জয়া আহসান ও শবনম ফারিয়া ‘দেবী’র টিকিট বিক্রেতা!

0

বিনোদন ডেস্ক:

মাছরাঙা টিভিতে সংবাদ পাঠ করে ছবি মুক্তির আগের দিন সবাইকে চমকে দেন ‘দেবী’র দুই মুখ চঞ্চল চৌধুরী ও জয়া আহসান। এর মাধ্যমে সারা দেশের আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে চলে যান তারা।

ছবিটির প্রচারণা চমক শেষ হয়নি এখনও। ১৯ অক্টোবর মুক্তির পর ‘দেবী’ টিম ছুটে চলেছে ঢাকা ও বাইরের প্রেক্ষাগৃহগুলোতে। তারই ধারাবাহিকতায় আজ (২৮ অক্টোবর) চট্টগ্রাম ট্যুরে আছেন রানু ও নীলু চরিত্রের জয়া আহসান ও শবনম ফারিয়া। বেলা ১২টায় তারা গিয়েছেন আলমাস হলে। সেখানে কিছুটা সময় দর্শকদের সঙ্গে কাটিয়ে ঢুকে পড়েছেন সিলভার স্ক্রিন হলে।

মজার বিষয় হচ্ছে, এই হলে গিয়ে দর্শকদের সঙ্গে দেখা না করেই জয়া আহসান ও শবনম ফারিয়া ঢুকে পড়েন টিকিট কাউন্টারে! টিকিট বিক্রেতাকে সরিয়ে দুজনেই বসে পড়েন চেয়ারে। এরপর টিকিট কাটতে আসা দর্শকরা এমন দৃশ্য দেখে পিলে চমকানোর মতো অবস্থা।

জয়া জানান, সেই কাউন্টারে তারা দুজন প্রায় আধা ঘণ্টা সময় টিকিট বিক্রি করেছেন।

জয়া বলেন, ‘আসলে আমরা গতানুগতিক কিছু করতে চাইনি। আমাদের ছবিটাও গতানুগতিক কিছু নয়। আমরা বরাবরই চাই দর্শকদের একটু সারপ্রাইজ দিতে, তাদের সঙ্গে একটু মজা করতে। এবং নানা আবহে মিশে যেতে। তো চট্টগ্রামের সিলভার স্ক্রিনে এসেও তাই করলাম। খুব মজা পেয়েছি টিকিট কাটতে আসা দর্শকদের চমকে দিয়ে। শিখে নিলাম কেমন করে টিকিট বিক্রি করতে হয়!’

জয়া আরও বলতে চাইলেন, সহশিল্পী শবনম ফারিয়া হাসপাতালের বিছানা থেকে উঠে এসেছে চট্টগ্রাম। এটা ‘দেবী’ টিমের জন্য অনেক বড় পাওয়া। তার ভাষ্যে, ‘এমন ডেডিকেশন আমাদের সবার মধ্যে থাকা জরুরি। তবেই আমরা একে অপরের হাত ধরে যেতে পারবো অনেকটা পথ।’

জয়া আরও জানান, সিলভার স্ক্রিনের দুপুরের শোয়ের সব টিকিট সোল্ড আউট।

‘দেবী’ ছবির বিপণন উপদেষ্টা রুম্মান রশীদ খান জানান, আগামীকালও তারা চট্টগ্রামে উপস্থিত থাকবেন। অংশ নেবেন ছবিটির নানাবিধ প্রচারণায়।

হুমায়ূন আহমেদের উপন্যাস অবলম্বনে সরকারি অনুদান নিয়ে জয়া আহসানের প্রযোজনায় ‘দেবী’ নির্মাণ করেছেন অনম বিশ্বাস। এতে অভিনয় করেছেন চঞ্চল চৌধুরী, জয়া আহসান, অনিমেষ আইচ, শবনম ফারিয়া, ইরেশ যাকের প্রমুখ।

ছবিটি চলতি সপ্তাহে চলছে দেশের ৩৫টি প্রেক্ষাগৃহে। পরিবেশনা করছে জাজ মাল্টিমিডিয়া।

Spread the love
  • 23
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    23
    Shares

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।