৩ কেজির টাকা নিয়ে ১ কেজি গাঁজা দেয়ায় ৯৯৯ এ ফোন!

0

কুমিল্লা সংবাদদাতা:

জাতীয় হেল্প ডেস্ক- ৯৯৯ নাম্বারে ফোন করে সাহায্য চেয়ে দ্রুত সমাধান পাওয়ার ঘটনাগুলো দেশব্যাপী মানুষের মাঝে আস্থা ফিরিয়ে এনেছে। এরই প্রেক্ষিতে আজ ভোর ৬টায় কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া থানার এসআই মোঃ জাকির হোসেনের কাছে ফোন আসে জরুরি পুলিশ সেবা ৯৯৯ থেকে। জানানো হয় ব্রাহ্মণপাড়া বাজারে এক নারী গাঁজা ব্যাবসায়ী রয়েছে।

সারারাত ডিউটি শেষে সবে থানায় ফিরেছেন এই পুলিশ কর্মকর্তা। রেস্ট নেয়ার সময় হলো না তার। ফোর্সসহ ছুটে গেলেন আসামী ধরতে। তবে ঘটনাটা যে এমন হতে পারে তা ঘুণাক্ষরেও আন্দাজ করতে পারেননি তিনি। পুলিশ আসার আগেই স্থানীয় পাইকারি মাদক কারবারি পালিয়ে যায়।

তবে পুলিশের কাছে সাহায্য চেয়ে ৯৯৯ এ ফোন দেয় খুচরা ব্যাবসায়ী নারী। পরে গাঁজা ব্যবসায়ী সালমা বেগম (৪০) কে আটক করে পুলিশ।

ঘটনার বিবরনে জানা যায়, গাঁজা বিক্রেতা সালমা থাকেন নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায়। স্বামীর নাম জসিম উদ্দিন। আসল বাড়ি বরিশালের মুলাদীতে। কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া সীমান্ত এলাকার মাদক ব্যাবসায়ী আব্দুল রহিমের কাছ থেকে গাঁজা কিনে নিয়ে বিক্রি করেন তিনি ও তার স্বামী।

ঘটনার দিন গতকাল শনিবার সকালে ৩ কেজি গাঁজার জন্য রহিমকে টাকা দেয় সালমা। ৩ কেজির টাকা নিয়ে তাকে গাঁজা দেয় ১ কেজি। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে বাকবিতণ্ডা হয় রহিমের সাথে। এক পর্যায়ে জরুরি পুলিশ সেবা ৯৯৯ এ ফোন দিয়ে বিস্তারিত জানায় সালমা। তাৎক্ষণিক ব্রাহ্মণপাড়া থানায় জানানো হয় ৯৯৯ থেকে। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর আগেই কৌশলে সটকে পরে পাইকারি ব্যাবসায়ী রহিম মিয়া। পক্ষান্তরে ১ কেজি গাঁজাসহ আটক করা হয় সালমা বেগমকে।

এ বিষয়ে এসআই জাকির হোসেন জানান, ধৃত আসামী সালমা ও পলাতক মাদক কারবারি শশিদল এলাকার আবুল হোসেনের পুত্র আব্দুল রহিমকে আসামী করে ব্রাহ্মণপাড়া থানায় মাদক আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। যার মামলা নং- ৯৭১।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।