফতি রাভিল জাইনুদ্দিন বলেছেন, ২০১৮ সালে রাশিয়ার মসজিদগুলোতে প্রায় ৩২ লাখ মুসলিম অংশগ্রহণ করেছে। এ সংখ্যা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে।

২০১৮ সালের হিসাব অনুযায়ী রাশিয়ায় মুসলিম জনগোষ্ঠীর সংখ্যা প্রায় ২০ কোটি, যা রাশিয়ার মোট জনসংখ্যার ১৫ শতাংশ। রাশিয়ার মোট জনসংখ্যা ছিল ১৪৬.৮ মিলিয়ন।

রাশিয়ায় নর্থ কাউকাসুস ও তাতারাস্তান অঞ্চল দুটি দেশটির মুসলিম প্রধান অঞ্চল হিসেবে পরিচিত। এই দুই প্রজাতন্ত্রে উচ্চহারে মুসলিম জনসংখ্যা বাড়ছে বলে জানিয়েছে রাশিয়ার জনপরিসংখ্যান রিপোর্ট। এছাড়াও রাশিয়ার রাজধানী মস্কোসহ সেন্ট পিটার্সবার্গ এবং ইয়েকাতেরিনবার্গ মুসলিমদের আধিক্য রয়েছে।

Spread the love
  • 460
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    460
    Shares

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।