‘সেই তুমি কেন এত অচেনা হলে’- ট্রিবিউট টু বাচ্চু (ভিডিও)

0

ফিচার ডেস্ক:

না ফেরার দেশে চলে গেলেন প্রজন্মের আইকন আইয়ুব বাচ্চু। আজ বৃহস্পতিবার (১৮ অক্টোবর) সকাল ১০টায় রাজধানীর স্কয়ার হসপিটালে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৫৬ বছর।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম, রাস্তায়, চা দোকানে, যানবাহনে- সারাদেশের মানুষের মুখে একটাই প্রসঙ্গ- আইয়ুব বাচ্চুর অকাল যাত্রা। আক্ষেপ ঝরে পড়ছে সবার কথায়। এত অসময়ে কেন চলে গেলেন, এই দুঃখ তরুণ প্রজন্মকে অনেকদিন পোড়াবে।

এরই মধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে বেশ ক’দিন আগের একটি ভিডিও নতুন করে। রাস্তার বাঁশি বিক্রেতা হোসেন নিজের মতো করে বাজিয়েছেন আইয়ুব বাচ্চুর জনপ্রিয়- ‘সেই তুমি কেন এত অচেনা হলে’ গানটি। আলিফ হাসান নামের এক নেটিজেন শেয়ার করেছেন ভিডিওটি।

আলিফ নিজের অভিজ্ঞতা শেয়ার করে বলেন, তিনি ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন ছাত্র। ক্লাস থেকে ফেরার পথে রাস্তায় হোসেন নামের এই বাঁশি বিক্রেতার দেখা পান। তার কাঁধে বাঁশির ঝোলা। তিনি আনমনে বাঁশির সুর তুলছেন। তারপর তার অনুমতি নিয়ে বাঁশি বাদনের ভিডিও করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করেন। আলিফ আশা করেছিলেন হয়তো হাজারখানেক মানুষ দেখবে ভিডিওটি। কিন্তু এত মমতা দিয়ে বাজানো বাঁশির সুর মানুষকে এতটাই মোহিত করে যে, দিনে দিনে সেটি লাখো মানুষের কাছে পৌঁছে যায়।

এর পরের ঘটনা আরও চমকপ্রদ। বিভিন্ন জায়গা থেকে হোসেনের সন্ধান চেয়ে লোকজন আলিফের সাথে যোগাযোগ করতে থাকেন। তার ঠিকানা চান, তার কাছ থেকে আরও কিছু শুনতে চান। তখন আলিফ পড়লেন ভাবনায়, তিনি হোসেনের সন্ধান জানেন না, পথে হঠাৎ দেখা। তারপর সন্ধানে নেমে ডেমরা থেকে খুঁজে আনেন সেই বাঁশি বাদক হোসেনকে।

আজ আইয়ুব বাচ্চু চলে গেলেন তাঁর রূপালি গিটার ফেলে। কিন্তু তাঁর সেই রেখে যাওয়া গান কোটি ভক্ত হৃদয়ে গেঁথে গেছে চিরদিনের জন্য। তারই একজন রাস্তার বাঁশি বিক্রেতা হোসেন। যার প্রাতিষ্ঠানিক কোনো শিক্ষা নাই, কিন্তু আবেগ আর ভালোবাসা দিয়ে বাজিয়ে চলেছেন বাচ্চুর অমর সৃষ্টিগুলো। লোক লোকান্তরে ছড়িয়ে পড়ছে সেই সুর…বহুদূর।

আইয়ুব বাচ্চুর স্মৃতির উদ্দেশ্যে এই ভিডিওটি:

Spread the love
  • 253
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    253
    Shares

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.com-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।