‘সমকামী’ উল্লেখ করায় রাখীকে বিকৃত চরিত্রের বললেন তনুশ্রী

0

বিনোদন ডেস্ক:

বলিউডে #মিটু ক্যাম্পেইনের পর প্রভাবশালী অভিনেতা নানা পাটেকারের বিরুদ্ধে গত আগস্টের শেষ দিকে যৌন হেনস্তার অভিযোগ এনেছিলেন ‘আশিক বানায়া আপনে’ খ্যাত সাবেক অভিনেত্রী তনুশ্রী দত্ত। বলেছিলেন, ২০০৮ সালে মুক্তি পাওয়া ‘হর্ণ ওকে প্লিজেস’ ছবির শুটিং সেটে নানা তাকে যৌন হয়রানি করেছিলেন। এ অভিযোগে নানার বিরুদ্ধে তিনি থানায় লিখিত অভিযোগও দায়ের করেন।

সেই অভিযোগের বিপরীতে ইন্ডাস্ট্রির সকল অভিনেত্রী ও নারী পরিচালকরা তনুশ্রীর পাশে দাঁড়ালেও শুরু থেকেই বিপক্ষে কথা বলে আসছেন বিতর্কিত অভিনেত্রী রাখি সাওয়ান্ত। নানার বিরুদ্ধে অভিযোগ করায় তনুশ্রীর বিরুদ্ধে তিনি সংবাদ সম্মেলন করেন। আলোচনায় আসার জন্য অভিনেতা নানার বিরুদ্ধে তনুশ্রী কুৎসা রটাচ্ছেন বলে সেই সংবাদ সম্মেলনে রাখি মন্তব্য করেন। এমনকী, সাহস থাকলে তনুশ্রী তার সামনে এসে কথা বলুক বলে চ্যালেঞ্জও জানান।

সেই রাখি দুদিন আগেও তনুশ্রীকে আক্রমণ করে কথা বলেন। তার বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ আনেন। তনুশ্রীকে তিনি সমকামী বলে উল্লেখ করেন। রাখি অভিযোগ করেন, ’১২ বছর আগে তনুশ্রী আমার ভালো বন্ধু ছিল। কিন্তু ও ছিল সমকামী। আমার শরীরে বিশ্রী ভাবে হাত দিত। আমাকে ধর্ষণও করেছে। ও নিয়মিত রেভ পার্টিতে যেত। সেখানে সারাক্ষণ নেশায় ডুবে থাকতো। আমাকেও জোর করে মদ খাওয়াতো।’

রাখির এমন সব অভিযোগকে রবিবার ফুৎকারে উড়িয়ে দিয়েছেন অভিনেত্রী তনুশ্রী দত্ত। বলেছেন, তিনি কখনোই সমকামী ছিলেন না। এমনকী, মদ পান করা বা সিগারেট টানার মতো বাজে কোনো অভ্যাসও তার নেই। রাখিকে তিনি বিকৃত চরিত্রের এক মহিলা বলে উল্লেখ করেন। তাকে পুরুষতন্ত্রের প্রতিনিধি হিসেবেও আখ্যায়িত করেন।

এদিকে তনুশ্রীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে ইতিমধ্যে ‘হাউজফুল ৪’ ছবি থেকে বাদ পড়েছেন অভিনেতা নানা পাটেকর। যৌন হেনস্তার দায় নিয়ে ছবি থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন পরিচালক সাজিদ খানও। নানা ও সাজিদকে ছাড়াই শুরু হয়েছে শুটিং। কিন্তু সম্প্রতি এই ছবির শুটিং সেট থেকেও উঠেছে যৌন হয়রানির একটি নয়া অভিযোগ। সব মিলিয়ে বিপাকেই রয়েছে ‘হাউজফুল’-এর চার নম্বর সিক্যুয়েলটি।

Spread the love
  • 42
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    42
    Shares

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।