ভুয়া তথ্য দেয়ায় হিরো আলমের মনোনয়নপত্র বাতিল

0

সময় এখন ডেস্ক:

জাতীয় পার্টির (জাপা) প্রার্থী হিসেবে বগুড়া-৪ আসনে মনোনয়ন না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়া অভিনেতা আশরাফুল ইসলাম আলম ওরফে হিরো আলমের মনোনয়ন বাতিল হয়েছে। রবিবার (২ ডিসেম্বর) মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয়ের দিনে এ সিদ্ধান্ত দেন নন্দীগ্রাম উপজেলা নির্বাচন অফিসার আশরাফ হোসেন।

তিনি গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়ার জন্য স্থানীয় ভোটারদের ১ শতাংশের সমর্থনসূচক কাগজে গোঁজামিল থাকায় আশরাফুল আলম ওরফে হিরো আলমের মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে।

উপজেলা নির্বাচন অফিসার আশরাফ জানান, ‘হিরো আলম সমর্থক ভোটারদের স্বাক্ষর-সম্বলিত যে তালিকা জমা দিয়েছেন তা যাচাই করা দেখা গেছে, তিনি ভুয়া ভোটারদের তালিকা জমা দিয়েছেন।’

সিডি ব্যবসায়ী থেকে তারকা বনে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যাপক আলোচিত হয়েছেন বগুড়ার আশরাফুল ইসলাম আলম ওরফে হিরো আলম। বগুড়া সদরের এরুলিয়া গ্রামে সিডি বিক্রি এবং পরে কেবল সংযোগের ব্যবসা করতেন হিরো আলম। পরে কেবল সংযোগের ব্যবসার সুবাদে মিউজিক ভিডিও তৈরি শুরু করেন। প্রায় ৫০০ মিউজিক ভিডিও এবং ৮০টি ইউটিউব চলচ্চিত্র ছড়িয়ে পড়লে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোয় তাকে নিয়ে ট্রল হয়। ‘মার ছক্কা’ নামে একটি চলচ্চিত্রেও নায়ক চরিত্রে অভিনয় করেন তিনি। বলিউড পরিচালক প্রভাত কুমারের ‘বিজু দ্য হিরো’ নামে একটি চলচ্চিত্রে চুক্তিবদ্ধও হয়েছেন তিনি। ইয়াহু ইন্ডিয়ার জরিপ অনুযায়ী, ভারতের জনপ্রিয় অভিনেতা সালমান খানের চেয়েও হিরো আলমকে বেশিবার খোঁজা হয়েছে।

কাহালু উপজেলা এবং নন্দীগ্রাম উপজেলা নিয়ে গঠিত বগুড়া-৪ আসনে শাসক দল আওয়ামী লীগ কোনও প্রার্থী দেয়নি। এই আসনে ১৪ দলীয় জোটের হয়ে প্রার্থী হয়েছেন বর্তমান সংসদ সদস্য জাসদ (ইনু)-র এ কে এম রেজাউল করিম তানসেন। আসনটিতে কৌশলগত কারণে বিএনপি প্রাথমিকভাবে তিন জন প্রার্থী দিয়েছে। এরা হচ্ছেন জিয়া শিশু-কিশোর সংগঠনের কেন্দ্রীয় সহসভাপতি মোশারফ হোসেন, সাবেক সংসদ সদস্য জিয়াউল হক মোল্লা এবং জেলা বিএনপির সভাপতি সাইফুল ইসলাম। এছাড়াও স্বতন্ত্র হিসেবে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী রয়েছেন কাহালু উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক কামাল উদ্দিন কবিরাজ। আসনটিতে জামায়াত থেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন জেলা জামায়াতে ইসলামীর সাবেক নায়েবে আমির ও কাহালু উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ মাওলানা তায়েব আলী, জামায়াত নেতা অধ্যাপক আহছানুল হক, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মো. ইদ্রিস আলী, তরীকত ফেডারেশনের কাজী এম এ কাশেম ও এনপিপির আয়ুব আলী।

Spread the love
  • 242
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    242
    Shares

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।