রামমন্দির স্থাপিত হলে নিজেই ইট লাগাবো: ফারুক আবদুল্লাহ

0

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

রামমন্দির সংক্রান্ত মামলার শুনানির দিন প্রকাশ্যে আসার পর থেকেই একের পর এক রাজনৈতিক প্রতিক্রিয়া সামনে আসতে শুরু করেছে। জম্মু-কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আবদুল্লাহ শুক্রবার এক বিস্ফোরক বক্তব্য পেশ করেন এই রামমন্দির নিয়ে।

ন্যাশনাল কনফারেন্স পার্টির চেয়ারম্যান ফারুক আবদুল্লাহ জানান, রামমন্দির সংক্রান্ত সমস্যা আলোচনার মাধ্যমেই সমাধান করা উচিত ছিল, এর জন্য আদালতে যাওয়া ঠিক হয়নি। রাম সকলের, আইন তৈরি করে রামমন্দির নির্মাণ উচিত কাজ নয়। যদি রামমন্দির স্থাপিত হয় তবে নিজে গিয়েই সেখানে ইট লাগাবো।

প্রসঙ্গত, উত্তর প্রদেশের অযোধ্যায় রাম মন্দির এবং বাবরি মসজিদ নিয়ে বিতর্ক দীর্ঘদিনের। যা শুরু হয়েছিল মোঘল জামানার প্রথম শাসক সম্রাট বাবরের সময়ে। মাঝে দেশে ইংরেজ শাসনের দীর্ঘ ইতিহাস রয়েছে। স্বাধীনতা লাভের সাত দশক পরেও যা মেটেনি। ১৯৯২ সালে বাবরি মসজিদ ধ্বংস করা হলে সেই বিতর্ক আরও চরমে ওঠে। ২০১০ সালে এলাহাবাদ হাইকোর্ট যে রায় দিয়েছিল, তার বিরুদ্ধে ১৪টি আবেদন ইতিমধ্যে জমা পড়েছে দেশের শীর্ষ আদালতে। এলাহাবাদ হাইকোর্ট তার রায়ে বিতর্কিত ২.৭৭ একর জমি সকল দাবিদারদের মধ্যে সমান তিন ভাগে ভাগ করে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিল।

লোকসভা ভোটের আগে ক্রমশ উত্তপ্ত হচ্ছে অযোধ্যার পরিস্থিতি। ভোটের আগেই রাম মন্দির নির্মাণের দাবিতে সরব হয়েছে একাধিক হিন্দুত্ববাদী সংগঠন। গত নভেম্বর মাসে একাধিক সংগঠন অযোধ্যায় গিয়ে রাম মন্দির নির্মাণের দাবিতে সভা করেছে। তালিকায় শিব সেনা, বিশ্ব হিন্দু পরিষদের মতো সংগঠন ছিল।

গত অক্টোবর মাসের শেষের দিকে সুপ্রিম কোর্ট জানিয়েছিল আগামী জানুয়ারি মাসের ৪ তারিখ অর্থাৎ আজ অযোধ্যার বিতর্কিত জমি সংক্রান্ত মামলার শুনানি শুরু হবে। শুনানি হবে ৩ সদস্যের নতুন বেঞ্চে। পরবর্তী ক্ষেত্রে ১০ই জানুয়ারি ঠিক হবে ওই বেঞ্চের সদস্য কারা হবেন। তারাই ঠিক করবেন পরবর্তী শুনানির দিন। শুনানি শুরুর ৬০ সেকেন্ডের মধ্যেই জানিয়ে দিলেন শীর্ষ আদালতের প্রধান বিচারপতি।

এদিন রাম জন্মভূমি-বাবরি মসজিদ মামলায় একাধিক আবেদন শোনার কথা ছিল সুপ্রিম কোর্টের। শীর্ষ আদালতের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ এবং বিচারপতি এস কে কৌল সহ তিন বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চে শুনানি শুরু হয়। শুনানির মাত্র এক মিনিটের মধ্যেই প্রধান বিচারপতি জানিয়ে দেন ১০ই জানুয়ারি তিন সদস্যের নতুন বেঞ্চে গঠিত হবে। তারাই ঠিক করবে কবে শুনানি হবে এই মামলার।

Spread the love
  • 29
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    29
    Shares

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।