পাহাড় ডিঙিয়ে, হেঁটে চলে বেড়াতেও পারে যে গাড়ি! (ভিডিও)

0

বিজ্ঞান ও তথ্য প্রযুক্তি ডেস্ক:

ব্যস্ত সড়কে গাড়ি ছুটছে। এই দৃশ্যই আমরা চিরকাল দেখে এসেছি। কিন্তু গাড়ি হাঁটছে, কখনও পাথুরে রুক্ষ পাহাড় বেয়ে খাড়া উঠে যাচ্ছে তরতর করে আবার রাস্তায় হাঁটতে হাঁটতে হঠাৎ করে সুড়সুড় করে নেমে গেল পানিতে সেখান থেকে তুলে আনলো কোনো বস্তু! এ রকম কথা শুনেছেন বা দেখেছেন কখনও? গাড়ি নিয়ে প্রচলিত চিন্তাধারার বাইরে গিয়ে সম্পূর্ণ বৈপ্লবিক এক পরিবর্তন নিয়ে এসেছে দক্ষিণ কোরিয়ার বিশ্বখ্যাত গাড়ি প্রস্তুতকারক সংস্থা হুন্দাই।

যুক্তরাষ্ট্রর লাস ভেগাসে সিইএস টেকনোলজির প্রদর্শনীতে তারা উপস্থিত করল ‘এলিভেট’ নামের বিশেষ ধরনের একটি গাড়ি। হুন্দাইয়ের নতুন উদ্ভাবন এলিভেট শুধু ছুটবে না হাঁটবেও। খাড়া জায়গায় চড়তেও পারবে। কারণ এই গাড়িতে চাকা ছাড়াও রয়েছে রোবটিক পা। যা দিয়ে হাঁটাচলা, উঁচু কোনো জায়গায় চড়তে পারবে এই গাড়ি।

মূলত বন্ধুর জায়গায় চলার জন্যই তৈরি করা হয়েছে এই গাড়ি। যে সব এলাকায় সাধারণ গাড়ি চলতে অক্ষম, সেই এলাকায় গিয়ে নিজের ক্ষমতা দেখাবে এলিভেট। পানির নিচে এবং মহাকাশেও এলিভেট কাজ করতে পারবে বলে জানিয়েছে গাড়িটির প্রস্তুতকারক সংস্থা।

দক্ষিণ কোরিয়ার কোম্পানিটি জানিয়েছে, যে কোনো জায়গায় যেতে পারবে এলিভেট গাড়িটি। এই গাড়ির ৪টি পা রোবটের মাধ্যমে নিয়ন্ত্রিত হবে। সিঁড়ি বেয়েও উঠে যেতে পারবে এই গাড়ি। পা নাড়িয়ে চলাফেরার সময় গাড়ির ভিতরে বসে থাকা যাত্রীর বিশেষ ঝাঁকুনি লাগবে না। বরফের মধ্যে এই গাড়ি আটকে গেলে হেঁটে রাস্তায় ফিরে আবার চলতে শুরু করবে।

ভিডিও:

হুন্দাই মোটর্স:

এটি একটি দক্ষিণ কোরিয় গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান। যার সদর দপ্তর সিওলে অবস্থিত। জাপানিজ প্রতিষ্ঠান টয়োটার পরই হুন্দাই এশিয়ার ২য় বৃহত্তম গাড়ি নির্মাতা। আর সারাবিশ্বের হিসেবে হুন্দাই এর অবস্থান ৪র্থ। ১৯৯৮ সালে দক্ষিণ কোরিয়ার ২য় বৃহত্তম গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠাত কিয়া মটোর্স অধিগ্রহণের মাধ্যমে হুন্দাই মোটর গ্রুপ গঠিত হয়। হুন্দাই মোটর্স কিয়া মোটর্সের ৪৯.২% শেয়ারের মালিক। স্যামসাং এবং এলজি গ্রুপের পরেই দক্ষিণ কোরিয়ার বৃহত্তম কোম্পানিরগুলোর হুন্দাই মোটর্স ৩য়।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।