নওগাঁর ২য় নীলগাইটি দিয়ে হবে বিলুপ্তপ্রায় প্রজাতির বংশবিস্তার

0

নওগাঁ সংবাদদাতা:

চোরাশিকারীদের কারনে বিপন্নপ্রায় প্রাণী নীলগাই বাংলাদেশ থেকে বিলুপ্ত হয়েছে অনেক আগেই। তবে আকস্মিকভাবে ২টি নীলগাই বাংলাদেশে পাওয়া যাওয়ায় এখন এর বংশবিস্তারের স্বপ্ন দেখছেন বন্যপ্রাণী কর্মকর্তারা। কয়েক মাসের ব্যবধানে ঠাকুরগাঁও ও নওগাঁয়ে গ্রামবাসীর হাতে ধরা পড়ে বন্যপ্রাণী দুটি। বাংলাদেশে এখন বন্য নীলগাইয়ের সংখ্যা ২ বলে জানান কর্মকর্তারা।

গত বছর ৫ সেপ্টেম্বর ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈলে আহত অবস্থায় ধরা পড়ে একটি মাদি নীলগাই। চিকিৎসার পর সুস্থ হলে সেটিকে রাখা হয়েছে দিনাজপুরের রামসাগর জাতীয় উদ্যানে। এবার ২য়টি ধরা পড়ে গত মঙ্গলবার (২২ জানুয়ারি) নওগাঁর মান্দা উপজেলায়, এটি বিরল প্রজাতির পুরুষ নীলগাই। এটিকে রামসাগর জাতীয় উদ্যানে মাদি নীলগাইটির সঙ্গে রাখার প্রাথমিক সিদ্ধান্ত নিয়েছে বন বিভাগ।

পুরুষ নীলগাইটি বর্তমানে রাজশাহী বন্যপ্রাণী ও পরিচর্যা কেন্দ্রে রাখা হয়েছে। সেখানে তার চিকিৎসা চলছে।

মঙ্গলবার সকালে মান্দায় নীলগাইটি ধরা পড়ার পর রাতে এটি আনা হয় রাজশাহীতে। এরপর পরিচর্যা কেন্দ্রের ভেতরের প্রাকৃতিক পরিবেশে একে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। চলছে চিকিৎসাও।

রাজশাহী চিড়িয়াখানার ভেটেরিনারি সার্জন ডা. ফরহাদ উদ্দিনের অধীনে চিকিৎসা চলছে প্রাণীটির। ডা. ফরহাদ বলেন, উদ্ধারের সময় পায়ে, পেটে ও রানের কাছে আঘাত পেয়েছিল নীলগাইটি। এতে শরীরের ওই স্থানগুলোতে কেটে ছড়ে গেছে। অ্যান্টিবায়োটিকসহ বেশ কয়েকটি ওষুধ প্রয়োগ করা হয়েছে। আশা করা হচ্ছে ২/৩ দিনের মধ্যে পুরোপুরি সুস্থ হয়ে উঠবে নীলাগাইটি।

নীলগাই তৃণভোজী প্রাণী। সারাদিন পাকা কলা, টমেটোসহ বিভিন্ন ধরনের সবজি দেওয়া হচ্ছে তাকে। কিন্তু মুখে নিচ্ছে না তেমন কিছু। ডা. ফরহাদ জানান, এটি ধরতে গ্রামের মানুষের প্রাণপণ চেষ্টা, চিৎকার, হই-হুল্লোড়ে প্রাণীটি আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে। আতঙ্ক কেটে গেলে খাওয়া-দাওয়া শুরু করবে।


ছবি: ঠাকুরগাঁওয়ে পাওয়া গেছে যে নীলগাইটি

নীলগাইটি কোথায় রাখা হবে তার সিদ্ধান্ত নিতে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের পরামর্শ চাওয়া হয়েছে বলে জানান রাজশাহী বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা জিল্লুর রহমান। ঢাকা থেকে সিদ্ধান্ত আসার পর এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবে প্রাথমিকভাবে সিদ্ধান্ত হয়েছে নীলাগাইটি দিনাজপুর রামসাগর জাতীয় উদ্যানে পাঠানো হবে।

দিনাজপুর বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা আবদুর রহমান জানান, গত ৫ সেপ্টেম্বর ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল থেকে একটি মাদি নীলগাই উদ্ধার করা হয়। সেটি দিনাজপুরের রামসাগর জাতীয় উদ্যানে রাখা হয়েছে। এখানেই রাখা হবে মান্দায় উদ্ধার হওয়া পুরুষ নীলগাইটি।

বাংলাদেশে এই প্রাণী বিলুপ্ত বলে জানান আবদুর রহমান। বিলুপ্তপ্রায় এই প্রাণীর সংখ্যা বাংলাদেশে এখন ২টিতে দাঁড়াল। সৌভাগ্যক্রমে এবারেরটি পুরুষ। দুটিই প্রাপ্তবয়স্ক। তাই তাদের একসঙ্গে রাখা হলে স্বাভাবিক নিয়মেই প্রজননের মাধ্যমে বংশবিস্তার করবে। ফলে বিলুপ্তপ্রায় এই বন্যপ্রাণীর সংখ্যা দেশে আবার বাড়ানো যাবে বলে আশা করছেন তারা।

গত মঙ্গলবার সকালে মান্দা উপজেলার জোতবাজার এলাকায় বিলুপ্তপ্রায় নীলগাইটি আটক করে এলাকাবাসী। বাজার এলাকায় উদ্দেশ্যহীনভাবে ছোটাছুটি করছিল প্রাণীটি। দেখতে পেয়ে গ্রামের শতাধিক বাসিন্দা ধাওয়া করে সেটি আটক করে। গ্রামের মধ্যেই প্রাণীটি বেঁধে রেখে পুলিশ ও প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তাদের খবর দেয় এলাকাবাসী। পরে সেখান থেকে নীলগাইটি উদ্ধার করা হয়।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।