৬ বছর থাকলেই ভারতের নাগরিকত্ব দেবেন মোদী

0

কলকাতা প্রতিনিধি:

বাংলাদেশসহ আফগানিস্তান ও পাকিস্থানের সংখ্যলঘুদের (অমুসলিমদের) ভারতে আশ্রয় দিতে ১৯৫৫ সালের নাগরিকত্ব আইন পরিবর্তন করতে চায় বর্তমান বিজেপি সরকার। সংসদে তোলা এ সংক্রান্ত একটি বিলে প্রস্তাব করা হয়েছে, দেশ ৩টি থেকে ভারতে যাওয়া অমুসলিমরা ১২ বছরের পরিবর্তে ৬ বছরের মধ্যেই নাগরিকত্ব পাবেন। যা শিগগিরই পাস করা হবে বলেও জানালেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

দেশটির সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে আসামে নাগরিকদের যে তালিকা (এনআরসি) তৈরির কাজ চলছে তাতে প্রায় ৪০ লাখ আসামবাসীর নাম বাদ পড়েছে। বিষয়টি নিয়ে ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে বাঙালিদের উৎকণ্ঠার শেষ নেই। ১৯৭১ সালের নথি সংগ্রহ করতে না পেরে ১০ লক্ষাধিক মানুষ নতুন করে আবেদন করতে পারেননি। তবে তাদের মধ্যে যারা অমুসলিম তাদেরকে আশ্বস্ত করলেন নরেন্দ্র মোদী।

আসামের কাছাড় জেলার শিলচরে শুক্রবার তিনি বলেছেন, ‘সমস্যার বিষয়ে আমি অবগত। কিন্তু আশ্বাস দিচ্ছি একজন ভারতীয় নাগরিকও বিপদে পড়বেন না।’

নাগরিকত্ব আইন (সংশোধনী) বিলের প্রসঙ্গ তুলে মোদী বলেন, ‘এটা মানুষের জীবন এবং আবেগের সঙ্গে যুক্ত। বিশেষ কারও সুবিধার জন্য এটা করা হচ্ছে না। করা হচ্ছে, অতীতের বহু ভুল এবং অন্যায়ের প্রতিকার করার জন্য।’

মোদীর ওই সভা ঘিরে গত কয়েকদিন ধরেই বিক্ষোভ করছিলেন শিলচরের মানুষ। সভায় না যাওয়ার আবেদন জানিয়ে একটি সংগঠন লিফলেটও বিলি করেছে। তবে প্রধানমন্ত্রীর হেলিকপ্টার মাটি ছোঁয়ার আগেই রাস্তায় জনতার ঢল নামে। মোদী সেই সুযোগ কাজেও লাগান। বলেন, ‘বরাকের দু’টি আসনই আমাদের দিন। আমার উপর ভরসা রাখুন।’

শবরীমালা মন্দিরে নারী প্রবেশ নিয়ে উত্তাপ, বোমা হামলা

এদিকে কেরালা রাজ্যের শবরীমালা মন্দিরে নারীর প্রবেশ নিয়ে উত্তাপ ক্রমেই বাড়ছে। গত শুক্রবার (৪ ডিসেম্বর) আরও এক নারীর মন্দিরে প্রবেশের ঘটনায় রাজ্যের দুই পার্লামেন্ট সদস্যের বাড়িতে বোমা ছোঁড়ে ক্ষুব্ধ আন্দোলনকারীরা। পরে এ বোমা হামলায় জড়িত সন্দেহে অন্তত ২০ জনকে আটক করা হয়।

জানা যায়, মন্দিরে প্রবেশকারী ৪৬ বছর বয়সী ওই নারী শ্রীলঙ্কার নাগরিক। কেরালার মুখ্যমন্ত্রীর কার্যালয় জানিয়েছে, শশীকলা নামের ওই নারীর জরায়ু অপসারণ করা হয়েছে এবং তিনি তার স্বামীকে সঙ্গে নিয়ে মন্দিরে প্রবেশ করেন।

Spread the love
  • 308
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    308
    Shares

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।