উইণ্ডিজদের বিপক্ষে দাপুটে জয়ে এগিয়ে গেলো টাইগাররা

0

স্পোর্টস ডেস্ক:

খুব আহামরি কোনো লক্ষ্য ছিল না। মাত্র ১৯৫ রানের নিম্ন মাঝারি টার্গেট তাড়া করতে নেমে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারালেও জিততে বেগ পেতে হয়নি টাইগারদের। মুশফিকুর রহিমের হার না মানা অর্ধশতকে মিরপুরের প্রথম ওয়ানডে জিতে নিয়েছে স্বাগতিকরা ৫ উইকেটে।

লিটন দাস আউট হয়েছেন ৪১ রানে। আক্রমণাত্মক ব্যাটিংয়ে বড় ইনিংসের ইঙ্গিত দিয়েও সাকিব আউট ৩০ রানে। তবে ভুল করেননি মুশফিক, ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ৩১তম অর্ধশতক পূরণ করেন তিনি। তার হার না মানা ৫৫ রানে ভর করে ৮৯ বল হাতে রেখে ৫ উইকেট হারিয়ে জয় নিশ্চিত করে বাংলাদেশ। তাতে ৩ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে টাইগাররা এগিয়ে গেল ১-০তে।

বোলারদের দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের পর ব্যাটসম্যানদের কার্যকরী ব্যাটিংয়ে সহজ জয় দিয়ে ওয়ানডে সিরিজ শুরু করলো বাংলাদেশ। মাশরাফি ‍বিন মুর্তজা (৩/৩০) ও মোস্তাফিজুর রহমানের (৩/৩৫) অসাধারণ বোলিংয়ের সামনে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ওয়েস্ট ইন্ডিজ স্কোরে জমা করতে পারে ৯ উইকেটে ১৯৫ রান। এই লক্ষ্যটা ৩৫.১ ওভারেই টপকে গেছে বাংলাদেশ।

ব্যাট হাতে সবচেয়ে বেশি অবদান মুশফিকের। তামিম ইকবাল (১২) ও ইমরুল কায়েসকে (৪) দ্রুত হারিয়ে চাপে পড়া দলকে টেনে তোলেন তিনি তার কার্যকরী ব্যাটিংয়ে। লিটনের (৪১) সঙ্গে ৪৭ রানের জুটি গড়ার পর চতুর্থ উইকেটে সাকিবকে (৩০) নিয়ে যোগ করেন ৫৭ রান। সৌম্য সরকারের (১৯) সঙ্গে গড়া ২৯ রানের জুটিটাও বেশ গুরুত্বপূর্ণ।

শেষ পর্যন্ত দলের জয় নিশ্চিত করে তবেই মাঠ ছেড়েছেন এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান। ৭০ বলে হার না মানা ৫৫ রানের ইনিংসটি মুশফিক সাজিয়েছেন ৫ বাউন্ডারিতে। তার সঙ্গে ম্যাচ শেষ করা মাহমুদউল্লাহর ব্যাট থেকে এসেছে অপরাজিত ১৪ রান।

ম্যাচসেরা মাশরাফি

মুশফিক জয় নিশ্চিত করলেও ম্যাচ সেরার পুরস্কার জিতেছেন মাশরাফি। ক্যারিবিয়ানদের সংগ্রহ অল্পতে আটকে রাখতে বল হাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখার পুরস্কার হিসেবে ম্যাচের সেরা খেলোয়াড় বাংলাদেশ অধিনায়ক।

২৬ বলে ৩০ করে ফিরলেন সাকিব

ব্যাটে ঝড় তুললেন সাকিব আল হাসান। তাতে জয়ের সুবাসও পেতে শুরু করে বাংলাদেশ। কিন্তু ইনিংসটা লম্বা করতে পারলেন না। ২৬ বলে ৩০ রান করে ফিরে গেছেন তিনি।

শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ছিলেন সাকিব। তিনি যখন ক্রিজে আসেন, দলের রান তোলার গতি ছিল কম। ঝড়ো ব্যাটিংয়ে একের পর এক বল সীমানাছাড়া করে গতি তোলেন স্কোরে। ২৬ বলে ৪ বাউন্ডারিতে খেলে যান ৩০ রানের কার্যকরী ইনিংস। রোভম্যান পাওয়েলের বলে ‘বিগ’ শট খেলতে গিয়ে ধরা পড়েন তিনি উইকেটরক্ষক শাই হোপের গ্লাভসে।


ছবি: ম্যাচে তামিমের দূর্দান্ত ক্যাচ

বাজে শটে লিটনের ভালো ইনিংসের সমাপ্তি

চমৎকার ব্যাটিংয়ে বড় ইনিংসের ইঙ্গিত ছিল লিটন দাসের ব্যাটে। কিন্তু বাজে শট খেলে ভালো একটি ইনিংসের ইতি টেনে দিয়েছেন তিনি। তার আউটের পর বাংলাদেশের স্কোর ছাড়ায় ১০০।

‘নো’ বলে রক্ষা পেয়েছিলেন লিটন। কেমার রোচের বলে ‘দ্বিতীয় জীবন’ পাওয়া এই ব্যাটসম্যান সুযোগটা কাজে লাগিয়ে নিজের সঙ্গে দলীয় রান বাড়িয়ে নিচ্ছিলেন। চমৎকার ব্যাটিংয়ে হাঁটছিলেন অর্ধশতকের পথেও। কিন্তু ভুল শট নির্বাচনের খেসারত দিতে হলো তাকে।

কেমো পলের অফ স্টাম্প বরাবর বল মিডউইকেটের দিকে খেলতে চেয়েছিলেন। কিন্তু তার জোরে চালানো ব্যাটে বল না লাগলে সরাসরি আঘাত করে স্টাম্পে। বাজে শটে শেষ হয়ে যায় তার ৪১ রানের ইনিংস। বোল্ড হওয়ার আগে ৫৭ বলের ইনিংসে লিটন মেরেছেন ৪ বাউন্ডারি।

তামিমের বিদায়ের পরই ফিরলেন ইমরুল

প্রত্যাশা অনেক বেশি ছিল তামিম ইকবালকে ঘিরে। যদিও চোট কাটিয়ে ফিরে প্রথম প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচের স্মৃতিটা সুখকর হলো না তার। তার আউটে ধাক্কা খাওয়া বাংলাদেশ আরও চাপে পড়েছে ইমরুল কায়েসের বিদায়ে।

চোটের কারণে লম্বা সময় মাঠের বাইরে থাকতে হয়েছে তামিমকে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচ দিয়েই মাঠে ফিরেছিলেন তিনি। আর ফিরেই করেন সেঞ্চুরি। প্রস্তুতি ম্যাচের সেই আত্মবিশ্বাস নিয়ে ক্যারিবিয়ানদের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডে শুরু করলেও সুবিধা করতে পারেননি। মাত্র ১২ রান করে ফিরে যান তিনি। রোস্টন চেসের বলে সহজ ক্যাচ দেন দেবেন্দ্র বিশুর হাতে।

তার আউটের পরপরই ফিরে যান ইমরুল। ওয়ান ডাউনে নেমে মাত্র ২ বল খেলে ৪ রান করে বোল্ড হয়ে ফিরেছেন এই ব্যাটসম্যান। ওশানে থমাসের বলটা বুঝতেই পারেননি ইমরুল! দ্রুত ২ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায় বাংলাদেশ।

Spread the love
  • 146
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    146
    Shares

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।